ঈদে মীলাদুন্নবী ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম পালন সম্পর্কে- ১৫


ঈদে মীলাদুন্নবী ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বিরোধীতাকারীরা প্রায়ই বলে থাকে,  হযরত সাহাবায়ে কিরাম রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুম উনারা নবীজী ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার বিলাদত শরীফ(জন্মদিন) পালন করেন নি … অথচ হাদীস শরীফে উল্লেখ আছে প্রধান চার সাহাবীসহ সকল সাহাবায়ে কিরাম উনারা মীলাদুন্নবী ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম পালন করেছেন।
এ প্রসঙ্গে ,
*হযরত আবু বকর ছিদ্দীক রিদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু তিনি বলেন,
“যে ব্যক্তি হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মীলাদ শরীফ পাঠ অর্থ্যাৎ মীলাদুন্নবী ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উপলক্ষে খুশি প্রকাশ করে এক দিরহাম ব্যয় করবে সে ব্যক্তি জান্নাতে আমার বন্ধু হয়ে থাকবে”।
(সুবহানআল্লাহ্)
*হযরত উমর ফারুক রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু তিনি বলেন,
“যে ব্যক্তি মীলাদুন্নবী ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম মাহফিল উনাকে অর্থ্যাৎ বিলাদত শরীফ দিবস উনাকে বিশেষ মর্যাদা দিলো সে মূলত পবিত্র দ্বীন ইসলাম উনাকেই পুনরুজ্জীবিত করলো”।
(সুবহানআল্লাহ্)
*হযরত উছমান যূন নূরাইন রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু তিনি বলেন,
“যে ব্যক্তি মীলাদুন্নবী ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উপলক্ষে খুশি প্রকাশ করে এক দিরহাম খরচ করলো সে যেন বদর ও হুনাইন যুদ্ধে শরীক থাকলো”।
(সুবহানআল্লাহ)
হযরত আলী কাররামাল্লাহু ওয়াজহাহু রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু তিনি বলেন,
“যে ব্যক্তি মীলাদুন্নবী ছল্লাল্লাহু আলাইহি  ওয়া সাল্লাম উনার প্রতি বিশেষ মর্যাদা প্রদান করলো সে ব্যক্তি অবশ্যই ঈমান নিয়ে দুনিয়া থেকে বিদায় নিবে এবং বিনা হিসেবে জান্নাতে প্রবেশ করবে”।
(সুবহানআল্লাহ্)
(অান নি’য়ামাতুল কুবরা আলাল আলাম)
এছাড়া কিছু মানুষের জন্য আল্লাহপাক কুরআন শরীফ উনাতে বলে দিয়েছেন,
“তুমি বধিরকে কি শুনাবে যদি তাদের বিবেক বুদ্ধি না থাকে”।
তুমি অন্ধকে কি পথ দেখাবে যদি তারা মোটেও দেখতে না পারে”।
(সূরা ইউনূস শরীফঃ ৪২-৪৩)
অর্থ্যাৎ কিছু মানুষ যাদের নসীবে হেদায়েত নেই, তাদেরকে হাজারো দলিল আদিল্লাহ্ দিয়ে বুঝালেও তারা বুঝবে না।
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে