যেভাবে কানে-কানে কথা বলার সদকার হুকুম বাতিল হয়ে যায়!/১৩ ই রজবুল হারাম শরীফ ঈদে মীলাদে হযরত আলী কাররামাল্লাহু ওয়াজহাহু আলাইহিস সালাম


হযর‍ত আলী কাররামাল্লাহু ওয়াজহাহু আলাইহিস সালাম বলেন, “আমিই সে ব্যক্তি যে কানাকানি কথা বলার জন্য হুযুর ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাকে একটি দিরহাম দিতে গেলে আল্লাহপাক উনার পক্ষ থেকে এ হাদিয়া দেয়ার হুকুম বাতিল হয়ে যায়। ”
ইসলামের প্রথম যুগে মানুষেরা বেশি বেশি কানে-কানে কথা বলত। এক পর্যায়ে কানে-কানে কথা বলার বিষয়টি এমন অবস্থায় দাঁড়ায় যে, লোকেরা ভালো-মন্দ সব বিষয়েই কানাকানি বা গোপনীয় ভাবে বলার মাত্রাটা বাড়িয়ে দেয়। তখন আল্লাহপাক উনার পক্ষ হতে কানাকানি কথা বলার বিনিময়ে হাদিয়া পেশ করার হুকুম আসে। পরবর্তীতে লােকদের হাদিয়া পেশ করার অক্ষমতার দরুণ পূর্বের হুকুম বাতিল হয়ে যায় ।
সুবহানাল্লাহ
হযরত আলী কাররামাল্লাহু ওয়াজহাহু আলাইহিস সালাম উনার মর্যাদা, মর্তবা, ফযীলত সম্পর্কে হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার কর্তৃক যত ফেল মুবারক বর্ণিত হয়েছে, অন্য কোন সাহাবায়ে কেরাম রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুম উনাদের সম্পর্কে তা হয়নি।
তিনি ছিলেন হাফিয,শ্রেষ্ঠ মুফাসসির এবং হাদিস শরীফ বর্ননাকারী রাবী।হযরত কাররামাল্লাহু ওয়াজহাহু আলাইহিস সালাম তিনি হচ্ছেন তরীকতপন্থী উনাদের ইমাম।অর্থাৎ ইলমে তাসাউফের কাদেরিয়া, চিশতিয়াসহ মশহুর প্রায় সবগুলো সিলসিলাই উনার মাধ্যমে বিস্তার লাভ করেছেন এবং পৃথিবীর আনাচে কানাচে উনার সিলসিলায় লক্ষ কোটি ওলী আল্লাহগন মানুষকে ইলমে তাসাউফ উনার শিক্ষা দিয়েছেন,দিচ্ছেন এবং দিবেন।
সুবহানাল্লাহ
১৩ই রজবুল হারাম শরীফ হযরত আলী কাররামাল্লাহু ওয়াজহাহু আলাইহিস সালাম উনার বিলাদতি শান মুবারক প্রকাশ দিবস, তিনি আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের অর্ন্তভূক্ত।
আল্লাহপাক আমাদেরকে আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের হাক্বীকি মুহব্বত করার তওফিক দান করুন।

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে