উম্মুল মু’মিনীন আছ ছালিছাহ সাইয়্যিদাতুনা হযরত ছিদ্দীক্বা আলাইহাস সালাম উনার শান-মান, ফাযায়িল-ফযীলত, বুযূর্গী-সম্মান মুবারক এবং সম্মানিত পবিত্রতা মুবারক


বনী মুছত্বলিক্বের জিহাদ থেকে প্রত্যাবর্তনের সময় আফদ্বলুন নিসা বা’দা রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম, উম্মুল মু’মিনীন আছ ছালিছাহ সাইয়্যিদাতুনা হযরত ছিদ্দীক্বা আলাইহাস সালাম উনার সম্মানিত শান মুবারক উনার খিলাফ মিথ্যা অপবাদ রটনা করে মুনাফিক্ব সর্দার উবাই ইবনে সুলূল লা’নাতুল্লাহি আলাইহি এবং তার সাঙ্গপাঙ্গরা। না‘ঊযুবিল্লাহ! যা ইফকের ঘটনা হিসেবে সকলের মাঝে মশহূর। তখন স্বয়ং খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি নিজে উম্মুল মু’মিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত ছিদ্দীক্বা আলাইহাস সালাম উনার সম্মানিত পবিত্রতা বর্ণনা করে ‘সম্মানিত সূরা নূর শরীফ’ উনার ১১ থেকে ২০ মোট এই ১০খানা সম্মানিত আয়াত শরীফ নাযিল করেন। সুবহানাল্লাহ!
মূলত, নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সম্মানিত পবিত্রতা মুবারক উনার যেই হুকুম মুবারক উম্মুল মু’মিনীন আছ ছালিছাহ সাইয়্যিদাতুনা হযরত ছিদ্দীক্বা আলাইহাস সালাম উনার সম্মানিত পবিত্রতা মুবারক উনারও ঠিক অনুরূপ হুকুম মুবারক। সুবহানাল্লাহ! সেই জন্য আমারা দেখতে পাই, মহান আল্লাহ পাক উনার জলীলুল ক্বদর নবী ও রসূল সাইয়্যিদুনা হযরত ইঊসুফ আলাইহিস সালাম উনার শানে যখন অপবাদ দেয়া হয়েছিলো, তখন উনার সম্মানিত পবিত্রতা মুবারক বর্ণনা করেছেন একজন বাচ্চা শিশু (ছেলে)। আর উম্মু রূহিল্লাহ সাইয়্যিদাতুনা হযরত মারইয়াম আলাইহাস সালাম উনার শানে যখন অপবাদ দেয়া হয়েছিলো, তখন উনার সম্মানিত পবিত্রতা মুবারক বর্ণনা করেছেন উনার সম্মানিত আওলাদ জলীলুল ক্বদর নবী এবং রসূল সাইয়্যিদুনা হযরত ঈসা রূহুল্লাহ আলাইহিস সালাম তিনি। সুবহানাল্লাহ! কিন্তু উম্মুল মু’মিনীন আছ ছালিছাহ সাইয়্যিদাতুনা হযরত ছিদ্দীক্বা আলাইহাস সালাম উনার সম্মানিত শান মুবারক উনার খিলাফ যখন অপবাদ দেয়া হয়েছিলো, তখন উনার সম্মানিত পবিত্রতা মুবারক স্বয়ং মহান আল্লাহ পাক তিনি নিজেই বর্ণনা করেছেন। সুবহানাল্লাহ! তাহলে এখান থেকে স্পষ্ট হয়ে যায় যে, উম্মুল মু’মিনীন আছ ছালিছাহ সাইয়্যিদাতুনা হযরত ছিদ্দীক্বা আলাইহাস সালাম উনার শান-মান, ফাযায়িল-ফযীলত, বুযূর্গী-সম্মান মুবারক এবং পবিত্রতা মুবারক কতো বেমেছাল। সুবহানাল্লাহ! তা কস্মিনকালেও ভাষায় প্রকাশ করা সম্ভব না। সুবহানাল্লাহ! তবে এক কথায় তিনি শুধু মহান আল্লাহ পাক তিনি নন এবং উনার হাবীব, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি নন; এছাড়া সমস্ত শান-মান, ফাযায়িল-ফযীলত, বুযূর্গী-সম্মান মুবারক উনাদের অধিকারিণী হচ্ছেন তিনি। সুবহানাল্লাহ!
স্বাভাবিকভাবে কেউ যদি কোনো মু’মিনা, ঈমানদার মহিলা উনাদের ব্যাপারে অপবাদ দেয়, তাহলে তাকে ৮০ দোররা মারতে হয়। এটা সম্মানিত শরীয়ত মুবারক উনার বিধান। এই সম্পর্কে মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন,
وَالَّذِينَ يَرْمُونَ الْمُحْصَنَاتِ ثُمَّ لَمْ يَأْتُوا بِأَرْبَعَةِ شُهَدَاءَ فَاجْلِدُوهُمْ ثَمَانِينَ جَلْدَةً وَلَا تَقْبَلُوا لَهُمْ شَهَادَةً أَبَدًا وَأُولَئِكَ هُمُ الْفَاسِقُونَ.
অর্থ: “যারা কোনো মু’মিনাহ, ঈমানদার মহিলা উনাদেরকে অপবাদ দেয়, অতঃপর স্বপক্ষে ৪ জন সাক্ষী উপস্থিত করে না, তাদেরকে আশিটি দোররা মারবে, বেত্রাঘাত করবে এবং তাদের সাক্ষী কখনো গ্রহণ করবে না। এরাই নাফরমান।” (সম্মানিত সূরা নূর শরীফ: সম্মানিত আয়াত শরীফ : ৪)
কিন্তু উম্মুল মু’মিনীন আছ ছালিছাহ সাইয়্যিদাতুনা হযরত ছিদ্দীক্বা আলাইহাস সালাম উনার শান মুবারক-এ অপবাদ দেয়ার কারণে উবাই ইবনে সুলূল লা’নাতুল্লাহি আলাইহিকে দ্বিগুণ শাস্তি দেয়া হয়েছিলো অর্থাৎ তাকে ১৬০ দোররা মারা হয়েছিলো। সুবহানাল্লাহ! তাহলে এখান থেকেই স্পষ্ট হয়ে যায় যে, উম্মুল মু’মিনীন আছ ছালিছাহ সাইয়্যিদাতুনা হযরত ছিদ্দীক্বা আলাইহাস সালাম উনার শান-মান, ফাযায়িল-ফযীলত, বুযূর্গী-সম্মান এবং পবিত্রতা মুবারক কতো বেমেছাল, যেটা সকলের চিন্তা-কল্পনার উর্ধ্বে। সুবহানাল্লাহ!
আহলু বাইতি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম, মুজাদ্দিদে আ’যম মামদূহ মুর্শিদ ক্বিবলা সাইয়্যিদুনা ইমাম খলীফাতুল্লাহ হযরত আস সাফফাহ আলাইহিছ ছলাতু ওয়াস সালাম তিনি আফদ্বলুন নিসা বা’দা রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম, উম্মুল মু’মিনীন আছ ছালিছাহ সাইয়্যিদাতুনা হযরত ছিদ্দীক্বা আলাইহাস সালাম উনার সম্মানার্থে আমাদের সবাইকে হাক্বীক্বী পবিত্রতা নছীব করুন। আমীন!

Views All Time
1
Views Today
2
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে