আইনি ইতিহাসে ‘বার্ধক্য-ছাড়’ নজিরবিহীন


যুদ্ধাপরাধের মামলায় আসামির বয়স বিবেচনা করে দণ্ডহ্রাসের নজির পৃথিবীর ইতিহাসে নেই। বাংলাদেশে সাধারণ বিচারে বয়স ও শারীরিক অবস্থা কখনও-কখনও বিবেচনা করা হলেও পৃথিবীতে এখন পর্যন্ত যতগুলো যুদ্ধাপরাধের মামলার বিচার হয়েছে, তার একটিতেও বয়সের কারণে ছাড় দেওয়া হয়নি।— মৃত্যুদণ্ডতুল্য অপরাধের পরও গো আযমের ৯০ বছরের কারাদণ্ড হওয়ার প্রতিক্রিয়ায় এমনটিই জানালেন দেশের বিশিষ্ট আইনজ্ঞরা।

গত সোমবার মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় সবকটি অপরাধ প্রমাণিত হওয়ার পরও জামায়াতের সাবেক আমির গো আযমকে মৃত্যুদণ্ডের পরিবর্তে ৯০ বছর কারাদণ্ড দিয়েছেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল। রায়ে ট্রাইব্যুনাল উল্লেখ করেন, অপরাধের জন্য সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড পাওনা হলেও বয়স ও শারীরিক অবস্থা বিবেচনায় আসামিকে ৯০ বছরের কারাদণ্ডাদেশ দেওয়া হল।

এ ব্যাপারে বিশিষ্ট আইনজীবী ব্যারিস্টার আমীর-উল ইসলাম বলেন, দেশের সাধারণ মামলায় আসামির বয়স ও শারীরিক অবস্থা বিবেচনা করার নজির থাকলেও যুদ্ধাপরাধের মামলায় এসব বিবেচনা করার নজির নেই।

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+