এখন তোদের “মত প্রকাশের স্বাধীনতা” কোথায় গেল?


বিশ্বের তাবৎ যবন,ম্লেচ্ছ, অস্পৃশ্য বিধর্মীরা বিভিন্ন সময় নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার ব্যঙ্গচিত্র চিত্র প্রকাশ করেছে,  অবমাননাকর  চলচ্চিত্র নির্মাণ করেছে, শান-মানের খিলাফ বক্তব্য পেশ করেছে। যখনই মুসলমানরা এই সকল নিকৃষ্টতম কাজের তীব্র প্রতিবাদ করেছেন, বন্ধের জন্য বলেছেন, তখন তারা এটাকে “মত প্রকাশের স্বাধীনতা” বলে বুলি আওড়ায়। কিন্তু সম্প্রতি পরগাছা ইসরাইলের সন্ত্রাসী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুকে নিয়ে যখন যুক্তরাজ্যভিত্তিক সানডে টাইমসের একটি ব্যঙ্গচিত্রে তুলে ধরেছে তখন যুক্তরাজ্যের প্রায় দুই লাখ ৬৫ হাজার ইহুদির প্রতিনিধিত্বকারী বোর্ড অব ডেপুটিস এ ধরনের ব্যঙ্গচিত্রকে অগ্রহণযোগ্য হিসেবে অভিহিত করেছে। ব্যঙ্গচিত্রটিকে ইহুদিবিরোধী অপপ্রচার হিসেবে উল্লেখ করেছে। তীব্র সমালোচনার মুখে সানডে টাইমসের রুপার্ট মারডক ক্ষমা চেয়েছে। বিশ্ববাসীর কাছে আমাদের প্রশ্ন, এখন তাদের “মত প্রকাশের স্বাধীনতা” কোথায় গেল? নাকি সব “মত প্রকাশের স্বাধীনতা”র বোঝা কেবল মুসলমানদের বহন করে বেড়াতে হবে? নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম  উনার শান মুবারক-এ অবমাননাকর কাজের জন্য বিশ্বের তাবৎ যবন,ম্লেচ্ছ, অস্পৃশ্য বিধর্মীদেরকে ক্ষমা ভিক্ষা চাইতে হবে। 

শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+