উম্মুল মু’মিনীন হযরত খাদীজাতুল কুবরা আলাইহাস সালাম তিনি আরবের মধ্যে ব্যবসা বাণিজ্যে অদ্বিতীয়া এবং বিপুল ধন সম্পদের অধিকারীনী ছিলেন


উম্মুল মু’মিনীন হযরত খাদীজাতুল কুবরা আলাইহাস সালাম তিনি আরবের মধ্যে ব্যবসা বাণিজ্যে অদ্বিতীয়া এবং বিপুল ধন সম্পদের অধিকারীনী ছিলেন

পৃথিবীর ইতিহাসে তৎকালীন সময়ে সমগ্র আরব জাহানে যত বড় ব্যবসায়ী ও বণিক ছিল, তার মূল কেন্দ্র বিন্দু ছিলেন উম্মুল মু’মিনীন হযরত কুবরা আলাইহাস সালাম উনার পিতাজান এবং টাকা পয়সায়, ধন-সম্পদে একমাত্র খ্যাতিসম্পন্ন, সুপরিচিত, এবং সম্মানিত একক ব্যক্তিত্ব। আর এই সম্মানিত ও সম্ভ্রান্ত পরিবারের একমাত্র খ্যাতিসম্পন্না, পুত-পবিত্রা কন্যা ছিলেন উম্মুল মু’মিনীন, সাইয়্যিদাতুন্ নিসায়িল আলামীন হযরত কুবরা আলাইহাস সালাম তিনি।

শুধু তাই নয়, উম্মুল মু’মিনীন, সাইয়্যিদাতুন্ নিসায়িল আলামীন হযরত কুবরা আলাইহাস সালাম উনার একান্ত বিশ্বস্ত গোলাম হযরত মাইসারা রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু উনাকে নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মুবারক খিদমতে দিয়ে দিলেন। আর কোনো প্রকার যেন বেয়াদবীপূর্ণ, ত্রুটিপূর্ণ আচরণ না হয়, সে ব্যাপারে সতর্ক করেছিলেন। কোনো কোনো বর্ণনায় এসেছে, উম্মুল মু’মিনীন, সাইয়্যিদাতুন্ নিসায়িল আলামীন হযরত খাদীজাতুল কুবরা আলাইহাস সালাম তিনি ব্যবসা-বাণিজ্যে ধন-সম্পদে সমগ্র আরব তথা গোটা জগতে ছিলেন অদ্বিতীয়া। তাই এই বিপুল ধন সম্পদের যথাযথ হিফাযতের ও সংরক্ষণের জন্য একজন যথার্থ উপযুক্ত রক্ষণশীল ব্যক্তিত্ব উনাকে অন্তর মুবারকে দীর্ঘদিন ধরে খুঁজছিলেন। এমনি যুগসন্ধিক্ষণে হযরত নবী আলাইহিমুস সালাম উনাদের নবী, হযরত রসূল আলাইহিমুস সালাম উনাদের রসূল. নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার ন্যায়পরায়ণতা, বিচক্ষণতা, সততা, দায়িত্বশীলতা, সৌন্দর্যতা, দয়াদ্রতা, পরোপকারিতা, পরম পুত-পবিত্রতা পরম বিশ্বস্ততা এবং জীবনের সার্বিক অনুপম গুণাবলীর স্নিগ্ধতা শুধু আরব জাহানেই নয় গোটা কুল-কায়িনাতকে বিমুগ্ধ ও বিমোহিত করে তোলে এবং অতি অল্প সময়ে আরবদের অন্তরের গভীর কোঠা থেকে ভক্তিপূর্ণ শ্রদ্ধাপূর্ণ “কণ্ঠস্বর” নূরে ‍মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাকে আল্ আমীন তথা চরম ও পরম বিশ্বাসী মুবারক লক্ববে ভূষিত করেন। এই খোদায়ী মেহমান, আশিকে ইলাহী, মাশুকে মাওলা, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার যাবতীয় অনুপম মুবারক চরিত্রও ঐশ্বর্যমণ্ডিত গুণাবলীতে বিমুগ্ধ হয়ে উম্মুল মু’মিনীন, সাইয়্যিদাতুন্ নিসায়িল আলামীন হযরত কুবরা আলাইহাস সালাম তিনিস্বীয় ব্যবসার যাবতীয় বিষয়ের রক্ষণাবেক্ষণের মুবারক দায়িত্ব পালনের জন্য পয়গাম মারফত সবিনয় আবেদন করেন এবং প্রস্তাব দেন যে, অন্যান্যদেরকে যে মুনাফা দেয়া হয় তার দ্বিগুণ মুনাফা নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাকে দেয়া হবে। নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি এতে মুবারক সম্মতি জ্ঞাপন করলেন। তখন উম্মুল মু’মিনীন, সাইয়্যিদাতুন্ নিসায়িল আলামীন, হযরত কুবরা আলাইহাস সালাম উনার একান্ত বিশ্বস্ত গোলাম হযরত মাইসারা রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু উনাকে সাথে দিয়ে দিলেন এবং বিশেষ খিদমতে থাকার জন্য মুবারক নির্দেশ দিলেন। তবে নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি এমন নিপুনতা ও সুদক্ষতার সহিত সমস্ত পণ্যদ্রব্য বিক্রয় করলেন, কিন্তু দেখা গেল যে, অন্যান্য বারের তুলনায় এবার বহুগুণে বেশি মুনাফা অর্জিত হল। যা আরব ব্যবসায়িক ইতিহাসে অদ্বিতীয়।

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে