আপনি মুসলিম, নাকি মানুষ…?


অনেকেই এখন আধুনিক রং ঢংয়ে বলে থাকে- সে প্রথমে মানুষ, এরপর বাঙালি, এরপর সে মুসলমান।’

কিছু তথাকথিত, প্রগতিশীল, মুক্তমনা, নামধারী মুসলিমরাও এরকম বলে থাকে। মূলত, এই তত্ত্বটি(!) একটি বিবর্তনবাদী নাস্তিক্যবাদীদের বুলি। প্রকৃতপক্ষে তারা মুসলমানের খোলসে থাকলেও তারা আসলে মুসলমান নয়! তারা ইসলাম বিদ্বেষী!

” প্রথমে মানুষ, এরপর বাঙালি, এরপর সে মুসলমান। ”
এই কথাটির মাঝে অনেকেই কোনো অস্বাভাবিকতা বা ভুল খুঁজে পায় না। কিন্তু আপনি একটু গভীরভাবে বিষয়টি নিয়ে চিন্তা করুন। আপনি যদি ঈমান গ্রহণ না করেন, তাহলে আপনার মনুষ্যত্ব, আপনার বাঙালিত্বের কি কোন মূল্য আছে?

এর উত্তর আপনি আপনাকে তথা আপনার মনকে জিজ্ঞেস না করে- আপনার আমার আমাদের সকলের যিনি খালিক্ব, মালিক, রব, মহান আল্লাহ পাক উনার থেকে জানুন। অর্থাৎ এর উত্তরে মহান আল্লাহ পাক তিনি পবিত্র কালামুল্লাহ শরীফ কুরআন শরীফ উনার মাঝে কি ইরশাদ মুবারক করেছেন- সেটাই হবে আমাদের উত্তর।

পবিত্র কালামুল্লাহ শরীফ উনার মাঝে ইরশাদ মুবারক হয়েছে-
সমস্ত প্রাণীর মধ্যে মহান আল্লাহ পাক উনার নিকট কাফিররাই (ইসলাম অস্বীকারকারীরা)ই সবচেয়ে নিকৃষ্ট, যারা ঈমান আনেনি।
(পবিত্র সূরা আনফাল শরীফ: পবিত্র আয়াত শরীফ-৫৫)

আবার এ কথাও ইরশাদ মুবারক হয়েছে-
” নিশ্চয়ই যারা ঈমানদার ও নেককার তারাই সৃষ্টির মধ্যে সর্বোত্তম।” (পবিত্র সূরা আল বাইয়্যিনাহ শরীফ: পবিত্র আয়াত শরীফ-০৭)

তাহলে দেখা যাচ্ছে- আপনি যত বড় কিছুই দাবি করেন না কেন, ঈমান ছাড়া, মুসলমানিত্ব ছাড়া আপনার এসবের কোন মূল্য নেই! তাই আমাদেরকে বলতে হবে-
“সর্বপ্রথম আমি ঈমানদার, মুসলমান; এরপর অন্য পরিচয়….”।

মহান আল্লাহ পাক তিনি আমাদেরকে মনগড়া বিশ্বাস, কথাবার্তা থেকে হিফাযত করে একমাত্র মহান আল্লাহ পাক উনার ও উনার হাবীব হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাদের মতে মত, উনাদের পথে পথ করে দিন।
আমীন!

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে