ইতিহাসের পাতা থেকে: মুসলমানদের শিক্ষা-দীক্ষার বিরোধিতায় বিধর্মী-অমুসলিমরা


ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার ঘোর বিরোধিতা করেছিল বিধর্মীরা। তাদের প্রবল বিরোধিতার মোকাবিলা করেই ১৯২১ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। এরপর প্রতিষ্ঠিত হয় রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ১৯৫৩ সালে। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠিত হয় ১৯৬৬ সালে এবং জাহাঙ্গীরনগর ১৯৭০ সালে। দেখা যাচ্ছে, সাতচল্লিশের আগে এই বাংলার ভূখণ্ডে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ব্যতীত আর কোনো বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠিত হয়নি এবং না হওয়ার মূল কারণটাই হচ্ছে বিধর্মীদের বিরোধিতা। কারণ পশ্চিমবঙ্গের ও ভারতের বিধর্মীরা কখনোই চায়নি মুসলমানগণ উচ্চশিক্ষিত হোক।
উইকিপিডিয়ায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ নিয়ে আর্টিকেলটিতে রয়েছে, “১৭৫৭ সালে ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি ভারতবর্ষের ক্ষমতা দখলের প্রায় একশ বছর পর ১৮৫৩ সালে কলকাতা মেডিকেল কলেজ প্রতিষ্ঠিত হয়। কলকাতায় মেডিকেল কলেজ প্রতিষ্ঠারও একশ’ বছরে এ অঞ্চলে কোনো মেডিকেল কলেজ স্থাপিত হয়নি।”
কেন কলকাতা মেডিকেল হওয়ার একশ বছরেও এ অঞ্চলে কোনো মেডিকেল কলেজ প্রতিষ্ঠিত হয়নি? কারণ যবন বিধর্মীরা সবসময়ই চেয়ে থাকে মুসলমানরা ‘একঘরে’ হয়ে থাকুক।
বিধর্মীরা প্রথমেই মুসলমানদের চাকরি, শিক্ষা, বাসস্থান এসব সুবিধাগুলো কেড়ে নেয়, যেন তারা কখনোই যালিম বিধর্মীদের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ করার শক্তি অর্জন করতে না পারে। একদা বাঙালি মুসলমানও বিধর্মীদের দ্বারা একঘরে হয়েছিল, যা তারা ভুলে গিয়েছে পাকিস্তানের বিরোধিতা করতে গিয়ে ভারতকে ভালো বলার মাধ্যমে।

Views All Time
2
Views Today
3
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে