ভারতের সাথে কয়লা ভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র বাতিল করল শ্রীলংকা, আর আমাদের সরকার সুন্দরবন ধবংসে কয়লা ভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণে বদ্ধপরিকর।


পত্রিকান্তরে প্রকাশ শ্রীলংকার পূর্বাঞ্চলীয় প্রদেশ ত্রিনকোমলিতে কয়লা ভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণে ভারতের রাষ্ট্রায়াত্ত প্রতিষ্ঠান ‘এনটিপিসি’র চুক্তিটি বাতিল করে দিয়েছে দেশটির সরকার।পরিবেশবাদীদের উদ্বেগ ও জনগণের প্রতিবাদের কারণে শ্রীলংকান সরকার এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে ভারতীয় গণমাধ্যম #দ্য হিন্দুর প্রতিবেদনে বলা হয়েছে। #অপরদিকে আমাদের দেশে 

পতিতালয়ে যদি সরকার আর্থিক সাহায্য না করে থাকে, তাহলে ধর্মের নামে বেশ্যাপনায় তথা দূর্গাপূজায় কেন সরকার আর্থিক সাহায্য করছে?


আমরা সকলেই জানি সরকার তো দূরে থাক কোন ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান কখনো পতিতালয়ে কোন ধরণের সাহায্য-সহযোগিতা করে না।পতিতালয় নিকৃষ্ট স্থান বিধায় একে সকলে নিষিদ্ধপল্লি হিসেবে চিনে। #এই যদি হয় পতিতালয়ের ক্ষেত্রে তাহলে যে মূর্তি তথা দুর্গাদেবিকে তৈরি করা যায় না পতিতালয়ে 

অতীত ইতিহাস বলে হিন্দুরা কখনো মুসলমানদের বন্ধু হতে পারেনা।


সুকুমারী ভট্টাচার্য হিন্দুদের মনোভাব ফাস করতে গিয়ে লিখেন,”ভারতবর্ষে হিন্দু রাষ্ট্র স্থাপন করতে গেলে অহিন্দুকে(মুসলমান) হয় ধর্মান্তরিত করতে হয়, নয়ত তাদের পৃথিবী থেকে সরিয়ে দিতে হয়। সংগে সংগে তাদের সম্পত্তি লুঠ করতে হয় এবং ফাউ হিসেবে তাদের কিশোরি যুবতী -পৌঢ়া নারীদের গণধর্ষণ 

ভারতে যেমন প্রশাসনের প্রত্যক্ষ মদদে মুসলমানদের উপর ষ্টীমরোলার চালানো হয়,তদ্রুপ বাংলাদেশের মুসলমানদের উপর যুলুম- নির্যাতনের উদ্দেশ্যেই প্রশাসনের রন্ধ্রে রন্ধ্রে


ভারতে প্রতিটি দাংগার পেছনে প্রশাসনের শুধু পরোক্ষ নয় প্রত্যক্ষ মদদ রয়েছে। শুধু কি তাই খোদ পুলিশ প্রশাসন হিন্দু সন্ত্রাসীদের সাথে দাংগাই লিপ্ত হয়। তাতে দাংগা দীর্ঘস্থায়ি হয় এবং ধর্ষণ, হত্যা, লুটপাট, অগ্নিসংযোগ ধারাবাহিকভাবে চলতে থাকে। #অভীক মজুমদার লিখেছেন,স্বাধীনভারতে এই প্রথম আমরা 

চট্টগ্রাম দখলের পায়তারা চলছে হিন্দুদের। এর পরিপ্রেক্ষিতেই কুরবানীর দিন গর্দান ফেলে দেয়ার হুমকি,চান্দগাও মন্দির ভাংগার নামে প্রকাশ্যে মুসলিমদের হত্যার


চট্টগ্রাম বাংলাদেশের রাজধানী। চট্টগ্রামকে কেন্দ্র করেই বাংলাদেশের অধিকাংশ ব্যবসায়-বাণিজ্য পরিচালিত হয়। এই চট্টগ্রাম যদি দখল করা যায় তাহলে অনায়াসে বাংলাদেশ হাতের মুঠোয়। তাই চট্টগ্রাম দখলের উদ্দেশ্যেই কেস স্টাডি হিসেবে সাম্প্রতিক সময়ে কয়েকটি ঘটনা ঘটিয়েছে হিন্দুরা।যেমন: #কুরবানীর দিন হালিশহর থানাধীন আচার্য পাড়ায় 

একজন মকবূল মনোনীত মহান খলীফা উনার মুবারক আবির্ভাব-১১


একজন মকবূল মনোনীত মহান খলীফা উনার মুবারক আবির্ভাব-১১ **************************************************** খিলাফত আলা মিনহাজিন নুবুওওয়াহ এবং তৎসংশ্লিষ্ট বিষয় সম্পর্কে কিছু গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা : আমরা আমাদের মূল আলোচনায় যাওয়ার পূর্বে খিলাফত আলা মিনহাজিন নুবুওওয়াহ এবং উহার সংশ্লিষ্ট বিষয় সম্পর্কে সংক্ষিপ্তভাবে কিছু গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা করবো। 

আযাব গযব!!!


আযাব গযব!!! ************** মুজাদ্দিদে আ’যম মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা আলাইহিস সালাম উনার দোয়া ও রোবের প্রতিফলন মুসলমানগণকে যুলুম নির্যাতন করার ফলস্বরূপ যুলুমবাজ কাফিরদের উপর বন্যা, তুষারপাত, ঘূর্ণিঝড়, দাবানল, ভূমিকম্প প্রভৃতি প্রাকৃতিক দুর্যোগসহ বিভিন্ন প্রকার বিশৃঙ্খলা অস্বাভাবিক মৃত্যু এবং অর্থনৈতিক মন্দারূপে খোদায়ী 

মুজাদ্দিদে আ’যম হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা আলাইহিস সালাম-উনার ক্বওল শরীফ।


মুজাদ্দিদে আ’যম হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা আলাইহিস সালাম-উনার ক্বওল শরীফ। ********************************************************** নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন- ‘আমার পর যদি কেউ নবী হতেন, তবে নবী হতেন সাইয়্যিদুনা হযরত ফারূক্বে আ’যম আলাইহিস সালাম তিনি।’ সুমহান বরকতময় 

মহাসম্মানিত পবিত্র কুরআন শরীফ উনার আলোকে- সাইয়্যিদুল আম্বিয়া ওয়াল মুরসালীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম


মহাসম্মানিত পবিত্র কুরআন শরীফ উনার আলোকে- সাইয়্যিদুল আম্বিয়া ওয়াল মুরসালীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সম্মানিত আহলু বাইত শরীফ ও আওলাদ আলাইহিমুস সালাম উনাদের কতিপয় ফযীলত মুবারক বর্ণনা। ************************************************************************ হযরত আওলাদে রসূল আলাইহিমুস সালাম উনাদের শান-মান, 

সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, খাতামুন নাবিইয়ীন, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার পবিত্র জীবনী মুবারক-ধারাবাহিক।


সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, খাতামুন নাবিইয়ীন, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার পবিত্র জীবনী মুবারক-ধারাবাহিক। *********************************************************************************************************************** নূরে মুজাসসাম হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার খিদমতে পিতামহ সাইয়্যিদুনা হযরত আব্দুল মুত্তালিব আলাইহিস সালাম উনার থাকাকালীন ঘটনা   মহান আল্লাহ 

তিন দিন সরকারি ছুটির দাবি জানিয়েছে হিন্দু যুব মহাজোট!!!


যার যতটুকু প্রাপ্য তাকে ততটুকুই দেয়া উচিত।৯৮% জনগণ যে পরিমাণ সুবিধা পাবে, ২% এর জন্যে তো ততটুকু সুবিধা দেয়াটা যুক্তিযুক্ত নয়।বাংলাদেশে ইসলাম ধর্মকে প্রাধান্য দেয়াটিই যৌক্তিক ছিল যেহেতু সংবিধানের ২ নম্বর ধারায় বর্ণিত রাষ্ট্রদ্বীন হচ্ছে ইসলাম। এখন মুসলমানরা যেসকল সুযোগ-সুবিধা পাবে 

উদ্দেশ্য তবে একটাই হোক…


যে ব্যক্তি সব উদ্দেশ্যকে এক উদ্দেশ্যে পরিণত করতে পারবে তার সমস্ত কিছুর জন্য মহান আল্লাহ পাক তিনিই যথেষ্ট হয়ে যাবেন। সুবহানাল্লাহ্‌! অর্থাৎ যেকোনো কাজেই উদ্দেশ্য হবে পরকালীন সফলতা হাছিল করা। ইমামে আ’যম আবু হানীফা রহমতুল্লাহি আলাইহি উনাকে কাজী,মুফতি,রাষ্ট্রীয় বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণে পদে