ইমামুল আউওয়াল মিন আহলি বাইতি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বাবুল ইলিম ওয়াল হিকাম সাইয়্যিদুনা হযরত কাররামাল্লাহু ওয়াজহাহূ আলাইহিস সালাম উনার কতিপয় সম্মানিত লক্বব মুবারক


নাম মুবারক হযরত আলী আলাইহিস সালাম। উপনাম আবূল হাসান ও আবূ তুরাব। পিতার নাম আবূ তালিব। মাতার নাম ফাতিমা বিনতে আসাদ। বিশেষ উপাধি আসাদুল্লাহ, হায়দার, মুরতাজা। তিনি আব্দুল্লাহ নামে প্রসিদ্ধ। তিনি নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার চাচাতো ভাই। হাশিমী আল কুরাইশী বংশোদ্ভূত।
নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সম্মানিত নুবুওওয়াত মুবারক লাভের দশ বছর পূর্বে পবিত্র বিলাদতী শান মুবারক প্রকাশ করেন।
একদা নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি এবং উম্মুল মু’মিনীন আল ঊলা হযরত কুবরা আলাইহাস সালাম উনাদেরকে নামায পড়তে দেখে তিনি জিজ্ঞেস করলেন, আপনারা কি করছেন? উত্তরে নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি বললেন, এটা মহান আল্লাহ পাক উনার সম্মানিত দ্বীন। উম্মুল মু’মিনীন আল ঊলা হযরত কুবরা আলাইহাস সালাম তিনি বললেন, আপনাকেও আমরা সেই দায়িত্ব দিচ্ছি। তখনই তিনি পবিত্র দ্বীন ইসলাম উনার প্রতি উদ্বুদ্ধ হয়ে পবিত্র কালিমা শরীফ পাঠ করেন। পবিত্র দ্বীন ইসলাম উনাকে গ্রহণকালে উনার বয়স মুবারক দশ বছর ছিল। তিনি হলেন সর্বসম্মতিক্রমে বালকদের মধ্যে সর্বপ্রথম পবিত্র দ্বীন ইসলাম উনাকে কবুলকারী। সুবহানাল্লাহ!
একদিকে তিনি নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার চাচাতো ভাই। অপর দিকে নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার আদরের দুলালী আন নূরুর রবিয়াহ হযরত যাহরা আলাইহাস সালাম উনার সম্মানিত আহাল আলাইহিস সালাম। সুবহানাল্লাহ!
সম্মানিত খিলাফত গ্রহণের পূর্বে তিনি হযরত ছিদ্দীক্বে আকবর আলাইহিস সালাম উনার এবং হযরত ফারূক্বে আ’যম আলাইহিস সালাম উনার এবং হযরত যুন নূরাইন আলাইহিস সালাম উনাদের খিলাফত আমলে তিনি পরামর্শদাতা ছিলেন। হযরত যুন নূরাইন আলাইহিস সালাম উনার শাহাদাতের পর হিজরী ৩৫ সনে খিলাফতের মসনদে সমাসীন হন। প্রায় চার বছর সাড়ে আট মাস যাবত এ দায়িত্ব মুবারক যথাযোগ্য মর্যাদা মুবারক উনার সাথে পালন করেন। সুবহানাল্লাহ!
হিজরী ৪০ সনের ১৬ই পবিত্র রমযান শরীফ জুমুয়াবার পবিত্র ফজর উনার নামাযে গমনকালে ইবনে মুলজিম নামক খারিজী ঘাতকের তলোয়ারের আঘাতপ্রাপ্ত হয়ে ১৭ই পবিত্র রমাদ্বান শরীফ ইয়াওমুস সাবত (শনিবার) শাহাদাতী শান মুবারক প্রকাশ করেন।
উনার জ্যেষ্ঠ পুত্র ইমামুছ ছানী মিন আহলি বাইতি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি উনার জানাযার নামায পড়ান। পবিত্র কুফার নাজফে আশরাফে জামে মসজিদ উনার পাশে উনার রওজা শরীফ স্থাপন করা হয়। গ্রহণযোগ্য মতে শাহাদাতী শান মুবারক প্রকাশকালে উনার বয়স মুবারক হয়েছিলো ৬৩ বছর। সুবহানাল্লাহ!
নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি উনাকে উদ্দেশ্য করে বলেন, “হযরত হারূন আলাইহিস্ সালাম তিনি যেমন ছিলেন হযরত মূসা কালিমুল্লাহ আলাইহিস্ সালাম উনার, তেমনি আপনি হচ্ছেন আমার প্রতিনিধি। তবে আমার পরে কোন নবী আলাইহিমুস সালাম নেই।”
নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “আমি পবিত্র ইলম মুবারক উনার নগরী আর হযরত কাররামাল্লাহু ওয়াজহাহূ আলাইহিস সালাম তিনি সেই নগরীর প্রবেশদ্বার।” তিনি ছিলেন, সম্মানিত কুরআনে হাফিয, শ্রেষ্ঠ মুফাস্সির এবং পবিত্র হাদীছ শরীফ বর্ণনাকারী রাবী। সুবহানাল্লাহ!
হযরত ইমাম আহমদ বিন হাম্বল রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি বলেন, হযরত কাররামাল্লাহু ওয়াজহাহূ আলাইহিস সালাম উনার মর্যাদা-ফযীলত মুবারক সম্পর্কে নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার থেকে যত পবিত্র হাদীছ শরীফ বর্ণিত হয়েছে, অন্য কোন হযরত ছাহাবায়ে ক্বিরাম রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুম উনাদের সম্পর্কে তা হয়নি। সুবহানাল্লাহ!
নিম্নে উনার অসংখ্য লক্বব মুবারক হতে সংক্ষিপ্তাকারে কতিপয় লক্বব মুবারক তুলে ধরা হলো-

১। صَاحِبُ التَّقْوٰى (ছাহিবুত্ তাক্বওয়া) তাক্বওয়ার অধিকারী। ২। صَاحِبُ كَلِمَةِ التَّقْوٰى (ছাহিবু কালিমাতিত্ তাক্বওয়া) প্রকৃত তাক্বওয়ার অধিকারী। ৩। صَاحِبُ الْاِيْـمَانِ (ছাহিবুল ঈমানি) পবিত্র ও সম্মানিত ঈমান উনার অধিকারী। ৪। كَارِهُ الْكُفْرِ (কারিহুল কুফ্রি) কুফরী অপছন্দকারী। ৫। كَارِهُ الْفُسُوْقِ (কারিহুল ফুসূক্বি) পাপকে অপছন্দকারী। ৬। كَارِهُ الْعِصْيَانِ (কারিহুল ইছ্ইয়ানি) নাফরমানীকে ঘৃণাকারী। ৭। صَاحِبُ نِعْمَةِ اللهِ (ছাহিবু নি’মাতিল্লাহি) মহান আল্লাহ পাক উনার নিয়ামতপ্রাপ্ত। ৮। صَاحِبُ هِدَايَةٍ (ছাহিবু হিদাইয়াতিন) হিদায়াতের অধিকারী। ৯। اَلسَّابِقُ (আস্ সাবিকু) উম্মতের অগ্রগামী ব্যক্তি। ১০। اَلْاَوَّلُ (আল্ আউয়ালু) পবিত্র ও সম্মানিত ঈমান গ্রহণে প্রথম বা উম্মতের প্রধান। ১১। اَلْاُمَّةُ الْوَ سَطُ (আল্ উম্মাতুল্ ওয়াসাতু) শ্রেষ্ঠতম উম্মত।
১২। اَلشَّا هِدُعَلَى النَّاسِ (আশ্ শাহিদু আলান্ নাসি) পূর্ববর্তী উম্মতের স্বাক্ষী স্বরূপ। ১৩। خَيْرُ اُمَّةٍ (খইরু উম্মাতিন) শ্রেষ্ঠতর উম্মত। ১৪। اَلرَّا شِدُ (র্আরাশিদু) হিদায়াতপ্রাপ্ত। ১৫। اَلصَّادِقُ (আছ্ ছাদিকু) সত্যনিষ্ঠ। ১৬। اَلْاٰمِرُ بِالْمَعْرُوْفِ (আল্ আমিরু বিল্ মা’রূফি) সৎ কাজের আদেশ দানকারী। ১৭। اَلْمُفْلِحُ (আল্ মুফ্লিহু) সফলতা লাভকারী।
১৮। اَلنَّاهِىُ عَنِ الْمُنْكَرِ (আন্ নাহিউ আনিল মুনকারি) অন্যায় কাজে বাধা প্রদানকারী। ১৯। رَضِىَ اللهُ عَنْهُ (রদ্বিয়াল্লাহু আনহু) মহান আল্লাহ পাক উনার প্রতি সন্তুষ্ট। ২০। رَضِىَ عَنْهُ (রদিয়া আনহু) তিনি মহান আল্লাহ পাক উনার প্রতি অনুগত। ২১। اَلنَّاسُ الْمُؤْمِنُ (আন্ নাসুল মু’মিনু) ঈমানদার ব্যক্তি। ২২। صَاحِبُ الْـحُسْنٰـى (ছাহিবুল হুসনা) উত্তম পরিণতির অধিকারী। ২৩। اَلْمُبْعَدُ (আল্ মুব্আদু) জাহান্নাম থেকে দূরে অবস্থানকারী। ২৪।اَلْمُسْلِمُ (আল্ মুসলিমু) মুসলমান। ২৫। اَلْمُؤْمِنُ (আল্ মু’মিনু) ঈমানদার। ২৬। اَلْقَانِتُ (আল্ ক্বানিতু) অনুগত। ২৭। اَلصَّا بِرُ (আছ্ ছাবিরু) ধর্যশীল। ২৮। اَلْـخَا شِعُ (আল্ খাশিঊ) বিনয়ী। ২৯। اَلْمُتَصَدِّقُ (আল্ মুতাছদ্দিকু) দানকারী। ৩০। اَلصَّآئِمُ (আছ্ ছায়িমু) রোযাদার। ৩১। اَلْـحَافِظُ (আল্ হাফিযু) ইজ্জত-আবরু হিফাযতকারী। ৩২। اَلذَّاكِرُ (আয্ যাকিরু) যিকিরকারী। ৩৩। صَاحِبُ مَغْفِرَة (ছাহিবু মাগফিরাতিন) ক্ষমাপ্রাপ্ত। ৩৪। اَهْلُ الذِّكْرِ (আহ্লুয্ যিক্রি) আহলে যিকির বা আল্লাহওয়ালা। ৩৫। صَاحِبُ اَجْرٍ عَظِيْمٍ (ছাহিবু আজরিন আযীমিন) মহান পুরস্কারের অধিকারী। ৩৬। اُولِـى الْاَمْرِ (উলিল আমরি) আদেশ দানকারী।
৩৭। اُولُو الْاَلْبَابِ (উলুল আলবাবি) বিচক্ষণ বা জ্ঞানী। ৩৮। اَلشَّاكِرُ (আশ্ শাকিরু) কৃতজ্ঞতা প্রকাশকারী। ৩৯। وَارِثُ النَّبِـىِّ (ওয়ারিছুন্ নাবিয়্যি) নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার ওয়ারিছ বা উত্তরাধিকারী। ৪০। نَائِبُ رَسُوْلِ اللهِ (নায়িবু রসূলিল্লাহি) নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার স্থলাভিষিক্ত। ৪১। اَلَّذِ يْنَ مَعَه (আল্লাযীনা মায়াহু) নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সঙ্গী। ৪২। اَشِدَّآءُ عَلَى الْكُفَّارِ (আশিদ্দাউ আলাল কুফ্ফারি) কাফিরদের প্রতি কঠোর। ৪৩। رُحَـمَآءُ بَيْنَهُمْ (রুহামাউ বাইনাহুম) নিজেদের মাঝে সহানুভূতিশীল। ৪৪। صَاحِبُ الْفَضْلِ (ছাহিবুল ফাদ্ব্লি) কল্যাণের অধিকারী। ৪৫। صَاحِبُ الرِّضْوَانِ (ছাহির্বু রিদ্ব্ওয়ানি) সন্তুষ্টিপ্রাপ্ত। ৪৬। اَلسَّاجِدُ (আস্ সাজিদু) সিজদাকারী। ৪৭। اَلرَّاكِعُ (র্আ রাকিউ) রুকুকারী। ৪৮। اَبْهَا اُمَّةِ النَّبِـىِّ (আবহা উম্মাতিন্ নাবিয়্যি) নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার উম্মতের মধ্যে অত্যধিক মর্যাদা মুবারক সম্পন্ন ব্যক্তি।
৪৯। اَلْقَآئِمُ (আল্ ক্বায়িমু) ক্বিয়ামকারী। ৫০। طَيِّبُ الْاِسْلَامِ (তইয়্যিবুল ইসলামি) পবিত্র দ্বীন ইসলাম উনার সেরা ব্যক্তি। ৫১। اَوْسَمُ اُمَّةِ النَّبِـىِّ (আওসামু উম্মাতিন্ নাবিয়্যি) নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার উম্মতের প্রতীক। ৫২। اَلَبُّ اُمَّةِ النَّبِـىِّ (আলাব্বু উম্মাতিন্ নাবিয়্যি) নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার উম্মতের শ্রেষ্ঠতম ব্যক্তিত্ব। ৫৩। اَسَمُّ اُمَّةِ النَّبِـىِّ (আসাম্মু উম্মাতিন্ নাবিয়্যি) নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার উম্মতের নিদর্শন। ৫৪। اَقَضُّ الْاُمَّةِ (আক্বাদ্দুল উম্মাতি) উম্মতের শ্রেষ্ঠ শাসক। ৫৫। اَبُوْ تُرَابٍ (আবূ তুরাবিন) মাটির জনক (উপনাম)। ৫৬। شَيْخُ الشُّيُوْخِ (শায়খুশ্ শুয়ূখি) পথ প্রদর্শক বা ক্বওমের প্রধান ব্যক্তি। ৫৭। خَيْرُ اُمَّةِ النَّبِـىِّ (খইরু উম্মাতিন্ নাবিয়্যি) নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার উম্মতের শ্রেষ্ঠতম ব্যক্তি। ৫৮। سَيِّدُ الْعَرَبِ (সাইয়্যিদুল আরাবি) আরববাসীদের সাইয়্যিদ বা নেতৃস্থানীয় ব্যক্তি। ৫৯। مَوْلَا اللهِ (মাওলাল্লাহি) মহান আল্লাহ পাক উনার মাওলা বা বন্ধু। ৬০। بَابُ مَدِ يْنَةِ الْعِلْمِ (বাবু মাদীনাতিল ইলমি) ইলমি শহর উনার দরজা বা প্রবেশপথ। ৬১। اَمِيْنٌ فِـىْ اَهْلِ الْاَرْضِ (আমীনুন্ ফী আহলিল আরদ্বি) যমীনবাসীদের মধ্যে বিশ্বস্ত ব্যক্তি।
৬২। بَابُ الْـحِكْمَةِ (বাবুল হিকমাতি) হিকমত বা জ্ঞানের দরজা।
৬৩। اَمِيْنٌ فِـىْ اَهْلِ السَّمَآءِ (আমীনুন্ ফী আহ্লিস্ সামায়ি) আসমানবাসীদের নিকট বিশ্বস্ত ব্যক্তি। ৬৪। اَلْهَادِىُ (আল্ হাদিউ) সঠিক পথপ্রদর্শক। ৬৫। اَلْمَهْدِىُ (আল্ মাহদিউ) সঠিক পথের অনুসারী। ৬৬। اَلشَّهِيْدُ (আশ্ শাহীদু) শহীদ। ৬৭। خَيْرُ صَحْبٍ (খইরু ছহ্বিন) শ্রেষ্ঠতম ছাহাবী। ৬৮। اَزْيَدُ شَرْفًا (আযইয়াদু শারাফান) অত্যধিক মর্যাদাবান। ৬৯। وَلِىُّ كُلِّ مُؤْمِنٍ (ওয়ালিয়্যু কুল্লি মু’মিনিন) প্রত্যেক মু’মিনের বন্ধু বা অভিভাবক। ৭০। سَيِّدُ الْقَوْمِ (সাইয়্যিদুল ক্বওমি) ক্বওমের সাইয়্যিদ বা নেতৃস্থানীয় ব্যক্তিত্ব। ৭১। مُحِبُّ الْمَشْهُوْدِ (মুহিব্বুল মাশহূদি) কিয়ামত দিবসের প্রেমিক। ৭২। مَحْبُوْبُ الْمَعْبُوْدِ (মাহবূবুল মা’বূদি) মহান আল্লাহ পাক উনার প্রিয়। ৭৩। بَابُ مَدِ يْنَةِ الْعِلْمِ وَالْعُلُوْمِ (বাবু মাদীনাতিল ইলমি ওয়াল উলূমি) জ্ঞান-বিজ্ঞানের শহরের দরজা। ৭৪। رَأْسُ الْمُخَاطِبَاتِ (রা’সুল মুখাত্বিবাতি) বক্তাগণের প্রধান। ৭৫। مُسْتَنًبِطُ الْاِ شَارَاتِ (মুস্তাম্বিতুল ইশারাতি) সূত্র আবিষ্কারক।
৭৬। رَايَةُ الْمُهْتَدِيْنَ (রাইয়াতুল মুহ্তাদীনা) হিদায়েতপ্রাপ্ত ব্যক্তিগণের ঝা-া স্বরূপ। ৭৭। اَقْدَمُ الْعَادِلِيْنَ اِجَا بَةً وَاِيْـمَانًا(আক্বদামুল আদিলীনা ইজাবাতান ওয়া ঈমানান) ঈমানের স্বীকৃতি দানের ক্ষেত্রে ন্যায় পরায়ণগণের অগ্রবর্তী। ৭৮। اَقْوَمُ الْعَادِلِيْنَ قَضِيَّةً وَاِيْقَانًا (আক্বওয়ামুল আদিলীনা ক্বদ্বিয়্যাতান ওয়া ঈক্বানান) সঠিক ফায়ছালা প্রদানে দৃঢ় ন্যায় বিচারক। ৭৯। اَعْظَمُ الْعَادِلِيْنَ حِلْمًا (আ’যামুল আদিলীনা হিলমান) ধৈর্যশীল শ্রেষ্ঠ সুবিচারক। ৮০। اَوْفَرُ الْعَادِلِيْنَ عِلْمًا (আওফারুল আদিলীনা ইলমান) ন্যায় বিচারকগণের মধ্যে পরিপূর্ণ পবিত্র ইলম মুবারক উনার অধিকারী। ৮১। قُدْوَةُ الْمُتَّقِيْنَ (কুদওয়াতুল মুত্তাক্বীনা) পরহেযগারগণের আদর্শের প্রতীক। ৮২। زِيْنَةُ الْعَارِفِيْنَ (যীনাতুল আরিফীনা) মহান আল্লাহ পাক উনার পরিচয় লাভকারী বান্দাগণের শোভা। ৮৩। اَلْمُنَبِّئُ عَنْ حَقَائِقِ التَّوْ حِيْدِ (আল্ মুনাব্বিউ আন হাক্বায়িক্বিত্ তাওহীদি) তাওহীদ বা একত্ববাদের প্রকৃত খবর দানকারী। ৮৪। اَلْمُشِيْرُ اِلٰـى لَوَامِعِ عِلْمِ التَّفْرِيْدِ (আল্ মুশীরু ইলা লাওয়ামিয়ি ইলমিত্ তাফরীদি) পবিত্র ইলম মুবারক উনার বিভিন্ন শাখা-প্রশাখার দিক নির্দেশ প্রদানকারী। ৮৫। نُوْرُ الْمُطِيْعِيْنَ (নূরুল মুত্বীয়ীনা) নেক কর্মশীলগণের পথ প্রদর্শক।
৮৬। وَلِـىُّ الْمُتَّقِيْنَ (ওয়ালিয়্যুল মুত্তাক্বীনা) খাদাভীরুগণের বন্ধু।
৮৭। اِمَامُ الْعَادِلِيْنَ (ইমামুল আদিলীনা) ন্যায় বিচারকগণের ইমাম।
৮৮। وَاضِعُ الْقَا سِطِيْنَ (ওয়াদ্বিউল ক্বাসিত্বীনা) ন্যায় বা ইনসাফকারীগণের প্রতিষ্ঠাতা।
৮৯। صَاحِبُ الْقَلْبِ الْعُقُولِ (ছাহিবুল ক্বলবিল উকূলি) প্রজ্ঞা সম্পন্নœ আত্মার অধিকারী। ৯০। صَاحِبُ الْاُذُنِ الْوَاعِىِّ (ছাহিবুল উযুনিল ওয়ায়িয়্যি) মনোযোগী শ্রবণকারী। ৯১। صَاحِبُ الْعَهْدِ الْوَافِـىِّ (ছাহিবুল আহ্দিল ওয়াফিয়্যি) ওয়াদা পূরণকারী। ৯২। فُقَآءُ عُيُوْنِ الْفَتَنِ (ফুক্বাউ উয়ূনিল ফিতানি) ফিৎনা-ফাসাদ, ষড়যন্ত্র নিশ্চিহ্নকারী। ৯৩।وَاقِىٌ مِّنْ فُنُوْنِ الْمِحَنِ (ওয়াক্বিউন মিন ফুনূনিল মিহানি) বিভিন্ন পরীক্ষা বা কষ্ট থেকে পরিত্রাণ লাভকারী। ৯৪। دَافِعُ النَّاكِثِيْنَ (দাফিউন নাকিছীনা) সীমালঙ্ঘনকারীদের প্রতিহতকারী।
৯৫। صَاحِبُ اللِّسَانِ السُّؤُوْلِ (ছাহিবুল লিসানিস সুয়ূলি) প্রার্থনাকারী যবানের অধিকারী।
৯৬। دَامِغُ الْمَارِقِيْنَ (দামিগুল মারিক্বীনা) বাদ্যযন্ত্র পরিচালকদের দমনকারী। ৯৭। سَيِّدُ الْمُسْلِمِيْنَ (সাইয়্যিদুল মুসলীমিনা) মুসলমানগণের প্রধান। ৯৮। اَلْمَمْسُوْسُ فِـىْ ذَاتِ اللهِ (আস্ মাম্সূসু ফী যাতিল্লাহি) মহান আল্লাহ পাক উনার অস্তিত্বে বিলীন। ৯৯। حَامِلُ رَايَةِ النَّبِـىِّ (হামিলু রাইয়াতিন নাবিয়্যি) নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার পতাকাবাহী। ১০০। اَهْلُ بَيْتِ النَّبِـىِّ (আহ্লু বাইতিন নাবিয়্যি) নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার হযরত আহলে বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের তথা পরিবারের সদস্য। ১০১। اَسَدُ اللهِ (আসাদুল্লাহি) মহান আল্লাহ পাক উনার সিংহ। ১০২। اَمِيْرُالْمُؤْمِنِيْنَ (আমীরুল মু’মিনীনা) মু’মিনগণের আমীর বা শাসনকর্তা। ১০৩। خَلِيْفَةُ الْمُسْلِمِيْنَ (খলীফাতুল মুসলিমীনা) মুসলমান উনাদের খলীফা বা প্রতিনিধি। ১০৪। زَوْجُ فَاطِمَةَ عليها السلام (যাওজু ফাতিমাতা আলাইহাস সালাম) সাইয়্যিদাতুন্ নিসা আন্নূরুর রাবিআহ হযরত যাহরা আলাইহাস সালাম উনার সম্মানিত আহাল আলাইহিস সালাম। ১০৫। ال رسول الله (আলু রসূলিল্লাহি) নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার পরিবারভুক্ত। ১০৬। اِبْنُ عَمِّ النَّبِـىِّ (ইবনু আম্মিন্ নাবিয়্যি) নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার চাচার ছেলে বা চাচাতো ভাই। সুবহানাল্লাহ! (কিতাবুল আলক্বাব ৩য় খণ্ড, ৬৮-৭৭ পৃষ্ঠা)
মূলত ইমামুল আউওয়াল মিন আহলি বাইতি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম সাইয়্যিদুনা হযরত কাররামাল্লাহু ওয়াজহাহূ আলাইহিস সালাম তিনি উল্লিখিত লক্বব মুবারক ছাড়াও আরো বহু লক্বব মুবারক উনার অধিকারী।
প্রত্যেক মুসলমান পুরুষ মহিলা সকলের জন্য ফরয হচ্ছে ইমামুল আউওয়াল মিন আহলি বাইতি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার উল্লেখিত গুণে গুণান্বিত হওয়া অর্থাৎ উনাকে স্ক্ষূাতিসূক্ষ্ম ও পুঙ্খানুপুঙ্খ অনুসরণ অনুকরণ করা।

Views All Time
3
Views Today
3
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে