আপনি জানেন কি কাদেরকে যাকাত দিলে যাকাত আদায় হবেনা ?


 

১) জাকির নালায়েক
২) কোয়ান্টাম মেথড
৩) আনজুমানে মুফিদুল ইসলাম
৪) মউদুদীবাদী জামাত
৫) কওমী,দেওবন্দী মাদ্রাসা
৬) হেফাযত
৭) বাতিল ৭২ ফিরকা যেমন কাদিয়ানী,সালাফী,ওহাবী,খারেজী,রাফেজী ইত্যাদি ।
৮) গাট্রিওয়ালা তাবলীগ
৯) যেসকল ইয়াতিমখানা বা প্রতিষ্ঠান শরিয়তবিরোধী কাজে জড়িত যেমন তন্ত্রমন্ত্র করে,বেপর্দা হয়,ছবি তোলে,খেলাধুলা করে,টিভি দেখে,টিভিতে প্রোগ্রাম করে, হরতাল,লংমার্চ, অবরোধ করে এদের যাকাত দিলে যাকাত আদায় হবেনা।

কেন আদায় হবেনা ?

কারন এরা প্রত্যেকে শরিয়তবিরোধী আক্বিদা ও কর্মকান্ডে জড়িত।

যে বিষয়ে মহান আল্লাহ পাক ইরশাদ মুবারক করেন “নেক ও খোদাভীতিতে একে অন্যের সাহায্য কর। পাপ ও সীমালঙ্ঘনের ব্যাপারে একে অন্যের সহায়তা করো না। আল্লাহকে ভয় কর। নিশ্চয় আল্লাহ তা’আলা কঠোর শাস্তিদাতা।” সুরা মায়িদা – ২

এই আয়াত অনুসারে আপনি যদি এদের যাকাত দেন তাহলে পাপ ও বদিতে সাহায্য করা হবে যা আল্লাহ পাক নিষেধ করেছেন ।

১০) গরীব কিন্তু ফাসিক অর্থাৎ দরিদ্র কিন্তু নামাজ ,রোজা আদায় করেনা,বেপর্দা হয়,খেলাধুলা,গানবাজনা করে, ছবি তোলে, টিভি দেখে ,বিড়ি সিগারেট খায়,গালিগালাজ করে, পাপ কাজ করে । এমন লোক যদি নিজের ভাই ও হয় তাকে যাকাত দেওয়া যাবেনা, তবে দান করা যাবে । গরীব আত্বীয়স্বজন,পাড়াপ্রতিবেশি,কাজের লোকের ক্ষেত্রেও একই কথা প্রযোয্য ।
কেন ?
হযরত আনাস রাদিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু থেকে বর্ণিত। রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, যখন কোন ফাসিকের প্রশংসা করা হয় তখন আল্লাহ পাক ক্রুদ্ধ হন এবং সে কারণে আল্লাহর আরশ কাঁপতে থাকে। – মিশকাত

তাহলে ফাসিককে সাহায্য করলে কি হবে ?

প্রশ্ন হতে পারে কাকে দিবেন ?

যে ব্যাক্তি বা প্রতিষ্টান পরিপুর্ন ইসলাম মেনে ছলে ,
ঈমান আক্বিদা ঠিক আছে ,
এবং হারাম কাজে সংশ্লিষ্ঠ নয় তাকে যাকাত দিতে হবে ।

মনে রাখবেন যাকাত দেওয়া ফরজ,গ্রহন নয় ।
আপনার যাকাত নিয়ে কেউ শরিয়তবিরোধী কাজ করলে এর দায়ভার আপনার ।

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে