পবিত্র না’ত শরীফ


  ইলাহী স্বয়ং ইরশাদ ফরমান, আপনারই জন্য কায়িনাত আলীশান আপনারই শান প্রকাশ করতে হয়েছি আমি স্বয়ং জাহির মুহব্বতে আপনার সৃষ্টি সবি দো’জাহানে যা সদা হাজির। আপনারই কারণে সৃষ্টি আসমান সৃষ্টি আরশ-কুরসী, লৌহ-কলম আপনারই কারণে জান্নাত-জাহান্নাম আপনিই সরকারে দো’আলম। ইলাহী পাক স্বয়ং 

‌যিলহজ্জ মা‌সের প্রথম দশ‌দি‌নের ইবাদত অ‌শেষ ফযিলত লা‌ভের মহান উপলক্ষ।


‌যিলহজ্জ মা‌সের প্রথম দশ‌দি‌নের ইবাদত অ‌শেষ ফযিলত লা‌ভের মহান উপলক্ষ। ‌যিলহজ্জ শরীফ উনার প্রথম দশ‌দিন হ‌লো বান্দাবা‌ন্দির জন্য অ‌শেষ নিয়ামত তথা অজস্র রহমত, বরকত, সা‌কিনা লা‌ভের মহান এক উপলক্ষ। বান্দাবা‌ন্দি অনায়‌সে এ প‌বিত্র রাত‌সমুহকে যথাযথ মুল্যায়‌নের মাধ্য‌মে হা‌ছিল কর‌তে পার‌বে অসংখ্যা 

বিদআতের পরিচয়, বিদআত কাকে বলে কত প্রকার ও কী কী বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে।


উসূলের কিতাবে উল্লেখ রয়েছ যে, اصول، لمشرع ثلثة القران- الحديث- الاجماع ورابعها القياس- (نور الانوار) অর্থঃ- “মূলতঃ ইসলামী শরীয়ত উনার ভিত্তি হলো তিনটি। পবিত্র কুরআন শরীফ, পবিত্র হাদীছ শরীফ,পবিত্র ইজমা শরীফ এবং চতুর্থ হলো- পবিত্র ক্বিয়াস শরীফ।” (নুরুল আনোয়ার)  মহান আল্লাহ রাব্বুল 

২২ শে শাওয়াল শরীফ


মুবারক হো সুমহান ২২শে শাওওয়াল শরীফ- হযরত নিবরাসাতুল উমাম আলাইহাস সালাম তিনি হচ্ছেন- লখতে জিগারে মুজাদ্দিদে আ’যম, ক্বায়িম-মাক্বামে হযরত যাহরা আলাইহাস সালাম যিনি খালিক্ব¡ মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, قُلْ لَّاۤ اَسْاَلُكُمْ عَلَيْهِ اَجْرًا اِلَّا الْمَوَدَّةَ فِى 

সানকি ইয়াদিম (ধরো আমি খেয়েছি) মসজিদ !


জামে সানকি ইয়াদিম। বাংলায় ‘ধরো আমি খেয়েছি’ মসজিদ। এমন অদ্ভুত নামের এই মসজিদটি ইস্তাম্বুল শহরের ফাতেহ এলাকায় অবস্থিত। উসমানী শাসনামলে ১৭ শতকে ইস্তাম্বুল শহরের ফাতেহ এলাকায় বাস করতেন এক হতদরিদ্র মুসলমান। উনার নাম খায়রুদ্দিন আফেন্দী। পথে-ঘাটে ঘুরে বেড়াতেন তিনি।মাঝে মধ্যে বাজারের 

মুবারক হো ২০ শে শাওয়াল শরীফ


এক নজরে সাইয়্যিদাতুন নিসায়ি ‘আলাল ‘আলামীন, উম্মুল মু’মিনীন আল খ¦মিসাহ্ সাইয়্যিদাতুনা হযরত উম্মুল মাসাকীন আলাইহাস সালাম উনার সম্মানিত পরিচিতি মুবারক উম্মুল মু’মিনীন আল খ¦মিসাহ্ সাইয়্যিদাতুনা হযরত উম্মুল মাসাকীন আলাইহাস সালাম তিনি হচ্ছেন হযরত উম্মাহাতুল মু’মিনীন আলাইহিন্নাস সালাম উনাদের মধ্যে বিশেষ ব্যক্তিত্বা 

মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র বরকতময় সিলসিলা মুবারক বর্তমান সময় পর্যন্ত


মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে, عَنْ حَضْرَتْ فَاطِمَةَ الْكُبْرَى عَلَيْهَا السَّلَامُ قَالَتْ قَالَ رَسُولُ اللهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ كُلُّ بني أُمٍّ يَنْتَمُونَ إِلَى عَصَبَةٍ إِلا وَلَدَ حَضْرَتْ فَاطِمَةَ عَلَيْهَا السَّلَامُ فَأَنَا وَلِيُّهُمْ وَأَنَا عَصَبَتُهُمْ. অর্থ: 

হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের যারা মানহানী করবে, তাদের একমাত্র শাস্তি মৃত্যুদণ্ড


সম্মানিত ও পবিত্র কুরআন শরীফ, সম্মানিত ও পবিত্র হাদীছ শরীফ, সম্মানিত ইজমা’ শরীফ এবং সম্মানিত ক্বিয়াস শরীফ উনাদের সম্মানিত ফতওয়া মুবারক অনুযায়ী ‘নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার এবং উনার মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র হযরত আহলু বাইত শরীফ 

মুবারক হো ১৮ ই শাওয়াল শরীফ


সাইয়্যিদু শাবাবি আহলিল জান্নাহ, আহলু বাইতি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম, সিবতু রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম সাইয়্যিদুনা হযরত ইমাম ইবনে যুন নূর আছ ছানী আলাইহিস সালাম উনার বেমেছাল শান-মান, ফাযায়িল-ফযীলত, বুযূর্গী-সম্মান আহলু বাইতি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম, ইমামুল মুহাদ্দিছীন 

সুন্নতি খাবার নাবীয


৪. নাবীয: নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার অত্যন্ত প্রিয় পানীয় হচ্ছে নাবীয। নাবীয দেহের শক্তি বৃদ্ধি করে। এছাড়া: পাকস্থলির এসিডিটি দূর করে হজমশক্তি বৃদ্ধি করে শরীর থেকে বিপাকীয় বর্জ্য বের করে দেয় স্বরণশক্তি বৃদ্ধি করে মনমরা 

সুন্নতি খাবার তালবিনা


৩. তালবীনা: উম্মুল মু’মিনীন হযরত ছিদ্দীকা আলাইহাস সালাম তিনি কোন মৃতব্যাক্তির শোকে দুর্বল হয়ে পড়াদের তালবীনা খাওয়ার জন্য নছিহত মুবারক করেছেন। তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “আমি নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাকে বলতে শুনেছি- তালবীনা রোগাক্রান্ত ব্যক্তির 

সুন্নতী খাবার শুকনো গোশত


২. শুকনো গোশত: হযরত ছাওবান রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু উনার হতে বর্ণিত, তিনি বলেন, আমরা ছফরে থাকা অবস্থায় নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মুবারক খিদমতে একটি দুম্বা জবাই করলাম এবং তিনি আমাকে আদেশ মুবারক করলেন, এই গোশতটি