অর্থনৈতিক গযব!!


ওয়াল স্ট্রিটে পতন: অগ্রভাগে ব্যাংক ও আর্থিক খাতের শেয়ার।

ওয়াল স্ট্রিটে ব্যাংক ও আর্থিক খাতের কোম্পানিগুলোর শেয়ার বৃহস্পতিবার দুই বছরে সবচেয়ে বড় পতন দেখেছে। ব্যাংক অব আমেরিকা, জেপি মরগানসহ সব ব্যাংকের শেয়ারের দাম কমেছে। তবে তেলের মূল্য নিয়ন্ত্রণে ওপেকের সহযোগিতার খবরে জ্বালানি খাতের কোম্পানিগুলো ক্ষতি আংশিক পুষিয়ে নিয়েছে। খবর রয়টার্স। বৈশ্বিক অর্থনীতির মন্থরগতি সুদহারে চাপ সৃষ্টি করবে। সুদহার কমলে ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর মুনাফা কমবে। গত ইয়াওমুল খামিস (বৃহস্পতিবার) দিনভর এ উদ্বেগ ওয়াল স্ট্রিটে ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের শেয়ারগুলোকে তাড়া করেছে। এ খাতের এসপিএসওয়াই সূচকটি ২০১৩ সালের অক্টোবরের পর বৃহস্পতিবার সবচেয়ে বড় পতন দেখেছে। এসপিএসওয়াই সূচক এদিন ১ দশমিক ৭৩ শতাংশ নিচে নামে।
এসঅ্যান্ডপি ৫০০ সূচকের সার্বিক পতন ঘটেছে ২২ দশমিক ৭৮ শতাংশ। নির্বাচিত এ ৫০০ কোম্পানি গত ইয়াওমুল খামিস (বৃহস্পতিবার) বাজারমূল্যের ১ দশমিক ২৩ শতাংশ হারিয়েছে। দুই বছরে এসঅ্যান্ডপি ৫০০ সর্বনিম্ন ক্লোজিং দেখেছে ইয়াওমুল খামিস (বৃহস্পতিবার) । এদিন এসঅ্যান্ডপি ৫০০ সূচকে সবচেয়ে বড় পতন দেখেছে ব্যাংক অব আমেরিকা ও জেপি মরগান। ব্যাংক অব আমেরিকার শেয়ার বিক্রি হয়েছে ১১ দশমিক ১৬ ডলারে। জেপি মরগানের শেয়ারদর ৪ দশমিক ৪ শতাংশ কমে ৫৩ দশমিক শূন্য ৭ হয়েছে। একইভাবে মরগান স্ট্যানলি ৪ দশমিক ৪৭ ও বার্কলেস ব্যাংক ৬ দশমিক ১৪ শতাংশ দরপতনের শিকার হয়েছে।
ওয়েলস ক্যাপিটাল ম্যানেজমেন্টের চিফ ইনভেস্টমেন্ট অফিসার জিম পলসন বলেছে, আসল ভয় হলো, আমরা বৈশ্বিক মন্দার দিকে এগোচ্ছি। ট্রেজারি বন্ড ও স্বর্ণের মতো নিরাপদ বিনিয়োগের হুজুগ বৃদ্ধি প্রসঙ্গে সে বলেছে, এক্ষেত্রে সম্ভাব্য মুনাফার চেয়ে লোকসানের ঝুঁকি অনেক বেশি।
বিনিয়োগকারীরা যেভাবে ব্যাংক শেয়ার বিক্রি করতে ছুটছে, তার পেছনে কেন্দ্রীয় ব্যাংকগুলোর পদক্ষেপকে কারণ হিসেবে দেখা হচ্ছে। জাপান, সুইডেনসহ বেশ কয়েকটি দেশের কেন্দ্রীয় ব্যাংক নেতিবাচক সুদহার প্রবর্তন করেছে। অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি উদ্দীপ্ত করতে গৃহীত এ পদক্ষেপকে এখন সমাধান নয়, সংকটের অংশ বলে ভাবা হচ্ছে।

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে