আযাব-গযব


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন-
وانيبوا الى ربكم واسلموا له من قبل ان ياتيكم العذاب ثم لا تنصرون.
অর্থ: তোমাদের কাছে আযাব-গযব আসার এবং সাহায্য ও সহায়হীন হওয়ার পূর্বেই তোমরা তোমাদের মহান পালনকর্তা মহান আল্লাহ পাক উনার প্রতি ধাবিত হও এবং উনার কাছে আত্মসমর্পন করো তথা পূর্ণ আজ্ঞাবহ হও। (পবিত্র সূরা যুমার শরীফ: পবিত্র আয়াত শরীফ ৫৪)
আযাব-গযব আসলো গেলো; কারো কোন ফিকির বা চিন্তা নাই। অথচ মহান আল্লাহ পাক কতইনা স্পষ্ট করে জানিয়ে দিয়েছেন আযাব-গযব আসবে। উক্ত আয়াত শরীফ পড়ে মুসলমানদের সতর্ক হওয়া উচিত।
কখন আযাব-গযব আসে ?
১) যখন মহান আল্লাহ পাক উনার আদেশ-নিষেধ অমান্য করতে শুরু করে। নাউজুবিল্লাহ।
২) যখন নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার ছানা-ছিফত, তাযিম-তাক্বরীম থেকে গাফিল হয়। নাউজুবিল্লাহ ।
৩) যখন হারামকে হারাম মনে করে না । হালাল মনে করে। নাউজুবিল্লাহ।
৪) যখন বেহায়া-বেপর্দায় সয়লাব হয়ে যায়। নাউজুবিল্লাহ।
৫) যখন আহলে সুন্নত ওয়াল জামায়াতের বিশুদ্ধ আক্বিদায় বিশ্বাস না করে ভুল আক্বিদায় বিশ্বাস স্থাপন করে। নাউজুবিল্লাহ।
আযাব-গযব কি ভাবে আসতে পারে ?
অনেক ভাবে আযাব-গযব আসতে পারে –
১) সংসারে ফেতনা-ফ্যসাদের মাধ্যমে
২) বালা-মুসিবতের মাধ্যমে
৩) সচ্ছলতা এবং অসচ্ছলতা উভয়ের মাধ্যমে ।
অতএব, মহান আল্লাহ পাক জানিয়ে দিলেন, আল্লাহ পাক উনার দিকে রুজু হতে। তাহলেই আযাব-গযব থেকে বাঁচা যাবে। নচেৎ নয়।
মহান আল্লাহ পাক আমাদের সর্বদিক থেকে হেফাজত করুন। আমীন!

Views All Time
1
Views Today
2
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে