উত্তম আচরণ সম্পর্কে…


এক বৃদ্ধা আপনমনে গজগজ করতে করতে তার বাক্স পেটরা গোছাচ্ছে। মুসলমানগণ হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মুবারক নেতৃত্বে পবিত্র মক্কা শরীফ বিজয় করেছেন। যদিও কাফিরদের প্রতি সাধারণ ক্ষমা ঘোষণা করা হয়েছে, তবুও অনেক কাফিরই পবিত্র মক্কা শরীফ ছেড়ে পালিয়ে যাচ্ছে। বৃদ্ধাও চলে যেতে মনঃস্থির করেছে। কিন্তু এই বয়সে একাকী দেশান্তরী হওয়া কী সোজা কথা! বৃদ্ধা তাই রাগে দুঃখে, হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার শান মুবারকে কাফিরদের যেসব এলোমেলো কথা বলতে শুনেছিল, তাই আউড়াচ্ছিল।

সেই পথ ধরে আসছিলেন স্বয়ং হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম। তিনি বৃদ্ধাকে একাকী কথা বলতে দেখে তার নিকট গেলেন, তার খোঁজখবর নিলেন। বৃদ্ধা উনাকে চিনত না। সে তার অবস্থা উনাকে খুলে বলল। হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার জন্যই যে তাদের দেশত্যাগ করতে হচ্ছে তাও জানাল। তিনি সব শুনে বৃদ্ধাকে সাহায্য করতে চাইলেন। বৃদ্ধা রাজি হলে তার মালপত্রগুলি তিনি বয়ে নিয়ে চললেন। বৃদ্ধা কিন্তু সারারাস্তা হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার শান মুবারকের খিলাফ কথা বলতে বলতেই গেল। তারপর শহরের কিনারে আসার পর সে হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার এই ইহসান মুবারকের শুকরিয়া আদায় করে উনার পরিচয় জানতে চাইল। তখন হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি বললেন, তুমি যার ভয়ে পালিয়ে যাচ্ছ, আমিই সেই ব্যক্তি! সুবহানাল্লাহ! বৃদ্ধা এবার তার ভুল বুঝতে পারল; সে বুঝল, কাফিররা উনার শান মুবারকে যা প্রচার করেছিল, তা নিতান্তই মিথ্যা, বানোয়াট।

হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম কুল কায়িনাতের জন্য আদর্শ মুবারক। তিনি আমাদের উত্তম আচরণ শিক্ষা দিয়েছেন। ভদ্র মানুষের সাথে ভদ্র ব্যবহার করাটাই স্বাভাবিকতা; কিন্তু তা উত্তম ব্যবহার নয়। উত্তম আচরণ হল, বিরূপ ব্যবহার পেয়েও বিনিময়ে উত্তম ব্যবহার করা। সুবহানাল্লাহ!

হযরত উকবা ইবনে আমির রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু তিনি বলেন, নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি আমার হাত ধরে বললেন, “সংসারী লোক ও আখিরাতের পথিক উভয়ের জন্য যে ভাব উত্তম; তা আপনাকে জানিয়ে দিচ্ছি। আপনার সাথে কেউ সম্পর্ক ছিন্ন করতে চাইলে আপনি তার সাথে মিলিত হবেন। আপনাকে কেউ বঞ্চিত করলে, আপনি তাকে দান করবেন। আপনার প্রতি কেউ অত্যাচার করলে, তাকে আপনি ক্ষমা করবেন।”

নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি আরো ইরশাদ মুবারক করেন, “ক্বিয়ামতের দিন সমস্ত লোক উত্থিত হলে এক ঘোষণাকারী ঘোষণা করবেন, যাদের পুরস্কার মহান আল্লাহ পাক উনার নিকট রয়েছে তারা উঠুন। কয়েক সহস্র লোক উঠবেন এবং উনারা বিনা হিসাবে জান্নাতে চলে যাবেন। কারণ উনারা দুনিয়াতে মহান আল্লাহ পাক উনার বান্দাদের অপরাধ ক্ষমা করে দিতেন।”

হযরত মূসা কালীমুল্লাহ আলাইহিস সালাম তিনি খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার কাছে নিবেদন করলেন, “হে মহান আল্লাহ পাক! আপনার বান্দাগণের মধ্যে কোন ব্যক্তি আপনার নিকট অধিক প্রিয়?” মহান আল্লাহ পাক তিনি বললেন, “শাস্তি দানে ক্ষমতা থাকা সত্ত্বেও যে ব্যক্তি অপরাধীকে ক্ষমা করে দেয়।”

আমরা সবাই যেন হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মুবারক রঙে রঞ্জিত হতে পারি, উত্তম আখলাকের অধিকারী হতে পারি; মহান রব্বুল আলামীন তিনি যেন আমাদের সেই তৌফিক দান করেন।

Views All Time
2
Views Today
9
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

  1. সুবহানাল্লাহ। সুবহানাল্লাহ। এত মুবারক উত্তম আচরণ, সুবহানাল্লাহ। Rose

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে