”’ উলামায়ে সু এরাই হচ্ছে আল্লাহপাক উনার কাছে সর্বাপেক্ষা নিকৃস্ট””’


 

উলামায়ে ‘সূ’ বা ধর্মব্যবসায়ীদের পরিচিতি ও পরিনতি সম্পর্কে পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে,

হযরত আবূ হুরায়রা রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু উনার থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন,

“একদা আখিরী রসূল, সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন,

‘তোমরা জুব্বুল হুযূন হতে মহান আল্লাহ পাক উনার নিকট পানাহ চাও।’

 

হযরত ছাহাবায়ে কিরাম রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুমগণ উনারা জিজ্ঞাসা করলেন, ‘ইয়া রসূলাল্লাহ, ইয়া হাবীবাল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম! জুব্বুল হুযূন কি?’ নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি বলেন, ‘জাহান্নামের একটি উপত্যকা যা হতে (জাহান্নামবাসী তো অবশ্যই) স্বয়ং জাহান্নামও দৈনিক চার শতবার পানাহ চেয়ে থাকে।’ হযরত ছাহাবায়ে কিরাম রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুমগণ উনারা পুনরায় জিজ্ঞাসা করলেন, ‘ইয়া রসূলাল্লাহ, ইয়া হাবীবাল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম! এতে কারা প্রবেশ করবে?’ নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি বললেন, ‘ঐ সকল রিয়াকার হাফিয, ক্বারী, মালানা। অর্থাৎ উলামায়ে ‘সূ’ বা ধর্মব্যবসায়ী। যারা মানুষকে দেখানোর জন্য আমল করতো এবং দুনিয়া হাছিলের জন্য দ্বীনকে বিক্রি করে দিতো বা শরীয়ত বিরোধী কাজে মশগুল হতো।” আর ‘ইবনে মাজাহ শরীফ’ কিতাব উনার মধ্যে বর্ণিত রয়েছে, ‘হাফিয, ক্বারী, মালানাদের মধ্যে তারাই মহান আল্লাহ পাক উনার নিকট সর্বাপেক্ষা নিকৃষ্ট; অর্থাৎ তারাই উলামায়ে ‘সূ’ বা ধর্মব্যবসায়ী যারা দুনিয়াবী ফায়দা লাভের উদ্দেশ্যে আমীর, উমরাহ, রাজা, বাদশাহদের সাথে সাক্ষাত বা উঠাবসা করে।”

 

আল্লাহপাক এই দুনিয়াদার উলামায়ে সু এদের থেকে সমস্ত মুসলমান উনাদেরকে হেফাজত করুন।আমিন

Views All Time
2
Views Today
2
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে