ইবলিস শয়তানের প্রধান তিনটি ধোঁকা থেকে বেঁচে থাকুন


ইবলিস শয়তান মানুষের জন্য প্রধান ও প্রকাশ্য শত্রু। সে চায় সবসময় মানুষকে ধোঁকা দিয়ে গোমরাহ বানাতে। তাই তার ধোঁকা থেকে বেঁচে থাকতে হবে। ইবলিসের প্রধান তিনটি ধোঁকা-

১. মহান আল্লাহ পাক উনার মুবারক যিকির থেকে গাফিল রাখা।

২. হযরত আওলিয়ায়ে কিরাম রহমতুল্লাহি আলাইহিম উনাদের ছোহবত মুবারক থেকে দূরে রাখা।

৩. হযরত আওলিয়ায়ে কিরাম রহমতুল্লাহি আলাইহিম উনাদের প্রতি আক্বীদা নষ্ট করে দেয়া।

জানা থাকা ভালো- একজন মানুষ যাহেরীভাবে অনেক কিছুই করতে পারবে। সুন্নতী পোশাক পড়তে পারবে, লম্বা জামা পরিধান করতে পারবে, পাগড়ি-টুপিসহ যাবতীয় নেক কাজ করতে পারবে। কিন্তু আদৌ তা ইখলাছের সাথে করছে কিনা তা বুঝা যাবে না। হতে পারে সে লোক দেখানোর জন্য ফায়দা হাছিলের উদ্দেশ্যে এসব করতেছে।

তবে সবকিছু করতে পারলেও যিকির করতে পারবে না। যিকির করতে হলে রহমত মুবারক প্রয়োজন আর রহমতের কারনে যিকির করলে তা অবশ্যই ফলপ্রসু হবে। আর যিকির করলে প্রশান্তিময় জীন্দেগী পাওয়া যাবে ও অন্তরে ইখলাছ পয়দা হবে।

আর এ কারনে শয়তানের ধোঁকার মধ্যে সর্বপ্রথম ধোঁকা হলো যিকির থেকে গাফিল রাখা। যাতে করে একজন মানুষ পূর্ণতায় না পৌছতে পারে, ইখলাছ হাছিল না করতে পারে। নাউযুবিল্লাহ!

সাথে সাথে যিকির করতে গেলে প্রয়োজন নেক ছোহবত মুবারক এবং উনাদের প্রতি ছহীহ আক্বীদা পোষণ। যার কারণে এ দুটিতেও শয়তানের বাঁধা চলে আসতে পারে।

মূলকথা হলো, উপরের তিনটি ধোঁকা থেকে যদি বেঁচে থাকা যায় তাহলেই ইখলাছ হাছিলের কোশেশে মশগুল থাকা যাবে, পূর্ণতায় পৌছা যাবে এবং সাথে সাথে যিকিরকারী, ছোহবত এখতিয়ারকারী এবং ছহীহ আক্বীদা পোষণকারী বান্দা-বান্দী উম্মত হিসেবে ক্ববুল হওয়া সহজ ও সম্ভব হবে।

মহান আল্লাহ পাক তিনি সকলকে সেই তাওফীক্ব নছীব করুন। আমীন!

শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে