কথিত নূরে মুহাম্মাদী নামের জাল হাদিসের ভয়ংকর ইতিহাস পড়ুন ওহাবী সালাফীদের এই পোষ্টের খন্ডনমুলক জবাব:-(২)


ওহাবী সালাফীদের লিংক:- http://markajomar.com/?p=880

প্রকৃতপক্ষে নবম হিজরী সনের শ্রেষ্ট মুহাদ্দিস ও ইমাম আল্লামা জালালুদ্দিন সুয়ূতি রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি কখনও হযরত জাবির রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু উনার থেকে বর্ণিত হাদিস শরীফখানাকে মওজু বা জাল বলতে পারেন না কারন ইমাম আল্লামা জালালুদ্দিন সুয়ূতি রহমতুল্লাহি আলাইহি উনার নিজের আক্বিদা বা বিশ্বাস ছিল মহান আল্লাহপাক উনার হাবিব সাইয়্যিদুল মুরসালিন, ইমামুল মুরসালিন, খতামুননবীযিন হুজুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি নুরের সৃষ্টি!

তাই তিনি উনার বিশ্বখ্যাত তাফসীর “তাফসীরে জালালাইন” উনার মধ্যে সুরা মায়িদার আট নং আয়াত শরীফ উনার তাফসীরে নুর মুবারক উনার ব্যাখ্যায় তিনি উল্লেখ মুবারক করেছেন, সম্মানিত আয়াত শরীফ উনার মধ্যে বর্ণিত নুর মুবারক হল মহান আল্লাহপাক উনার হাবিব সাইয়্যিদুল মুরসালিন,ইমামুল মুরসালিন,খতামুননবীযিন হুজুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম৤ এছাড়াও তিনি উনার বিখ্যাত কিতাব “খাসাইসুল কুবরা” উনার মধ্যে নুরের সমর্থনে অনেক হাদিস শরীফ উল্লেখ করেছেন৤ বিষয়গুলো স্পষ্ট করার জন্য “তাফসীরে জালালাইন” উনার থেকে সুরা মায়িদার শরীফ উনার তাফসীর ও “খাসাইসুল কুবরা” থেকে সম্মানিত হাদিস শরীফগুলো উল্লেখ করা হলো.

কালামুল্লাহ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে -قد جاءكم من الله نور وكناب مبين অর্থ মুবারক:- নিশ্চয়ই তোমাদের নিকট এসেছেন, মহান আল্লাহ পাক উনার তরফ থেকে এক মহান নুর( নুরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুজুর পাক ছল্লল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম) এবং একখানা সুস্পস্ট কিতাব। এই আয়াত শরীফ উনার তাফসীরে দেওবন্দী, খারিজী, কওমী সমস্ত মাদ্রাসা থেকে পঠিত ইমাম জালালুদ্দিন সুয়ূতি রহমতুল্লাহি আলাইহি উনার বিশ্ব খ্যাত তফসীর “তাফসীরে জালালাইন” উনার ৯৭ পৃষ্টায় লিখেন- من الله نور… هو النبي صلى الله عليه وسلم وكتاب قران مبين এই আয়াত শরীফ উনার মধ্যে নুর অর্থ হলো নুরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুজুর পাক ছল্লল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম! আর কিতাব অর্থ হলো কুরআন শরীফ ।

এছাড়াও “খাসাইসুল কুবরা” উনার মধ্যে উল্লেখ রযেছে-হযরত ইবনে ওমর আদনী রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি ইবনে আব্বাস রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু উনার থেকে বর্ননা মুবারক করেন যে, হযরত আবুল বশর ছফিউল্লাহ হযরত সাইয়্যিদুনা আদম আলাইহিস সালাম উনার সৃষ্টির দুই হাজার বৎসর পূর্বে কুরাইশ মহান আল্লাহপাক উনার সামনে একটি নুরের আকারে বিরাজমান করছিল৤ এই সম্মানিত নুর মুবারক মহান আল্লাহপাক উনার তাসবীহ পাঠে মুশগুল থাকিত এবং হযরত ফেরেশতা আলাইহিমুস সালাম উনারও একসাথে তাসবীহ মুবারক পাঠ করিত৤ মহান আল্লাহপাক তিনি হযরত আদম আলাইহিস সালাম উনাকে সৃষ্টি মুবারক করিয়া সে সম্মানিত নুর মুবারক উনার পৃষ্ট মুবারকে রাখিয়া দিলেন৤ মহান আল্লাহপাক উনার হাবিব হুজুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, এরপর মহান আল্লাহপাক আমাকে হযরত আদম আলাইহিস সালাম উনার পৃষ্ট মুবারকে দুনিয়ার যমীনে অবতরন করিলেন৤ তারপর জলিলুল ক্বদর রসুল হযরত নুহ আলাইহিস সালাম উনার মাঝে স্হানান্তর করিলেন৤ এইভাবেই মহান আল্লাহপাক আমাকে মর্যাদাশীল মহাসম্মানিত ব্যাতিত্ব মুবারক উনাদের পৃষ্ট মুবারক থেকে অতি পবিএা মহাসম্মানিত নারী উনাদের রেহেম শরীফ উনাদের মাঝে স্হানান্তর মুবারক করিলেন৤ সর্বশেষ আমার মহাসম্মানিত ওয়ালিদাইন শরীফাইন তথা আমার মহাসম্মানিত আব্বা আম্মা আলাইহিমুস সালাম উনাদের মাধ্যম দিয়ে আমার বিলাদতী শান মুবারক প্রকাশ ঘটিল৤ সুবহানাল্লাহ৤(মাওলানা মুহাম্মদ কামরুজ্জামান,প্রথম প্রকাশ:-২০০৪ ইং, বংশগত পবিএতা অধ্যায়,পৃষ্টা নং:-৬৯. বাংলা সংস্করণ)

বায়হাকী এবং ইবনে আসাকির হযরত আবু হোরায়রাহ রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু উনার হইতে বর্ননা মুবারক করিয়াছেন যে, মহান আল্লাহপাক উনার হাবিব হুজুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, মহান আল্লাহপাক তিনি হযরত আদম আলাইহিস সালাম উনাকে সৃষ্টি মুবারক করার পর উনার সন্তান-সন্ততিকে উনাকে প্রর্দশন মুবারক করালেন৤ তখন হযরত আদম আলাইহিস সালাম তাহাদের পারস্পরিক শ্রেষ্টত্ব পরীক্ষা করিয়া দেখিতে লাগিলেন৤ শেষপর্যন্ত তিনি একটি সমুজ্জ্বল নুর মুবারক দেখিতে পাইয়া আরজু মুবারক করিলেন, হে আমার প্রতিপালক!এনি কে? মহান আল্লাহপাক তিনি বললেন, এনি আপনার এক মহাসম্মানিত আওলাদ হযরত আহমদ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম৤ তিনিই প্রথম এবং তিনিই শেষ৤(বংশগত পবিএতা অধ্যায়, পৃষ্টা নং:-৭০)

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে