আফদ্বালুন নাস বা’দাল আম্বিয়া সাইয়্যিদুনা হযরত ছিদ্দীক্বে আকবর আলাইহিস সালাম উনার মর্যাদা মুবারক


বিশিষ্ট ছাহাবী হযরত আবু সাঈদ খুদরী রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু উনার থেকে বর্ণিত রয়েছে, নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, মানুষদের মধ্যে নিজস্ব সম্পদ ও সাহচর্য দ্বারা আমার প্রতি সর্বাধিক খিদমত করেছেন সাইয়্যিদুনা হযরত ছিদ্দীক্বে আকবর আলাইহিস সালাম তিনি। যদি আমি কাউকে বন্ধুরূপে গ্রহণ করতাম, তাহলে সাইয়্যিদুনা হযরত ছিদ্দীক্বে আকবর আলাইহিস সালাম উনাকেই বন্ধুরূপে গ্রহণ করতাম। কিন্তু উনার সাথে ইসলামী ভ্রাতৃত্ব ও (দ্বীনি) মুহব্বত রয়েছে। আরেক বর্ণনায় এসেছে, আমি যদি আমার রব মহান আল্লাহ পাক উনাকে ব্যতীত আর কাউকে বন্ধুরূপে গ্রহণ করতাম, তাহলে সাইয়্যিদুনা হযরত ছিদ্দীক্বে আকবর আলাইহিস সালাম উনাকেই বন্ধুরূপে গ্রহণ করতাম। (মুত্তাফাকুন আলাইহি শরীফ)
অত্র পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে সাইয়্যিদুনা হযরত ছিদ্দীক্বে আকবর আলাইহিস সালাম উনার বেমেছাল মর্যাদা-মর্তবার বিষয় বর্ণিত হয়েছে। যিনি কুল-মাখলুকাতের নবী ও রসূল, যিনি সাইয়্যিদুল মুরসালীন, যিনি ইমামুল মুরসালীন, যিনি খাতামুন নাবিইয়ীন, যিনি নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম যিনি সৃষ্টি না হলে কোনোকিছুই সৃষ্টি করা হতো না, তিনি স্বয়ং ইরশাদ মুবারক করেন যে, আমি খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনাকে ব্যতীত আর কাউকে বন্ধু হিসেবে গ্রহণ করলে সাইয়্যিদুনা হযরত ছিদ্দীক্বে আকবর আলাইহিস সালাম উনাকেই বন্ধু হিসেবে গ্রহণ করতাম। এ বর্ণনা থেকে বোঝা যায় উনার মর্যাদা-মাক্বাম কত বেশি, কত ঊর্ধ্বে।

Views All Time
1
Views Today
2
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে