উম্মুল মু’মিনীন আছ ছালিছাহ সাইয়্যিদাতুনা হযরত ছিদ্দীক্বাহ আলাইহাস সালাম উনার বেমেছাল বুযূর্গী-সম্মান মুবারক সম্পর্কে কতিপয় মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র হাদীছ শরীফ


মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে,
عَنْ اُمُّ الْمُؤْمِنِيْنَ حَضْرَتْ عَائِشَةَ الصّـِدِّيْقَةِ عَلَيْهَا السَّلَامٌ قَالَتْ قَالَ لِىْ رَسُوْلُ اللهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسلم ارِيْتُكِ فِى الْمَنَامِ ثَلَاثَ لَيَالٍ يَجِيءُ بِكِ الْمَلَكُ فِي مِنْ حَرِيْرٍ فَقَالَ لِىْ هٰذِهِ امْرَاَتُكَ فَكَشَفْتُ عَنْ سَرَقَةٍ وَجْهِكِ الثَّوْبَ فَإِذَا أَنْتِ هِىَ. فَقُلْتُ إِنْ يَكُنْ هٰذَا مِنْ عِنْدِ اللهِ يُمْضِهِ.
অর্থ: “উম্মুল মু’মিনীন আছ ছালিছাহ সাইয়্যিদাতুনা হযরত ছিদ্দীক্বাহ আলাইহাস সালাম উনার থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, নূরে মুজাস্সাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি আমাকে উদ্দেশ্য করে ইরশাদ মুবারক করেন, আপনাকে তিন রাতে স্বপ্নযোগে আমাকে দেখানো হয়েছে। একজন সম্মানিত হযরত ফেরেশতা আলাইহিস সালাম তিনি আপনাকে রেশমী কাপড় মুবারক-এ জড়িয়ে আমার সম্মানিত খিদমত মুবারক-এ নিয়ে আসেন এবং বলেন, ইনি আপনার সম্মানিত যাওযাতুম মুকাররমাহ অর্থাৎ ইনি হযরত উম্মুল মু’মিনীন আলাইহাস সালাম। তখন আমি আপনার মুখ মুবারক থেকে কাপড় সরালাম। তখন দেখলাম, আপনিই। অতঃপর আমি বললাম, তা যদি মহান আল্লাহ পাক উনার পক্ষ থেকে হয়ে থাকে, তাহলে অবশ্যই পূর্ণ হবে।” (বুখারী শরীফ, মুসলিম শরীফ)
মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে আরো ইরশাদ মুবারক হয়েছে,
عَنْ اُمِّ الْمُؤْمِنِيْنَ حَضْرَتْ عَائِشَةَ الصّـِدِّيْقَةِ عَلَيْهَا السَّلَامُ اَنَّ حَضْرَتْ جِبْرِيْلَ عَلَيْهِ السَّلَامُ جَاءَ بِصُورَتِهَا فِىْ خِرْقَةِ حَرِيْرٍ خَضْرَاءَ اِلٰى رَسُوْلِ اللهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ فَقَالَ هٰذِهٖ زَوْجَتُكَ فِى الدُّنْيَا وَالْاٰخِرَةِ.
অর্থ: “উম্মুল মু’মিনীন আছ ছালিছাহ সাইয়্যিদাতুনা হযরত ছিদ্দীক্বাহ আলাইহাস সালাম উনার থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, একদা হযরত জিবরীল আলাইহিস সালাম তিনি উনার তথা উম্মুল মু’মিনীন আছ ছালিছাহ সাইয়্যিদাতুনা হযরত ছিদ্দীক্বাহ আলাইহাস সালাম উনার সম্মানিত আকৃতি মুবারক একটি সবুজ বর্ণের রেশমী কাপড় মুবারক-এ পেঁচিয়ে নূরে মুজাস্সাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সম্মানিত খিদমত মুবারক-এ নিয়ে আসলেন এবং বললেন, তিনি দুনিয়াতে ও আখিরাতে আপনার যাওযাতুম মুকাররমাহ অর্থাৎ ইনি হযরত উম্মুল মু’মিনীন আলাইহাস সালাম।” সুবহানাল্লাহ! (তিরমিযী শরীফ)
আরো ইরশাদ মুবারক হয়েছে,
عَنْ اُمِّ الْمُؤْمِنِيْنَ حَضْرَتْ عَائِشَةَ الصّـِدِّيْقَةِ عَلَيْهَا السَّلَامُ أَنَّ رَسُوْلَ اللهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ قَالَ: أَمَا تَرْضيْنَ أَنْ تَكُوْنِىْ زَوْجَتِىْ فِى الدُّنْيَا وَالْاٰخِرَةِ ؟ قُلْتُ بَلٰى وَاللهِ قَالَ فَأَنْتِ زَوْجَتِىْ فِى الدُّنْيَا وَالْاٰخِرَةِ.
অর্থ: “উম্মুল মু’মিনীন আছ ছালিছাহ সাইয়্যিদাতুনা হযরত ছিদ্দীক্বাহ আলাইহাস সালাম উনার থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি আমাকে উদ্দেশ্য করে ইরশাদ মুবারক করেন, হে উম্মুল মু’মিনীন আছ ছালিছাহ সাইয়্যিদাতুনা হযরত ছিদ্দীক্বাহ আলাইহাস সালাম! আপনি কি এতে সন্তুষ্ট নন যে, আপনি দুনিয়া ও আখিরাতে আমার যাওযাতুম মুকাররমাহ অর্থাৎ আপনি হযরত উম্মুল মু’মিনীন আলাইহাস সালাম। হযরত উম্মুল মু’মিনীন আছ ছালিছাহ সাইয়্যিদাতুনা হযরত ছিদ্দীক্বাহ আলাইহাস সালাম তিনি বললেন, মহান আল্লাহ পাক উনার কসম! আমি এতে অবশ্যই সন্তুষ্ট। তখন নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করলেন, আপনি দুনিয়া ও আখিরাতে আমার যাওযাতুম মুকাররমাহ অর্থাৎ আপনি হযরত উম্মুল মু’মিনীন আলাইহাস সালাম।” সুবহানাল্লাহ! (মুস্তারকে হাকিম, ছহীহ ইবনে হিব্বান)
নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি আরো ইরশাদ মুবারক করেন,
لَا تُؤْذِيْنِىْ فِىْ حَضْرَتْ عَائِشَةَ الصّـِدِّيْقَةِ عَلَيْهَا السَّلَامُ فَإِنَّ الْوَحْىَ لَمْ يَأْتِنِىْ وَأَنَا فِىْ ثَوْبِ امْرَأَةٍ إِلَّا حَضْرَتْ عَائِشَةَ الصّـِدِّيْقَةِ عَلَيْهَا السَّلَامُ
অর্থাৎ “আপনারা আমাকে উম্মুল মু’মিনীন আছ ছালিছাহ সাইয়্যিদাতুনা হযরত ছিদ্দীক্বাহ আলাইহাস সালাম উনার ব্যাপারে কষ্ট দিবেন না। কেননা, একমাত্র উম্মুল মু’মিনীন আছ ছালিছাহ সাইয়্যিদাতুনা হযরত ছিদ্দীক্বাহ আলাইহাস সালাম তিনি ছাড়া আর কোনো উম্মুল মু’মিনীন আলাইহিন্নাস সালাম উনাদের সাথে একই চাদর মুবারক-এ অবস্থানকালে আমার কাছে ওহী মুবারক নাযিল হয়নি।” সুবহানাল্লাহ! (বুখারী শরীফ, মুসলিম শরীফ)

শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে