আল্লাহর তরবারী কখনই পরাজিত হতে পারে না!


ইন্তেকালের কিছুদিন পূর্বে, হযরত খালিদ বিন ওয়ালিদ রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আানহু উনার সাথে এক পুরনো বন্ধু দেখা করতে আসেন। বন্ধুটি উনার শয্যার পাশে বসেন।
হযরত খালিদ রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আানহু জিজ্ঞেস করলেন-
“আপনি কি আমার পায়ে এমন এক বিঘত পরিমাণ কোন খালি জায়গা দেখতে পাচ্ছেন, যেখানে কোন তরবারি, তীর বা বর্শার আঘাত নেই?”
বন্ধুটি উনার পা টি পরীক্ষা করে বললেন- “না।”
 
হযরত খালিদ বিন ওয়ালিদ রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু প্রথমে উনার ডান হাত ও পরে বাম হাত উঠিয়ে দেখিয়ে বন্ধুকে অনুরূপ পরীক্ষা করতে বললেন।
বন্ধুটি একই কথা বললেন।
এরপর হযরত খালিদ বিন ওয়ালিদ রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু উনার প্রশস্ত বক্ষ উন্মুক্ত করে উনার বন্ধুকে একইভাবে জিজ্ঞেস করলেন। বন্ধুটি আবারো সেই একই দৃশ্য দেখলেন যা প্রথমবার পায়ের ক্ষেত্রে দেখেছিলেন।
হযরত খালিদ বিন ওয়ালিদ রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু বললেন,
“আপনি কি দেখেননি? আমি শহীদের আকাঙ্ক্ষা নিয়ে শত শত যুদ্ধ করেছি, কেন আমি যুদ্ধে শহীদ হলাম না?”
বন্ধু বললেনঃ “আপনার এটা বুঝতে হবে, হে খালিদ! আল্লাহর রসূল ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনি আপনার নাম রেখেছেন ‘সাইফুল্লাহ’ অর্থ্যাৎ ‘আল্লাহর তরবারি’, তিনি এটা আগেই নির্ধারণ করে গেছেন যে আপনার কোন যুদ্ধে পরাজিত হবে না। কারণ, আপনি যদি পরাজিত হতেন তাহলে এটা বুঝাতো যে আল্লাহর তরবারি কাফিরদের আঘাতে ভেঙ্গে গেছে, আর যা কখনো ঘটবে না।”
 
 
হযরত খালিদ বিন ওয়ালিদ রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আানহু-
“এখন আমি এখানে উটের মত বিছানায় মারা যাচ্ছি, খুবই লজ্জার বিষয়। কাপুরুষের দু’চোখ যেন ঘুমেও বিশ্রাম না নেয়।”
 
 
বর্ণিত হয়েছে,যখন হযরত খালিদ বিন ওয়ালিদ রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু ইন্তেকাল করেন, তখন বনু মাখযুমের নারীরা বিলাপ করা শুরু করেন। হযরত আবু বকর রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু উনি ইন্তেকাল করার পর নারীরা হযরত আয়েশা রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহা উনার বাড়িতে বিলাপ করছিলো।হযরত উমর ফারুক রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু তাদেরকে তীব্র ভৎর্সনা করেন । এবং বিলাপ করার বিরুদ্ধে কঠোর নিষেধাজ্ঞা জারি করেন।
 
 
কিন্তু যখন হযরত খালিদ বিন ওয়ালিদ রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু উনার জন্য বিলাপ করা হচ্ছিলো, তখন এক ব্যক্তি হযরত উমর রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু উনার নিকট এসে অভিযোগ করলেন,
“হে হযরত উমর রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু , বনু মাখযুমের নারীরা খালিদের জন্য বিলাপ করছে”
জবাবে তিনি বললেন,
“তোমার মা তোমাকে হারিয়ে ফেলুক। খালিদের মতো ব্যক্তিদের জন্য যারা কান্না করছে তাদের কাঁদতে দাও। ওয়াল্লাহি, পৃথিবীতে আর কোন নারী খালিদের মতো পুরুষের জন্ম দিবে না।”
 
 
চারদিকে মালাউন এবং নাস্তিকদের মিথ্যা বানোয়াটি বীরত্বের জয়জয়কার, নতুন প্রজন্মের কাছে খালিদ বিন ওয়ালিদ রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু উনার নামটি অপরিচিতই বটে, পাঠ্যপুস্তকে যদি মুসলমান বীর যারা গত হয়েছেন… উনাদের প্রকাশ না হয়, একসময় ইতিহাসের পাতায়ই মিলিয়ে যাবে, তাতে কোন সন্দেহ নেই।
Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে