কাফিরদের অনুসরণ বাদ দিন।মুসলিম উনাদের জন্য বিশেষ দিন রয়েছে,সেগুলো পালন করুন-কল্যান সুনিশ্চিত।


৯০% মুসলমানকে আপনি জিজ্ঞেস করেন আজকে একটা বিশেষ দিবস তার কারণ কি বলেন তো!?! ৯০% ব্যক্তিই দেখবেন জানে না। কারণ কি??? তারা কি মুসলমান নয়?!?
অথচ এদের অনেককেই দেখা যায় বিয়ে ১৪ই ফেব্রুয়ারি তে করার প্ল্যান করে!
কারণ কি!!!-ঐদিন তো ভ্যালেন্টাইন্স দে!!!
কাফিররা সফল! আসলেই সফল…কেননা তারা ঠিকঠাকমতই পেরেছে বাবা-মা থেকে শুরু করে চৌদ্দগুষ্টির নামে দিবস এর বড়ি বানিয়ে গিলে খাওয়াতে যাতে মুসলমান উনাদের যে বিশেষ দিন রয়েছে তা যেন ভুলেও মনে না পড়ে!
মহান আল্লাহ পাক জানিয়ে দিয়েছেন তারা কিন্তু শত্রু, দূরত্ব বজায় রাখো।
হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনি জানিয়েছেন অনুসরণ করো না! দ্বীন জীবিত থাকবে।
এবং উনি এজন্য সবক্ষেত্রেই পার্থক্য করেছেন করতে শিখিয়েছেন।যার কারণে ইফতার,সাহরীর হুকুমও কাফিরদের ব্যতিক্রম করেই করা হয়েছে!
অথচ এখন মুসলমানদের দেখলে মনে হয় “কিসের নবী আর কিসের আল্লাহ,আমার যা মন চায় তাই করবো” এমন একটা দশা! নাঊযুবিল্লাহ!
বলি, আর কত?মরবা না নাকি?
বয়স হয় নি???!!!
মৃত্যুর কি বয়স আছে???
সময় থাকতেই ছাড়ো,অনেকেই পালন করে অন্যান্য দিবস তাই আমিও একটু করে নিই,কিছুটা আবেগী হই… এসব বাদ দাও।
সম্মানিত দ্বীন ইসলাম আবেগে চলে না। এখন আবেগী না হয়ে তিক্ত দুনিয়াটাকে হজম করতে শেখো,কাফিরদের অনুসরণ বাদ দিতে শেখো,সাথে সাথে মুসলমান উনাদের জন্য মহান আল্লাহ পাক যে বিশেষ দিবসসমূহ রেখেছেন সেসকল দিনসমূহ কে মর্যাদার সাথে উদযাপন করতে শেখো,কামিয়াবী তুমিই হাছিল করবে।। দিনশেষে শান্তি পাবে,নিশ্চিত।

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে