“আওয়ামী লীগ মানে হিন্দুর দল; আ’লীগ হিন্দু তোষণ করে থাকে।”


“আওয়ামী লীগ মানে হিন্দুর দল; আ’লীগ হিন্দু তোষণ করে থাকে।”
কথাটা সুচালো তীরের মতো বিদ্ধ হতো মনের গহীনে। কোথাও প্রতিবাদ করতাম, কোথাও না শুনার ভান করে এড়িয়ে যেতাম। কারণ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তান হলেও রাজনীতির সাথে জড়িত নই। রাজনীতিবিদরা বড়ই ধাপ্পাবাজ। তাদের কপটতা ও দ্বিচারিতা আমার মোটেই পছন্দ নয়।
তবে সময় গড়িয়ে যাওয়ায় আমার মনে সন্দেহ ঢুকতে থাকে। আর আ’লীগ সরকারের ১৯৯৬-২০০১ সালের মেয়াদ ও ২০০৯ সাল থেকে শুরু হওয়া বর্তমান মেয়াদের কর্মকা- দেখে আমার মনের সন্দেহ প্রছন্ন হয়ে গেছে। কারণ আ’লীগ ক্ষমতা গ্রহণ করেই সরকারি এমন কোনো বিভাগ নেই, যা হিন্দুকরণ করা হয়নি। সরকারি সমস্ত বিভাগে তথা নিম্ন অফিস-আদালত থেকে শুরু করে মন্ত্রণালয়-সচিবালয় পর্যন্ত অর্থাৎ টপ টু বটম হিন্দু কর্মকর্তাদের দ্বারা সাজানো হয়েছে। যদি হিন্দু না থাকে তবে-ই মুসলমান কর্মকর্তাদের স্থান।
অথচ দেশের ৯৭ ভাগ অধিবাসী মুসলমান। ২ ভাগেরও কম হিন্দু এদেশে। তাহলে এটা কি বৈষম্য নয়? এটা কি দেশের ৯৭ ভাগ অধিবাসী মুসলমানদের সাংবিধানিক অধিকার হরণ নয়?
সরকারের হিন্দু তোষণ বন্ধ করা উচিত। হিন্দু তোষণ সরকারকে ধ্বংসের অতল গহ্বরে নিয়ে যাবে। সরকারের উপর চাপ আসা সুরু হলে সরকারের হিন্দু দাদারা কিন্তু রক্ষা করতে পারবে না। জ্ঞানীর জন্য ইশারাই যথেষ্ট।

Views All Time
1
Views Today
2
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে