আমেরিকায় বার বার আঘাত হানছে ‘দৈত্যাকার’ টর্নেডো: বাড়ছে সংখ্যা, বাড়ছে শক্তিও


আমেরিকায় বার বার আঘাত হানছে ‘দৈত্যাকার’ টর্নেডো: বাড়ছে সংখ্যা, বাড়ছে শক্তিও:
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মাটি বার বার টর্নেডো দ্বারা ক্ষতবিক্ষত হচ্ছে। বসন্ত মাত্র শুরু হয়েছে, কিন্ত এর মধ্যে বেশকয়েকটি শহর ধ্বংসপ্রাপ্ত হল দৈত্যাকার টর্নেডোতে। অনেক আবহাওয়াবিদ বিপদজনক ২০১১’র টর্নেডো মৌসুমকে বলেছিল ‘মহা-অস্বাভাবিক’। কিন্তু ২০১২তে কি হতে যাচ্ছে? এ শুধু ভয়াবহই নয়, পূর্বের সব বারের তুলনা খারাপ।

চলতি বছর খুব দ্রুতই আঘাত হানছে এগুলো, সাথে বৃদ্ধি করছে এর শক্তিও। যেমন গত সপ্তাহে টেক্সাসের ডালাসসহ বেশকয়েকটি শহর গুড়িয়ে যায় ‘মহাশক্তিশালী’ সিরিজ টর্নেডোর আঘাতে। সমগ্র আমেরিকার লোকজন তখন অবাক হয়ে তাকিয়ে ছিল: ১০০ ফুট উচুতে কিভাবে ১৮ হুইলের ট্রাকগুলো ভাসছিল তা দেখে, যা কখনই স্বাাভাবিক নয়।
টর্নেডোতে ধ্বংস হচ্ছে বাড়িঘর, বহুতল ভবনসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা। কোন এলাকার উপর দিয়ে টর্নেডোর দল অতিক্রম করলে তা পরিণত হচ্ছে যুদ্ধ বিধ্বস্ত এলাকায়। যেখানে জনবসতির অস্তিত্ব খুজে পাওয়া দুষ্কর।
পরিসংখ্যানে দেখা যায়, গত বছর (২০১১) টর্নেডোর দিক থেকে আমেরিকার সবচেয়ে মন্দ বছর ছিল। অনেক মার্কিনই বলে থাকে, তারা এই বছর (২০১১) যা ক্ষয়ক্ষতি দেখেছে তা হয়ত আর জীবনেও দেখতে পাবে না। এই সময় অ্যালবামার টুসকালুসা শহর মাটির সাথে মিশে যায় ইএফ-৫ মাত্রার টর্নেডো আঘাতে। এ সময় বাতাসের গতিবেগ ছিল ঘণ্টায় ২৬০ মাইল। মিসৌরীর জপলিনও টর্নেডোতে শেষ হয়ে যায়। বলা হয়, এক দুর্যোগে (জপলিন টর্নেডো) এত ক্ষয়ক্ষতি ৬০ বছরের মধ্যে রেকর্ড।
চলতি বছরও এই ক্ষয়ক্ষতি ব্যতিক্রম হচ্ছে না। ইতিমধ্যে ডালাস ছাড়াও টেক্সাসের দুটি শহর এবং ইন্ডিয়ানার দুটি শহর পুরোপুরি ধ্বংসপ্রাপ্ত হয়েছে।
আবার, চলতি বছর প্রায় শ’ খানেক দিনের মধ্যেই আমেরিকাতে ৩২৬টি টর্নেডো সৃষ্টি হয়েছে, যা অন্যান্য বছরে একই সময়ের তুলনায় দ্বিগুন।
একটি হিসেবে দেখ্ াগেছে, ২০০৯ সালে যুক্তরাষ্ট্রের আঘাত হানা টর্নেডোর সংখ্যা ছিল ১১৪৬টি, যা পরের বছর (২০১০ সালে) আরো বৃদ্ধি পেয়ে ১২৮২তে দাড়ায়। ২০১১তে এর পরিমান আরো বাড়ে। ২০১১তে মোট আঘাত হানা টর্নেডোর সংখ্যা ছিল ১৬৯১টি। তাহলে চলতি বছর টর্নেডো মৌসুম শুরু হতেই এর সংখ্যা যদি ৩২৬-তে দাড়ায়, তাহলে ধারাবাহিকভাবে এবার পূর্বের তুলনায় বেশি হবে এমনই আশঙ্কা আবহাওয়াবিদদের।

যুক্তরাষ্ট্রে পূর্ব উপকূল জুড়ে ছড়িয়ে পড়েছে দাবানল:
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পূর্ব উপকূলীয় এলাকায় অনিয়ন্ত্রিত দাবানল ছড়িয়ে পড়েছে। নিউইর্কের লং আইল্যান্ড থেকে ফ্লোরিডা, এবং পশ্চিমে কেনটাকি পর্যন্ত জারি করা হয়েছে ‘লাল পতাকা’ সতর্কবস্থা। এনবিসি এই তথ্য জানায়।খবরে বলা হয়, নিউইয়র্ক স্টেটের লং আইল্যান্ডে দুইটি অনিয়ন্ত্রিত দাবানল ছড়িয়ে পড়ে। শুষ্ক এবং ঝড়ো বাতাসে আগুনের লেলিহান শিখা আরো দ্রুত পরিধি বৃদ্ধি করছে।ম্যারনভিলিতে প্রায় ১ হাজার জুড়ে অবস্থান করছে দাবানল। এছাড়া স্ট্যালেন আইল্যান্ডেও ছড়িয়ে পড়েছে দাবানল। এদিকে নিউ জার্সিতে দাবানলে বহু বাড়িঘর ভস্মিভূত হয়েছে। ফ্লোরিডাতেও খবর পাওয়া গেছে প্রায় ২০টি দাবানলের।
Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+