একই ফাঁদে বাংলার মুসলমান


বিশ্বখ্যাত পর্যটক ইবনে বতুতা এই বাংলার প্রাচুর্যতা দেখে বলেছিলেন- ‘জান্নাতের দরজা’। এই ‘জান্নাতের দরজা’কে করায়ত্ত করার জন্য কাফিরদের ছিলো ব্যাপক খায়েশ। কিন্তু এদেশের মুসলমানদের ঈমানী জোশ আর জযবার কাছে তারা পরাস্ত হয়েছে। কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি। এক সময় মুসলমানরা মহান আল্লাহ পাক উনার নাফরমানীতে মশগুল হয়ে কাফির-মুশরিকদের চক্রান্তে পা দিয়ে নিজেরা ‘হিন্দু বাবু’ সাজলো, ধুতি, পাঞ্জাবিকে নিজেদের সংস্কৃতি বানালো, ঘটি, বাটি আর পূজার প্রসাদে তৃপ্ত হতে লাগলো। আর এই নাফরমানী তাদেরকে শেষ পর্যন্ত ইংরেজদের গোলামীর শিকলে আবদ্ধ করলো।
মাত্র অর্ধশত বছর না যেতেই আবারো চারদিকে নাফরমানীর সেই উল্লাস দেখা যাচ্ছে। বাকস্বাধীনতা, মুক্তমনা, অসাম্প্রদায়িকতার নামে সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার অবমাননা করা হচ্ছে, নবী-রসূল আলাইহিমুস সালাম উনাদের নামে কটূক্তি করা হচ্ছে, পর্দার বিরুদ্ধে বলা হচ্ছে, কুরবানীর বিরুদ্ধে বলা হচ্ছে, আরো কত কি। নাউযুবিল্লাহ! এসব নাফরমানী দেখে মনে হয়- আবার না জানি নতুন কোন গোলামীর শৃঙ্খলে আটকা পড়ে এই বাংলার মানুষ!
মহান আল্লাহ পাক তিনি আমাদেরকে হিফাযত করুন। আমীন!
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে