এক টি শিখুনি পোস্ট


একটি_শিক্ষনিয়_পোস্ট
<<<<<<<<<
☆☆☆☆☆☆☆ পোষ্টটি পড়ার অনুরোধ
রইলো।
————————
# এক লোকের ঘরে একটি সাপ ঢুকে
গেল। ফ্যামিলির সবাই ভয়ে অস্থির।
সকলে পরামর্শ দিলো, সাঁপুড়ি কে খবর
দাও। সে ঠিকই বের করে নিয়ে
আসবে……

সাঁপুড়ে এলো ঝোলা থেকে বের
করলো সুন্দর বাঁশি। সুর তুললো বাঁশিতে।
বাঁশির সুরে অন্যরকম অবহ তৈরী হলো
চারপাশে। কিছুক্ষণের মধ্যে ধীরে
ধীরে বেরিয়ে আসলো সাপ। সাপটি
ভুলে গেছে তার ধরা পড়ার আশঙ্কা….
পুরোপুরি আচ্ছন্ন হয়ে আছে বাঁশির
সুরে। সাঁপুড়ে অপূর্ব কৌশলে সাপটি
কে ধরে ফেলেন।

বন্ধুরা ; এখন চিন্তার বিষয় বাঁশির
সাথে সাপের বের হয়ে আশার কি
সম্পর্ক?? সাপ যদি বিষাক্ত হয়, তবে
বাঁশির সুর তার মধ্যে আলোড়ন সৃষ্টি
করবে। বিষ তাকে স্থির থাকতে
দেবে না। বাঁশির সুরের সাথে যেমন
সাঁপের বিষের সম্পর্ক।

তেমনি মসজিদের আযানের সাথে
ঈমানদারের ঈমানের সম্পর্ক। মসজিদে
আযান হবে ঈমানদারের ঈমান তাকে
বসে থাকতে দেবে না। সে অস্থির
হয়ে মসজিদের পানে ছুটে আসবে।
বাঁশি বাজছে আর পাগলের মত গর্ত
থেকে বের হয়ে আসছে সাপ। একই
ভাবে মসজিদে আযান হচ্ছে ঈমানদার
কিভাবে ঘরে, দোকানে, অফিসে
বসে থাকবে? তার ঈমান তাকে ব্যাকুল
করে তুলবে।আসি আমরা একটু ভাবি
নিজেকে তো আমরা ঈমানদার মনে
করি, কিন্তু আযানের সময় আমার ঈমান
আমাকে ব্যাকুল করে কিনা? তাহলে
আমার ঈমানের দাবি মিথ্যা দাবি
নয়তো? মুয়াজ্জিন ডাকে "হাইয়া
আলা'স সালাহ" (এসো নামাজের
দিকে) আপনি মুয়াজ্জিন কে প্রশ্ন
করতে পারেন, মুয়াজ্জিন তুমি চিল্লাও
ক্যান? নামাজের দিকে আসলে কি
হবে? মুয়াজ্জিন পরের উক্তিতে বলে
"হাইয়া আলাল ফালাহ" ( এসো
কল্যাণের দিকে) নামাজ পড়লে
তোমার ভাগ্য খুলে যাবে কল্যাণ
হবে..।।

আর আমরা ফেসবুকে, দোকানে,
রাস্তায় এখানে – সেখানে বসে সময়
নষ্ট করি। কিন্তু আযানের সুর আমাদের
কানে আসলেও আমরা তা এড়িয়ে যাই।
আমাদের সঙ্গে এসব কিছুই যাবে না –
একমাত্র সঙ্গী হবে ঈমান আর আমল। আর
সেটা আমাদেরকে নামাজের মধ্যমে
করতে হবে। আল্লাহ্পাক আমাদের
সবাইকে "পাঁচওয়াক্ত নামাজ আদায়
করার তৌফিক দান করুন (আমিন

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে