আপনার সন্তানের কারণে আপনাকে যেন জাহান্নামে যেতে না হয়…


আপনার সন্তানকে আপনি পড়ালেখা শেখার জন্য স্কুল-কলেজে পাঠাচ্ছেন। কিন্তু সেখানে তার পাঠ্যবইগুলোতে আপত্তিকর, ইসলামবিরোধী, বিধর্মী-বিজাতীয় লেখনী সর্বোপরি ইসলাম ও মুসলিম বিরুদ্ধ, সাংঘর্ষিক লেখা দিয়েই ঠেসে দেয়া হয়েছে স্কুল-কলেজের পাঠ্যবইগুলোকে।
পাঠক! এই লেখাটির শিরোনামটি এইভাবে দেয়ার কারণ হলো- আপনি হয়তো নিজে নিজে নামায, কালাম পড়ে সহজেই নাজাতের কথা ভাবছেন। কিন্তু আপনার জানা উচিত- সম্মানিত দ্বীন ইসলাম মুতাবিক- আপনার অধীনস্থ সন্তানের অপরাধের জন্য আপনিও দায়ী। অর্থাৎ আপনার অজ্ঞতা, গাফলতির কারণে যদি আপনার সন্তান পথভ্রষ্ট হয়, গুনাহতে লিপ্ত হয়, তাহলে তার জন্য আপনাকে জবাবদিহি করতে হবে। হতে পারে- ওই সন্তানই আপনার নাজাতে বাধার কারণ হয়ে দাঁড়াবে। নাউযুবিল্লাহ! আপনার সন্তানের পিছনে এত এত টাকা-পয়সা খরচ করে, সময় ব্যয় করে কি শিখাচ্ছেন তা সম্পর্কে সচেতন হওয়ার কোনো বিকল্প নেই। এটাকে দায়িত্ব-কর্তব্য মনে করে- তাকে সকল প্রকার দ্বীনি শিক্ষার ব্যবস্থা করা আপনার জন্য ফরয।

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে