উম্মুল মু’মিনীন খাদিজাতুল কুবরা আলাইহাস সালাম তিনি যে কষ্ট সহ্য করেছেন তা নারী জাতির জন্য আদর্শ ।


উম্মুল মু’মিনীন হযরত খাদিজাতুল কুবরা রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহা তিনি পবিত্র মক্কা শরীফ একজন বিত্তশালী মহিলা হওয়া সত্ত্বেও নিজ হাতে হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সেবা করতেন। উনার আহার, বিশ্রাম ইত্যাদির তদারক নিজেই করতেন। সন্তানদের প্রতিপালনসহ গৃহকর্মের যাবতীয় দায়িত্ব নিজে পালন করতেন।
আনুষ্ঠানিক সম্মানিত নুবুওওয়াত মুবারক প্রকাশের পর শত্রুবেষ্টিত গোটা দেশের চরম সঙ্কটময় দিনগুলোতে উনার একমাত্র সহমর্মী ছিলেন চাচা আবু তালিব এবং উম্মুল মু’মিনীন খাদিজাতুল কুবরা রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহা।

দাওয়াতের কাজ শেষে ক্লান্ত শ্রান্ত অবস্থায় হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি যখন ঘরে ফিরে আসতেন, উম্মুল মু’মিনীন হযরত খাদিজাতুল কুবরা রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু তিনি তখন উনাকে নানারূপ শান্তনা বাক্যে উনার যাতনা লাঘব করে দিতেন এবং তিনি যে সত্য ও সঠিক, দৃঢ় ভাষায় সে কথা উল্লেখ করতেন। আর পবিত্র মক্কা শরীফবাসীদের বিরোধিতার বিষয়টিকে ক্ষুদ্র ও তুচ্ছ করে উপস্থাপন করতেন।

কাফিররা যখন ফলে গোটা বনী হাশিম এবং বনী আব্দুল মুত্তালিব-এর লোকদের বয়কট করল, তখন হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ও উম্মুল মু’মিনীন খাদিজাতুল কুবরা রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহা এবং সন্তানসহ দু’পাহাড়ের মাঝে এক সংকীর্ণ উপত্যকতায় তিন বছর প্রায় বন্দী জীবনযাপন করেছেন। মহান আল্লাহ পাক উনার সন্তুষ্টি মুবারক উনার লক্ষ্যে অনাহারের কষ্টসহ বিবিধ দুঃখ-কষ্ট ভোগ করেছেন।
উম্মুল মু’মিনীন খাদিজাতুল কুবরা রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহা তিনি হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম আত্মীয়-স্বজনদেরকেও ভালবাসতেন ও সম্মান করতেন, খোঁজ খবর নিতেন এবং উনাদের বিপদ-আপদে পাশে দাঁড়াতেন।

উনি যে কষ্ট সহ্য করেছেন তা নারী জাতির জন্য আদর্শ ।
আগামীকাল উনার বিবাহ দিবস।

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে