কথিত বৈশাখী শাড়িতে মহান আল্লাহ পাক উনার নাম মুবারক যারা কটাক্ষ করে লিখেছে তাদেরকে বিচারের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেয়া হোক


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেছেন-
اِنَّ الَّذِيْنَ يُؤْذُوْنَ اللهَ وَرَسُوْلَهٗ لَعَنَهُمُ اللهُ فِى الدُّنْيَا وَالْاٰخِرَةِ وَاَعَدَّ لَـهُمْ عَذَابًا مُّهِيْنًا.
অর্থ: “নিশ্চয়ই যারা মহান আল্লাহ পাক উনাকে এবং উনার রসূল, নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাকে অর্থাৎ উনাদেরকে কষ্ট দেয়, তাদের উপর মহান আল্লাহ পাক উনার লা’নত দুনিয়া ও আখিরাতে এবং মহান আল্লাহ পাক তিনি তাদের জন্য লাঞ্ছনাদায়ক শাস্তি প্রস্তুত করে রেখেছেন।” সুবহানাল্লাহ! (সম্মানিত ও পবিত্র সূরা আহযাব শরীফ : সম্মানিত ও পবিত্র আয়াত শরীফ ৫৭)
সম্মানিত ও পবিত্র কুরআন শরীফ, সম্মানিত ও পবিত্র হাদীছ শরীফ, সম্মানিত ইজমা’ শরীফ এবং সম্মানিত ক্বিয়াস শরীফ উনাদের আলোকে সম্মানিত ফতওয়া মুবারক হচ্ছেন- ‘মহান আল্লাহ পাক উনার কোন বিষয়ে যারা কটাক্ষ করবে, মানহানী করবে, তারা হলো লা’নতগ্রস্থ। তাদের একমাত্র শাস্তি মৃত্যুদ-। তারা নামধারী মুসলমান হোক বা কাফির হোক অথবা নাস্তিক হোক কিংবা যেকোনো ধর্মেরই অনুসারী হোক না কেন। তাদের তাওবা গ্রহণযোগ্য হবে না। এমনকি যারা তাদেরকে সমর্থন করবে, তাদেরও একমাত্র শাস্তি মৃত্যুদ-’।
প্রসঙ্গত; কথিত হারাম পহেলা বৈশাখ উপলক্ষে তথাকথিত বৈশাখী শাড়ি ডিজাইনকারী প্রতিষ্ঠান ‘বিবিয়ানা’ এটি ‘দেশীদশ’ এর একটি ব্রান্ড। তারা কথিত বৈশাখী শাড়িতে মহান ‘আল্লাহ’ পাক উনার নাম মুবারক কটাক্ষ করে লিখে দিয়েছে। নাউযুবিল্লাহ!
শাড়িতে ‘আল্লাহ’ নাম লিখে অভিযোগ পাওয়ার পর ব্যাপারটা গুজব আর ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করলেও এক পর্যায়ে শাড়িতে ‘আল্লাহ’ নাম আছে স্বীকার করে তারা বলেছে,
‘আমরা আল্লাহর নাম খেয়াল করিনি এইটা ডিজাইনার মিস্টেক করছে। সরি এইটা ভুল হয়েছে ডিজাইনার থেকে।’
যদিও তারা শাড়ি ফেরত নিয়ে টাকা নেয়ার ব্যবস্থা করে কিন্তু কেন আল্লাহ্ নাম ব্যবহার করা হলো কেন মুসলমানদের দ্বীনি অনুভূতিতে আঘাত করা হলো এ ব্যাপারে প্রশাসনকে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

Views All Time
1
Views Today
2
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে