উম্মু আবীহা, আন নূরুর রবি‘য়াহ সাইয়্যিদাতুনা হযরত যাহরা আলাইহাস সালাম উনার মহাসম্মানিত আওলাদ আলাইহিমাস সালাম উনাদের সম্পর্কে সম্মানিত সুসংবাদ মুবারক


সম্মানিত হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে,
عن على كرم الله وجهه قال قال رسول الله صلى الله عليه وسلم أتانى ملك فقال يا محمد إن الله تعالى يقول لك إنى قد امرت شجرة طوبى أن تحمل الدر والياقوت والمرجان وان تنثره على من قضى عقد نكاح فاطمة من الملائكة والحور العين وقد سر بذلك سائر أهل السموات وانه سيولد بينهما ولدان سيدان في الدينا وسيسودان على كهول أهل الجنة وشبابها وقد تزين أهل الجنة لذلك فاقرر عينا يا محمد فانك سيد الاولين والآخرين صلى الله عليه وسلم.
অর্থ: “সাইয়্যিদুনা হযরত কাররামাল্লাহু ওয়াজহাহূ আলাইহিস সালাম উনার থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, আমার নিকট একজন সম্মানিত ফেরেশতা আলাইহিস সালাম তিনি এসেছেন। তারপর তিনি আমাকে বলেছেন, ইয়া রসূলাল্লাহ, ইয়া হাবীবাল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম! নিশ্চয়ই যিনি খ¦ালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি আপনাকে বলেছেন যে, নিশ্চয়ই আমি (মহান আল্লাহ পাক) সম্মানিত তূবা বৃক্ষকে সম্মানিত নির্দেশ মুবারক দিয়েছি মুক্তা, ইয়াকূত ও মারজান বহন করার জন্য এবং হযরত ফেরেশতা আলাইহিমুস সালাম উনাদেরওচিত্তাকর্ষী নয়ন বিশিষ্টাহুর উনাদেরমধ্য থেকে যাঁরা আন নূরুর রবি‘য়াহ সাইয়্যিদাতুনা হযরত যাহরা আলাইহাস সালাম উনার আযীমুশ শান মহাসম্মানিত নিসবতে আযীম শরীফ-এ অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়েছেন উনাদের উপর ছিটায়। সুবহানাল্লাহ! আর এই কারণে সমস্ত আসমানবাসী খুশি মুবারক প্রকাশ করেছে। সুবহানাল্লাহ! আর অতিশীঘ্রই (আন নূরুর রবি‘য়াহ সাইয়্যিদাতুনা হযরত যাহরা আলাইহাস সালাম উনার এবং সাইয়্যিদুনা হযরত কাররামাল্লাহু ওয়াজহাহূ আলাইহিস সালাম উনার অর্থাৎ) উনাদের উভয়ের মাধ্যমে উনাদের দুই মহাসম্মানিত আওলাদ আলাইহিমাস সালাম উনারা মহাসম্মানিত বরকতময় বিলাদতী শান মুবারক প্রকাশ করবেন। সুবহানাল্লাহ! উনারা জগতবাসী সকলের সাইয়্যিদ। সুবহানাল্লাহ! আর উনারা দু’জন সম্মানিত জান্নাতবাসী সকল পৌঢ় এবং যুবক উনাদের প্রত্যেকের সাইয়্যিদ হবেন। সুবহানাল্লাহ! এই কারণে সম্মানিত জান্নাতবাসীগণ সুসজ্জিত হয়েছেন। ইয়া হাবীবাল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম! আপনি সম্মানিত চক্ষু মুবারক শিতল করুন। কেননা আপনি হচ্ছেন ‘সাইয়্যিদুল আউওয়ালীন ওয়াল আখিরীন’ তথা শুরু-শেষসহ সকলের সাইয়্যিদ।” সুবহানাল্লাহ!(যাখায়েরুল ‘উক্ববাহ শরীফ ১/৩২)

Views All Time
2
Views Today
3
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে