কথিত নূরে মুহাম্মাদী নামের জাল হাদিসের ভয়ংকর ইতিহাস পড়ুন ওহাবী সালাফীদের এই পোষ্টের খন্ডনমুলক জবাব:-(১১)


ওহাবী সালাফীদের লিংক:- http://markajomar.com/?p=880

প্রকৃতপক্ষে ওহাবী সালাফীরা যে শুধুমাএ মুসলমান উনাদেরকে ধোকাঁ দেওয়ার জন্য এই ধরনের প্রতারনাপূর্ন মিথ্যা তোহমত আরোপ করে থাকে যে ইমাম মুজতাহিদ উনারা ভুল করে হয়রত জাবির রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু থেকে বর্ণিত হাদিসখানাকে মুসান্নাফ ইবনে আব্দুর রযযাক এই সম্মানিত কিতাব মুবারকের নিছবত স্হাপন করেছিলেন তা তাদের বত্তব্য থেকে স্পষ্ট হয়ে যায়৤

আমি তাদের বক্তব্য হুবহু উল্লেখ করলাম:- যতটুকু জানা যায়, ৭ম হিজরী শতকের প্রসিদ্ধ আলিম মহিউদ্দীন ইবনু আরাবী আবূ বকর মুহাম্মাদ ইবনু আলী তায়ী হাতিমী (৫৬০-৬৩৮হিজরী) তিনিই সর্বপ্রথম এ কথাগুলোকে ফতূহাতে মাক্কিয়া কিতাবে (১/১১৯) হাদীস হিসেবে উল্লেখ করেছেন। এখানে প্রসঙ্গত উল্লেখ্য যে, ইবনু আরাবী’র পুস্তকাদিতে অগণিত জাল হাদীস ও বাহ্যত ইসলামী বিশ্বাসের সাথে সাংঘর্ষিক অনেক কথাই স্থান পেয়েছে।

কিন্তু পরবর্তী যুগে বুযুর্গগণ তাঁর প্রতি শ্রদ্ধাবশত এ সকল কথার বিভিন্ন ওজর ও ব্যাখ্যা পেশ করেছেন। আবার অনেকে কঠিনভাবে আপত্তিও তুলেছেন। বিশেষত মুজাদ্দেদী আলফে সানী হযরত আহমদ ইবনু আব্দুল আহাদ সারহিন্দী (রহ:) [১০৩৪ হিজরী] তিনি ইবনু আরাবী’র এ সকল জাল ও ভিত্তিহীন কথার বারংবার প্রতিবাদ করেছেন। কখনো কখনো নরম ভাষায়, আবার কখনো কঠিন ভাষায়। (উদাহরণ-মাকতুবাত শরীফ ১/১, মাকতুব ৩১, (পৃষ্ঠা ৬৭, ৬৮) মাকতুব ৪৩)।

এক চিঠিতে তিনি লিখেছেন,
“আমাদের নস বা কুরআন ও হাদীসের পরিষ্কার অকাট্য বাণীর সহিত আকিদা রাখতে হবে, বনু আরাবী’র কাশফ ভিত্তিক ফসস বা ফুসূসূল হিকামের সহিত নহে। ফুতূহাতে মাদানীয়া বা হাদীস শরীফ বর্জন করে আমাদেরকে ইবনে আরাবীর ফতূহাতে মাক্কীয়া জাতীয় গ্রন্থাদি হতে বেপরওয়া করেনা যেন। ( ১/১, মাকতুব ১০০, পৃষ্ঠা ১৭৮)

ওহাবী সালাফীদের উপরোক্ত লিখা হতে পরিপূর্নভাবে স্পষ্ট হচ্ছে প্রসিদ্ব আলিম মহিউদ্দীন ইবনু আরাবী আবূ বকর মুহাম্মাদ ইবনু আলী তায়ী হাতিমী তিনি উনার ফতুহাতে মাক্কিয়া কিতাবে সর্বপ্রথম হযরত জাবির রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু উনার থেকে বর্ণিত হাদিস শরীফখানা উল্লেখ করেছেন অর্থ্যাৎ তাদের ভাষায় সম্মানিত হাদিস শরীফখানার বিষয়বস্তু মুবারক উল্লেখ করেছেন এবং এই কিতাবের বত্তব্য পবিএ কুরআন শরীফ ও হাদিস শরীফ উনাদের খিলাফ হওয়ার কারনে হযরত মুজাদ্দিদে আলফে ছানী রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি শক্ত ভাষায় এই সব কথার প্রতিবাদ করেছিলেন. অথচ হযরত মুজাদ্দিদে আলফে ছানী রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি নিজেই কিন্তু হযরত জাবির রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু উনার থেকে বর্ণিত হাদিস শরীফখানাকে বিশুদ্ব হিসেবে উনার বিশ্বখ্যাত কিতাব “মকতুবাত শরীফ” উনার মধ্যে উল্লেখ করেছেন.সুবহানাল্লাহ৤

এখন আমার বলার বিষয় হলো যদি ওহাবী সালাফীদের দাবী অনুযায়ি, হযরত জাবির রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু উনার থেকে বর্ণিত হাদিস শরীফখানা সর্বপ্রথম প্রসিদ্ব আলিম মহিউদ্দীন ইবনু আরাবী আবূ বকর মুহাম্মাদ ইবনু আলী তায়ী হাতিমী উনার ফতুহাতে মাক্কিয়া কিতাবে লিপিবদ্ব হত তবে হযরত মুজাদ্দিদে আলফে ছানী রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি কখনও এই হাদিস শরীফখানাকে বিশুদ্ব হিসেবে উনার কিতাবে লিপিবদ্ব করতেন না কারন মহিউদ্দীন ইবনু আরাবী উনার কিতাবের মধ্যে পবিএ কুরআন শরীফ ও হাদিস শরীফ উনাদের খিলাফ অনেক বত্তব্য ছিল যার কারনে হযরত মুজাদ্দিদে আলফে ছানী রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি শক্ত ভাষায় এই সব বক্তব্যর প্রতিবাদ করেছিলেন৤

Views All Time
1
Views Today
2
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে