উসমানী সম্রাজ্যের সংক্ষিপ্ত পরিচিতি


খেলাফতে রাশেদা, খেলাফতে উমাইয়া, আব্বাসীদের পর উসমানী খেলাফত ব্যবস্থার উত্থান। সুদীর্ঘ ৬২৪ বছর ধরে টিকে ছিল এই খেলাফত ব্যবস্থা। পৃথিবীর ইতিহাসে উসমানী সম্রাজ্যের মত সুবিস্তৃত পরিধি ও দীর্ঘমেয়াদী ইসলামী খেলাফত মুসলিমদের ভাগ্যে জোটে নি।
উসমানী সম্রাজ্যের সোনালী যুগে যত দূর পর্যন্ত এর বিস্তৃতি ঘটেছিল, তা উসমানী সম্রাজ্যের পতনের পর বর্তমানে প্রায় ৪৮ টি দেশে পরিণত হয়েছে।উসমানী ধারা সমাপ্তির এখনো ১০০ বছর পেরোয়নি অথচ এ সম্পর্কে অনেকের-ই আজানা ।
বর্তমানে মিডিয়া অথবা ইউটিউবে প্রচারকৃত ভিডিওগুলোতে উসমানীয় সুলতানদের নারীলোভী চরিত্রে দেখা যায়।তাছাড়া উসমানীয়দের সম্পর্কে ইংরেজদের লেখা বইগুলো একপেশে ও পক্ষপাতদুষ্ট। অর্থ্যা মুসলমানদের সম্পর্কে ভুল তথ্য প্রচারের সর্বাত্মক চেষ্টা এদের। ফলে দিনে দিনে মিথ্যার চাপে সত্য চাপা পড়ছে। কথিত আছে, “যে জাতি স্বজাতির ইতিহাস জানে না , সে জাতি কখনো উন্নতি লাভ করতে পারে না।” অতএব স্বজাতির ইতিহাস প্রত্যেকেরই জানা উচিত।
উসমানীয়দের সম্পর্কে কিছু তথ্য ,

-উসমানী সম্রাজ্যের কাল ৬৯৯ হিজরী থেকে ১৩৪৪ হিজরী পর্যন্ত(১৩০০-১৯২৪ সাল)।
-রাজধানী-ইস্তাম্বুল,
-রাষ্ট্রীয় ধর্ম- ইসলাম
-সাম্রাজ্যের মেয়াদ-৬২৪ বছর
-সর্বোচ্চ পদবি-সুলতান
-রাষ্ট্রীয় ভাষা-তুর্কি ভাষা মূলত উসমানী ভাষা
-সর্বমোট সুলতান ছিলেন ৩৬ জন।তবে বেশি অপপ্রচার চালানো হয়েছে যিনি ছিলেন ১০ম অর্থ্যা সুলতান সুলায়মান সম্পর্কে।
-সর্বপ্রথম সুলতান উপাধি ধারণ করেন উসমান বিন আরতুগাল।
-সুলতানের পর ২য় গুরুত্বপূর্ণ পদ `ছদরে আজম‘(বর্তমান প্রধানমন্ত্রী)।
-ছদরে আজমের পর দেওয়ানের (মন্ত্রী) অবস্থান।
-উসমানী সাম্রাজ্যের রাজ্যগুলো স্বায়ত্তশাসিত ছিল।সুলতানের পক্ষ থেকে নিযুক্ত শাসক `পাশা‘ উপাধি ধারন করে শাসন করতো প্রতিটি রাজ্যে। পাশাদের কাজ ছিল কর সংগ্রহ করা, নিজ অঞ্চলের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা এবং সেনাবাহিনীর নেতৃত্ব দেওয়া।

Views All Time
1
Views Today
3
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে