এই পার্থিব জগৎ হল মু’মিনদের জন্য কয়েদখানা………


বিশিষ্ট ছাহাবী হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে উমর রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু তিনি বর্ণনা করেন, “আদ দুন্ইয়া সিজনুল মু’মিন, ওয়া জান্নাতুল কাফির” অর্থাৎ দুনিয়া বা পার্থিব জগৎ মু’মিনদের জন্য কয়েদখানা সদৃশ আর কাফিরদের (অবাধ্যদের) জন্য বেহেশতস্বরূপ। অর্থাৎ দুনিয়ার সকল কাজকর্মে ঈমানদারগণ ইসলাম তথা শরীয়তের বিধি-নিষেধ অনুসরণ করে চলার কারণে বাহ্যিক দৃষ্টিতে তাদেরকে অনেক অসুবিধা বা বাধার সম্মুখীন হতে হয়। তাই দুনিয়াকে মু’মিনদের জন্য কয়েদখানা সাদৃশ্য বলা হয়েছে। তবে কয়েদখানা থেকে পরিত্রাণ পাবার পর মানুষের মন যেমন খুশিতে আন্দোলিত হয়ে উঠে তেমনই মু’মিনদের মন এই পার্থিব জগৎ পরিত্যাগ করার পর খুশিতে আন্দোলিত হয়। অর্থাৎ তাদের জন্য কবর হলো শান্তি ও আরামের স্থান এবং বেহেশত হলো তাদের চিরস্থায়ী শান্তি নিকেতন।
আর কাফির-মুশরিক তারা ইসলাম বা শরীয়ত পালনের কোনো তোয়াক্কা না করে দুনিয়ার ভোগ-বিলাস, আরাম-আয়েশে নিমগ্ন থাকে, পরকালের হিসাব-নিকাশের তারা তোয়াক্কা আদৌ করে না। তাই তাদের জন্য দুনিয়াকে আরামের স্থান তথা বেহেশতস্বরূপ বলে উল্লেখ করা হয়েছে। তবে পরকালে কবর হলো তাদের জন্য শাস্তির স্থান এবং দোযখ হলো তাদের চিরস্থায়ী আযাবের ঘর। নাঊযুবিল্লাহ!

আয় আল্লাহ্ পাক আমাদেরকে এই দুনিয়ার মোহ থেকে হেফাযত করুন। আমীন

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+