কাফির নায়েকঃ শয়তানের শিং (পর্ব-১)


কাফির নায়েক এক লেকচারে বলেছে যে, আল্লাহ পাক, উনাকে যে কোন সুন্দর নামে ডাকা যাবে। যুক্তি হিসেবে সে হিন্দুদের বেদ থেকে কতগুলো শ্লোক তুলে ধরে বলেছে যে, আল্লাহ পাক, উনাকে হিন্দুদের দেবতার নাম ধরেও ডাকা যাবে। যেমনঃ ব্রহ্মা অর্থ  সৃষ্টিকর্তা (খলীক্ব), বিষ্ণু অর্থ প্রতিপালক (রব) ইত্যাদি। (নাউযুবিল্লাহ মিন যালিক) (Concept of God in Major religions- from the CD-“Presenting Islaam and Clarifying Misconceptions –Lecture series by Dr.Zaakir Naik, Developed by AHYA Multi-Media- 12 Enlightening Sessions)

তাহলে কাফির নায়েকের যুক্তি মতে আল্লাহ পাক, উনাকে মুহম্মদ, আহমদ, হাসান প্রভৃতি নামেও ডাকা যাবে কারণ নাম মুবারক গুলো সুন্দর (নাউযুবিল্লাহ)। মহান আল্লাহ পাক কুরআন মজিদের সুরা আ’রাফ এর ১৮০ নম্বর আয়াত শরীফ এ ইরশাদ করেন,“আর আল্লাহ পাক, উনার রয়েছে উত্তম সব নাম মুবারক। কাজেই সেই সব নাম মুবারক উনাকে ডাকো।” সুতরাং আল্লাহ পাক, উনাকে ৯৯টি নাম মুবারক ডাকা যাবে।

 

Views All Time
4
Views Today
5
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

১০টি মন্তব্য

  1. কাফির ও শ্লোক শব্দদ্বয় ট্যাগে সংযুক্ত করলে আরো কার্যকরী হতো বলে মনে হয়! তখন যেকোন সার্চ ইঞ্জিনে এই শব্দদ্বয় দিয়ে সার্চ দিলে এই কাফিরের হাক্বিক্বত ফুটে উঠতো।

  2. মায়ের ছেলেমায়ের ছেলে says:

    খুব ভালো মামা।

  3. raseldk says:

    আমিতো জানতাম আল্লাহপাকের ৯৯ টি গুন বাচক নাম আছে কিন্তু কাফের নায়েক এ আবার কি বলে

  4. শয়তানের শিং সম্পর্কে সতর্ক করতে এখানে আপনার মহা মুল্যবান লেখা শেয়ার করুন প্লিজ!-
    http://zakirnaik-peacetv.blogspot.com

  5. theperfectwork says:

    তাহলে কাফির নায়েকের যুক্তি মতে আল্লাহ পাক, উনাকে মুহম্মদ, আহমদ, হাসান প্রভৃতি নামেও ডাকা যাবে কারণ নাম মুবারক গুলো সুন্দর (নাউযুবিল্লাহ)। মহান আল্লাহ পাক কুরআন মজিদের সুরা আ’রাফ এর ১৮০ নম্বর আয়াত শরীফ এ ইরশাদ করেন,“আর আল্লাহ পাক, উনার রয়েছে উত্তম সব নাম মুবারক। কাজেই সেই সব নাম মুবারক এ উনাকে ডাকো।”
    “সুতরাং আল্লাহ পাক, উনাকে ৯৯টি নাম মুবারক এ ডাকা যাবে।”-উপরের আয়াতে কি ৯৯ টি নামের কথা বলা হয়েছে?
    আল্লাহের নাম ৯৯ টিতে সীমাবদ্ধ কে বলেছে?
    http://www.islamqa.com/en/ref/41003/name দেখুন আর এই বিভ্রান্তের কথা বাদ দিন।

  6. theperfectwork says:

    কুরআনের এই কথা অস্বীকার করবেন?

    বলুনঃ “আল্লাহ বলে আহবান কর কিংবা রহমান বলে, যে নামেই আহবান কর না কেন, সব সুন্দর নাম তাঁরই”। আপনি নিজের নামায আদায়কালে স্বর উচ্চগ্রাসে নিয়ে গিয়ে পড়বেন না এবং নিঃশব্দেও পড়বেন না। এতদুভয়ের মধ্যমপন্থা অবলম্বন করুন। ‌[17:110]

    আল্লাহের নামের ব্যাপারে আশাকরি জীবনেও বাজে কথা বলবেন না,
    আল্লাহের নামের ব্যাপারে না জেনে কাউকে কাফির বলবেন না।
    আল্লাহ আপনাদের সুপথ দেখান।

  7. তাদের ওয়েবসাইট এই আয়াত শরিফ দেয়া আছে……………”” আল্লাহ তাআলা বলেন:
    وَلِلَّهِ الْأَسْمَاءُ الْحُسْنَى فَادْعُوهُ بِهَا وَذَرُوا الَّذِينَ يُلْحِدُونَ فِي أَسْمَائِهِ سَيُجْزَوْنَ مَا كَانُوا يَعْمَلُونَ. (الأعراف : 180)
    আর আল্লাহর জন্যই রয়েছে সুন্দরতম নামসমূহ। সুতরাং তোমরা তাঁকে সেসব নামের মাধ্যমে ডাক। আর তাদেরকে বর্জন কর যারা তাঁর নামে বিকৃতি ঘটায়। তারা যা করত অচিরেই তাদেরকে তার প্রতিফল দেয়া হবে। (সূরা আল আরাফ, আয়াত ১৮০)””……………………আর তাদের গুরু কাফির নালায়েক ই বলে এই কথা…………… হাসি পায়

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে