ইসলামই একমাত্র আধুনিকতায়, সভ্যতায় ও জ্ঞান-বিজ্ঞানের প্রাচুর্যতায় পূর্ণ দ্বীন!


পবিত্র ইসলাম সর্বকালের জন্য, সর্বযুগের জন্য এমনকি ক্বিয়ামত পর্যন্ত আধুনিক। কেউ যদি পরিপূর্ণ ইসলাম উনার সৌন্দর্য অবলোকন করে তাহলে মুসলমানতো অবশ্যই, বরং অনেক কাফির মুশরিকও মুগ্ধ হবে এবং ইসলাম গ্রহণ করবে। এ যাবৎ যত অমুসলিম ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছে তারা পবিত্র ইসলাম উনার সৌন্দর্য, মহাত্ম্য, আধুনিকতা, সভ্যতা, ভদ্রতা দেখেই মুগ্ধ হয়ে পবিত্র দ্বীন ইসলাম গ্রহণ করেছে। সুবহানাল্লাহ!
ইতিহাস খুঁজলে পাওয়া যাবে, মুসলমানগণ যখন আরবে, স্পেনে (এক সময়কার মুসলমানদের জ্ঞান-বিজ্ঞান চর্চাকেন্দ্র), বাগদাদে জ্ঞান-বিজ্ঞান নিয়ে, বিভিন্ন কিছু আবিষ্কার নিয়ে ব্যস্ত, তখন ইউরোপীয়ানরা ছিল ক্যানিবল অর্থাৎ মানুষ খেকো। মুসলমানগণ উনারা ছিলেন জ্ঞান-বিজ্ঞানের শীর্ষে। অথচ আজকে জ্ঞান-বিজ্ঞান বিষয়ে অনেক মুসলমান হীনমন্যতায় ভুগে। তারা মনে করে বিজ্ঞানে মুসলমানদের কোনো অবদান নেই। ইসলাম হচ্ছে শুধু নামায, রোযা, হ্জ্জ, যাকাতের ধর্ম। ইসলাম ও মুসলমানদের ইতিহাস সম্পর্কে কম জ্ঞানের কারণেই এসব ধারণা তারা পোষণ করে। প্রকৃতপক্ষে, আধুনিক জ্ঞান-বিজ্ঞানের পুরোটাই মুসলমানদের অবদান। গণিত বিদ্যা, চিকিৎসা বিজ্ঞান, পদার্থ, রসায়ন, যন্ত্র বিজ্ঞান, এমনকি মহাকাশ বিজ্ঞানও আজ যে পর্যন্ত অগ্রসর হয়েছে, তা কেবল মুসলমান বিজ্ঞানীদের আবিষ্কৃত তত্ত্বের উপর ভিত্তি করেই এতদূর এসেছে।

আর মুসলমানরা তাদের অতীত ইতিহাস ঐতিহ্য থেকে দুরে থাকার কারনে, সব কাফির মুশরিকদের নামে বুলি আওড়ায় যে কাফিররা ই মনে হয় সব কিছু করেছে।নাঅউযুল্লাহ!

মুলত মুসলমানদের উচিৎ বেশী বেশী তাদের সেই স্বর্নালী যুুগের সঠিক ইতিহাস সর্ম্পকে ইলিম অর্জন করা, তাহলেই তারা তাদের সেই গৌরাবান্বিত অতীত সর্ম্পকে অবগত হয়ে নিজের দ্বীন ধর্ম নিয়ে ঈমান আমলের উপর ইস্তেকমাত থাকতে পারবে। ইনশাআল্লাহ!

Views All Time
2
Views Today
3
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে