সাময়িক অসুবিধার জন্য আমরা আন্তরিকভাবে দু:খিত। ব্লগের উন্নয়নের কাজ চলছে। অতিশীঘ্রই আমরা নতুনভাবে ব্লগকে উপস্থাপন করবো। ইনশাআল্লাহ।

ইহুদী বশংবদ সউদী ওহাবী সরকারের ধূর্ততায় কোটি কোটি হাজী ছাহেবের পবিত্র হজ্জ নষ্ট হয়েছে এবং হচ্ছে


খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি পবিত্র কুরআন শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন, “মুসলমানগণের সবচেয়ে বড় শত্রু হচ্ছে ইহুদী অতঃপর মুশরিক।”
তিনি আরো ইরশাদ মুবারক করেন, আহলে কিতাব তথা সমস্ত কাফির-মুশরিকরা চায়, ঈমান আনার পর কী করে মুসলমানদের কাফির বানানো যায়।”
মূলত বিধর্মী, বিজাতি, কাফির-মুশরিকদের মূল কাজ হচ্ছে ইসলাম ও মুসলমানদের বিরোধিতা করা। মুসলমানগণ কোনো মতেই যাতে খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার ও উনার হাবীব, সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, খাতামুন নাবিইয়ীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাদের সন্তুষ্টি হাছিল করতে না পারে সে ব্যবস্থা করা। আর সে কাজটিই নীরবে নিভৃতে ইহুদীর বংশধর সউদী ওহাবী সরকারের মাধ্যমে ১৯৪৮ সাল থেকে অতি সঙ্গোপনে করে যাচ্ছে চরম মুসলিমবিদ্বেষী পরগাছা ইসরাইলের ইহুদীরা। ইহুদীরা ১৯৪৮ সাল থেকে মুসলমানদের একটি অন্যতম ফরয ইবাদত পবিত্র হজ্জকে প্রতি বছরই নষ্ট করে যাচ্ছে। প্রতিবছরই তারিখ হেরফের করে, চাঁদ না দেখে আন্দাজে মাস ঘোষণা করে পবিত্র হজ্জ বাতিল করে দিচ্ছে। ৯ই যিলহজ্জ আরাফার ময়দানে অবস্থান করা ফরয। কিন্তু দেখা যাচ্ছে, ওহাবী সরকার তারিখ হেরফের করে কখনো ৭ই যিলহজ্জ কখনো ৮ই যিলহজ্জ কখনো ১০ই যিলহজ্জ হাজী সাহেবকে আরাফার ময়দানে অবস্থান করতে বাধ্য করছে। এতে করে নির্দিষ্ট তারিখের সাথে সম্পৃক্ত পবিত্র হজ্জ উনার প্রতিটি আমলই বাতিল হয়ে যাচ্ছে। এ বিষয়ে বিশ্বের ৩শ কোটির বেশি মুসলমানের জোরদার প্রতিবাদসহ ওহাবী সরকারের বিরুদ্ধে ইসলামী আদালতে মামলা করে কঠিন বিচারের ব্যবস্থা করা উচিত। যাতে ভবিষ্যতে এ ধরনের কুফরী কাজ করার সুযোগ না পায়।

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে