ইমামে আ’যম হযরত ইমাম আবু হানীফা রহমতুল্লাহি আলাইহি উনার একটি ওয়াক্বেয়া মুবারক


একদিন অনেকগুলো খারিজী ফিরক্বার লোক দলবদ্ধভাবে হযরত ইমাম আবু হানীফা রহমতুল্লাহি আলাইহি উনার ঘরে এসে জবরদস্তি করে বললো, হে আবু হানীফা রহমতুল্লাহি আলাইহি! আপনি কুফরী থেকে তওবা করুন। (যেহেতু খারিজীরা আহলে সুন্নত ওয়াল জামায়াত উনাদেরকে কাফির ভাবে)। নাউযুবিল্লাহ!
হযরত ইমাম আবু হানীফা রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি বললেন, হ্যাঁ, আমি তোমাদের কুফরী থেকে তওবা করতেছি। খারিজীদের আক্বীদা হচ্ছে, মানুষ কবীরা গুনাহ করলে কাফির হয়ে যায় অর্থাৎ তারা মনে করে গুনাহ এবং কুফরী একই জিনিস। আর হযরত ইমামে আ’যম আবু হানীফা রহমতুল্লাহি আলাইহি উনার বক্তব্যের উদ্দেশ্য ছিলো, যে কাজকে তোমরা কুফরী মনে করো সে কাজ থেকে আমি তওবা করছি।
তারা সেখান থেকে চলে আসার পর আরেক খারিজী তাদেরকে উস্কানি দিয়ে বললো, হযরত ইমাম আবু হানীফা রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি তো তোমাদের বোকা বানিয়েছেন। তখন খারিজীরা আবার এসে বললো, আপনি আমাদের সাথে চালাকি করলেন কেন?
হযরত ইমাম আবু হানীফা রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি বললেন, আমি তোমাদের বোকা বানিয়েছি এটা কি তোমাদের ধারণা, নাকি বিশ্বাস?
তারা জবাব দিলো, ধারণা।
হযরত ইমাম আবু হানীফা রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি বললেন, তবে তোমাদেরই তওবা করা উচিত। কেননা মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেছেন,-
ان بعض الظن اثم
অর্থ: “নিশ্চয়ই অধিকাংশ ধারণাই গুনাহ।”
যেহেতু তোমরা ধারণা করে কথা বলেছো, তাই তোমাদের আক্বীদা অনুযায়ী গুনাহ করে তোমরা কাফির হয়ে গেছো। সুতরাং তোমরাই তওবা করো।
খারিজীরা লা-জবাব হয়ে সেখান থেকে ফিরে আসলো। সুবহানাল্লাহ্!!!

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে