ঋণের দায়ে জর্জরিত আমেরিকা, পরিমাণ ১৬ ট্রিলিয়ন ডলার


মার্কিন জাতীয় ঋণ কমাতে ব্যর্থ হয়েছে দেশটির প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। আমেরিকার জাতীয় ঋণ বেড়ে এখন দাঁড়িয়েছে ১৬ ট্রিলিয়নে। এ ঘটনা তার বিরোধী শিবির রিপাবলিকান দলের জন্য ব্যাপক সমালোচনার সুযোগ এনে দিয়েছে। আর এ হিসাব প্রকাশ হয়েছে ওবামার ডেমোক্র্যাট দলের ন্যাশনাল কনভেনশনের আগ মুহূর্তে।
২০০৯ সালে বারাক ওবামা যখন প্রেসিডেন্ট হিসেবে আমেরিকার দায়িত্ব নিয়েছিলো তখন দেশটির জাতীয় ঋণের পরিমাণ ছিল ১০.৬ ট্রিলিয়ন ডলার।
সে সময় ওবামা প্রতিশ্রুুতি দিয়েছিলো, ২০১২ সালের মধ্যে জাতীয় ঋণের পরিমাণ অর্ধেকে নামিয়ে আনা হবে। কিন্তু ক্ষমতার প্রায় চার বছরে সে তার প্রতিশ্রুতি পূরণ করতে পারেনি।
মার্কিন ট্রেজারি এ ঋণের পরিমাণ প্রকাশ করার মুহূর্তের মধ্যে ওবামার নির্বাচনী প্রতিদ্বন্দ্বী মিট রমনি তা পুঁজি করেছে এবং ওবামা যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলো তার সেই বক্তব্য সংবলিত এক মিনিটের একটি ভিডিও প্রকাশ করেছে। এ ভিডিওতেও পরিষ্কার দেখা যায়, ওবামা ২০১২ সালের মধ্যে জাতীয় ঋণের পরিমাণ অর্ধেকে নামিয়ে আনবে বলে প্রতিশ্রুতি দিচ্ছে।
জাতীয় ঋণ বেড়ে যাওয়ার ঘটনায় ২০০৮ সালে ওবামা তার প্রথম নির্বাচনী প্রচারণায় উত্তরসূরি জর্জ ডব্লিউ বুশের তীব্র সমালোচনা করেছিলো। সে সময় সে ঋণ বেড়ে যাওয়াকে ‘দায়িত্বহীনতা’ এবং ‘দেশপ্রেমহীনতা’ বলে আখ্যা দিয়েছিল।
এদিকে, নতুন করে জাতীয় ঋণ বেড়ে যাওয়ার খবর শুনে প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার জন বোয়েনার একে ্তুওবামার প্রতিশ্রুতি ভঙ্গের আরেকটি উদাহরণ্থ বলে উল্লেখ করেছে।
নতুন ঋণের যে পরিমাণ ঘোষণা করা হয়েছে তাতে মার্কিন নাগরিকদের মাথাপিছু ঋণের মাত্রা দাঁড়িয়েছে ৫০ হাজার ডলার।

দৈনিক আমার দেশ 06.09.2012

Views All Time
1
Views Today
2
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+