এ কোন ধরনের বেহায়া-বেপর্দার মচ্ছব!!!


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ করেন- ‘হে মহিলারা! তোমরা জাহিলিয়াত যুগের মহিলাদের মতো সৌন্দর্য প্রদর্শন করে বেরিওনা।’ নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ করেন, ‘যে দেখে ও দেখায় উভয়ের প্রতি মহান আল্লাহ পাক উনার লা’নত।’ তাই যদি হয় তাহলে ৯৭ ভাগ মুসলমান ও রাষ্ট্র দ্বীন ইসলামের দেশে মেয়েদের সৌন্দর্যের প্রতিযোগিতা, ফ্যাশন শো, মডেলিং ইত্যাদি লা’নতগ্রস্ত বিষয়গুলি কিভাবে জায়িয হতে পারে? অর্থাৎ সেগুলি কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য হতে পারে না। কারণ ইসলামী শরীয়তের দৃষ্টিতে মেয়েদের সৌন্দর্যের প্রতিযোগিতা, ফ্যাশন শো, মডেলিং ইত্যাদি সম্পূর্ণরূপেই হারাম। তবে ইসলাম ও মুসলমানগণের দুশমন ইহুদী, মুশরিক ও নাছারাগুলো মেয়েদের সৌন্দর্যের প্রতিযোগিতা, ফ্যাশন শো, মডেলিংয়ের নামে মুসলিম নারীগণকে বেপর্দা, বেহায়া ও জাহান্নামী বানাতে চায়। তাই ‘কুরআন শরীফ ও সুন্নাহ শরীফ বিরোধী কোনো আইন পাস হবে না’-এ প্রতিশ্রুতিবদ্ধ সরকারের জন্য ফরয-ওয়াজিব হচ্ছে, মেয়েদের সৌন্দর্যের প্রতিযোগিতা, ফ্যাশন শো, মডেলিংসহ সর্বপ্রকার অশ্লীলতা বন্ধে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করা।

গত ৮ই অক্টোবর/২০১১ ঈসায়ী তারিখ থেকে সারা বাংলাদেশে শুরু হয়েছে ‘মিস ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ’। এই কথিত সুন্দরী প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করছে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়সহ দেশের সব সরকারি ও বেরসকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীরা। ফলে দেশজুড়ে শুরু হয়েছে এক বড় ধরনের বেহায়া-বেপর্দার মচ্ছব। অথচ কুরআন শরীফ-এ “সূরা নিসা, সূরা নূর ও সূরা আহযাব” সূরাসমূহে পর্দা করার ব্যাপারে কঠোর আদেশ-নির্দেশ করা হয়েছে। যেমন মহান আল্লাহ পাক সূরা নূর-এর ৩০, ৩১ নম্বর আয়াত শরীফ-এ ইরশাদ করেন, “(হে হাবীব ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম!) আপনি মু’মিন পুরুষগণকে বলুন, তারা যেন তাদের দৃষ্টিকে অবনত রাখে এবং তাদের ইজ্জত-আবরু হিফাযত করে। এটা তাদের জন্য পবিত্রতার কারণ। নিশ্চয়ই মহান আল্লাহ পাক তিনি তারা যা করে তার খবর রাখেন। আর আপনি মু’মিনা মহিলাগণকে বলুন, তারাও যেন তাদের দৃষ্টিকে অবনত রাখে এবং তাদের ইজ্জত-আবরু হিফাযত করে ও তাদের সৌন্দর্য প্রকাশ না করে।”

অতএব, সারাদেশব্যাপী ‘মিস ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ’ নামক সুন্দরী প্রতিযোগিতা তথা বেহায়া-বেপর্দার মচ্ছব আয়োজনের বিরুদ্ধে সকল মুসলমানদের অবশ্যই প্রতিবাদী হতে হবে।

Views All Time
2
Views Today
4
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

  1. বাংলাদেশকে ঘিরে কাফির-মুশরিকরা গভীর ষড়যন্ত্রে লিপ্ত। একের পর এক তারা বিভিন্ন পদ্ধতিতে দেশের মুসলমান বিশেষ করে তরুণ সমাজকে হারাম কাজে মশগুল করার পাঁয়তারা করছে। আর যেহেতু তরুণ সমাজ সহজেই গান-বাজনা, বেপর্দা-বেহায়পনা ইত্যাদিতে আক্রান্ত হয়ে পরে তাই কাফির মুশরিকরা সেই বিষয়গুলোকেই বেছে নিচ্ছে।
    আমাদের জন্য কর্তব্য- হারাম গান-বাজনা, বেপর্দা ইত্যাদির বিরুদ্ধে বেশি বেশি আলোচনা করা, লেখালেখি করা। যেন মুসলমানরা তা শুনে ও পড়ে হারাম বিষয়গুলো সম্পর্কে অনুধাবন করতে পারে ও সেগুলো থেকে বিরত থাকে।

  2. লজিক২০১০লজিক২০১০ says:

    সারাদেশব্যাপী ‘মিস ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ’ নামক সুন্দরী প্রতিযোগিতা তথা বেহায়া-বেপর্দার মচ্ছব আয়োজনের বিরুদ্ধে সকল মুসলমানদের অবশ্যই প্রতিবাদী হতে হবে। Announce

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে