একটি ভয়ংকর দুঃস্বপ্ন


এক ব্যক্তি সপ্ন দেখে যে সে একটি দোকানে গিয়েছে সেখান থেকে সে কিছু ডিম কিনলো। সেই দোকানে আরো কাস্টোমার ছিল তার মধ্যে একজন সপ্নদ্রষ্টা ব্যক্তিকে দোকানের একপাশে এমনভাবে চাপ দিল যে, সপ্নদ্রষ্টা ব্যক্তির ডিমগুলো ভেঙ্গে গেল। লোকটি তখন দিয়ে বলল ,কেন তার ডিম ভাঙ্গা হলো দুষ্টু লোকটি ছিল মুসলমান নামধারী একজন মুনাফেক।সে বলল হিন্দুরা তাকে শিখিয়ে দিয়েছে মুসলমানদেরকে এ ভাবেই কষ্ট দিতে হয়।(নাউজুবিল্লাহ) তারপর সপ্নদ্রষ্টা ব্যক্তি যখন বাসায় ফিরছিল তখন রাস্তায় এক ব্যক্তি ঘোষনা দিচ্ছে,আপনারা তাড়াতাড়ি যার যার বাড়ী যান হিন্দুরা রাস্তায় নেমেছে তারা মুসলমানদের দেখলেই মেরে ফেলবে। ঘোষনা শুনে সপ্নদ্রষ্টা ব্যক্তি ভয়ে তাড়াতাড়ি বাসায় ফিরলো আর ভাবতে থাকলো যে দেশে ৯৮ ভাগ মুসলমান সে দেশে কি করে হিন্দুরা মুসলমানদের উপর যুলুম করে। মূলত এই মুসলিম নামধারী মুাফেকরাই এর জন্য দায়ী। এদের জন্যই হিন্দুরা এত সাহস পেয়েছে। এই চিন্তা করতে করতে হঠাৎ তার দরজায় বেল বেজে উঠলো দরজা খুলতেই সে যা দেখলো তাতে তার রক্ত হিম হয়ে গেল মনে হল তার পায়ের নিচের মাটি সরে গিয়ে দুভাগ হয়ে যাচ্ছে।সে দেখলো কয়জন হিন্দু রক্তমাখা চাপাতি নিয়ে দাঁড়িয়ে আছে। তার ঘুম ভেঙ্গে গেল। জেগে দেখলো ভয়ে সে তখন কাপছে। কিন্তু ভয় পেলে কি চলবে?
না। এমন দুঃস্বপ্ন সত্য হওয়ার পূর্বেই আমাদের সতর্ক হতে হবে। আর চুপ থাকা নয় এবার আমাদের শত্রুর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে। না হলে ভারতের মুসলমানদের মত দশা এদেশেও হবে। কিন্তু শুধু জাহেরি শক্তি দিয়ে শত্রুর মুকাবেলা করা সম্ভব নয় এখানে বাতেনি শক্তির প্রয়োজন। আর বাতেনি শক্তির জন্য দরকার অধিক মাত্রায় যিকির-ফিকির করা। যিকির-ফিকির করলে ঈমানী কুওত বৃদ্ধী পাবে তখন শত্রুর মুাকাবেলা করা সম্ভব হবে। আসুন, আমরা দিঢ়ভাবে কোশেশ করি।

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+