সাময়িক অসুবিধার জন্য আমরা আন্তরিকভাবে দু:খিত। ব্লগের উন্নয়নের কাজ চলছে। অতিশীঘ্রই আমরা নতুনভাবে ব্লগকে উপস্থাপন করবো। ইনশাআল্লাহ।

KMT (Kaba Shareef Mean Time) চালু করার পূর্বে কাবা শরীফ-এর উপর দিয়ে প্রাইম মেরিডিয়ান স্থির করে নিতে হবে


যামানার ইমাম ও মুজতাহিদ, মুজাদ্দিদে আ’যম, ইমামুল আইম্মাহ, কুতুবুল আলম, আওলাদে রসূল, সুলত্বানুন নাছীর, সাইয়্যিদুনা ইমাম রাজারবাগ শরীফ-এর মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা আলাইহিস সালাম তিনি বলেন, মক্কা শরীফ টাওয়ারে স্থাপিত ঘড়িটি GMT’র বিকল্প হিসেবে চালু হবে বলে সউদী আরবের সংবাদ মাধ্যমগুলোতে প্রচার করা হয়েছে। শুধু প্রচার করলেই চলবে না সাথে সাথে বাস্তবায়িতও করতে হবে। স্মরণীয় যে, KMT Kaba Shareef Mean Time) চালু করার পূর্বে কাবা শরীফ-এর উপর দিয়ে প্রাইম মেরিডিয়ান স্থির করে নিতে হবে।
মুজাদ্দিদে আ’যম, ইমাম রাজারবাগ শরীফ-এর মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা আলাইহিস সালাম তিনি সার্বিকভাবে বিশ্বের সকল মুসলমানের মর্যাদা বৃদ্ধির ক্ষেত্রে সউদী সরকারের করণীয় এবং তাদের দৃঢ়চিত্তহীনতার বিষয়ে বলতে গিয়ে উপরোক্ত ক্বওল শরীফ উল্লেখ করেন।

মুজাদ্দিদে আ’যম, ইমাম রাজারবাগ শরীফ-এর মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা আলাইহিস সালাম তিনি বলেন, মক্কা শরীফ টাওয়ারে পৃথিবীর বৃহত্তম ঘড়িটি স্থাপিত হওয়ার পর সউদী আরব থেকে প্রকাশিত ইংরেজি দৈনিক আরব নিউজ-এ ২০১০ সালের ১০ই আগস্ট, মঙ্গলবার শিরোনাম এসেছিলো- Makkah Time a new alternative for GMT. “জিএমটির বিকল্প হতে পারে মক্কা শরীফ-এর সময়”- এই শিরোনামে পত্রিকাতে প্রকাশ করা হয়েছিল। কাজেই অতিসত্বর তা বাস্তবায়িত করতে হবে। দুঃখজনক হলেও সত্য যে, এখন টাওয়ারের যে যে অংশে ঘড়ি চালু হয়েছে তা চলছে GMT-এর সময়কে কেন্দ্র করে।

মুজাদ্দিদে আ’যম, ইমাম রাজারবাগ শরীফ-এর মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা আলাইহিস সালাম তিনি বলেন, মূলত কিভাবে মক্কা শরীফ-এর ঘড়িটি জিএমটির বিকল্প হতে পারে সউদী সরকারের এ বিষয়ে পূর্ণ ধারণা নেই। তাদের উচিত যারা এ বিষয়ে অভিজ্ঞ তাদের সাথে পরামর্শ করে অচিরেই জিএমটির পরিবর্তে কেএমটির প্রচলন ঘটানো।
মুজাদ্দিদে আ’যম, ইমাম রাজারবাগ শরীফ-এর মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা আলাইহিস সালাম তিনি বলেন, আমাদের সদা-সর্বদা মহান আল্লাহ পাক উনার স্বরণ করা উচিত। অথচ প্রতিদিনের সময় নিরূপণ করার সময় মহান আল্লাহ পাক উনার পবিত্র ঘর কাবা শরীফ-এর স্মরণ না করে মানুষ বিশেষত মুসলমানগণ স্মরণ করছে কাফিরদের গ্রীনিচকে। নাঊযুবিল্লাহ!

তবে গ্রীনিচের স্মরণ না করে মহান আল্লাহ পাক এবং উনার পবিত্র ঘর কাবা শরীফ-এর স্মরণের ক্ষেত্রে বিশ্বের মুসলমানগণকে সবচেয়ে বেশি সহায়তা দিতে পারে সউদী আরব সরকার। যেহেতু পবিত্র মক্কা শরীফ সউদী আরবে অবস্থিত। সউদী সরকারের উচিত বিশ্বের সকল মুসলিম দেশগুলোর সমর্থন নিয়ে গ্রীনিচের পরিবর্তে কাবা শরীফ-এর উপর দিয়ে প্রাইম মেরিডিয়ান স্থির করা। কাফিররা তা অনুসরণ করবে, কী করবে না- তা তাদের নিজস্ব ব্যাপার। কিন্তু মুসলমানগণের এ ব্যাপারে দৃঢ়চিত্ততা প্রকাশ করতে হবে।

মুজাদ্দিদে আ’যম, ইমাম রাজারবাগ শরীফ-এর মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা আলাইহিস সালাম তিনি বলেন, অনেক তথাকথিত মুসলিম জিএমটির পরিবর্তে কেএমটি চালুর বিষয়টি উপলব্ধি করতে না পেরে এটিকে অপ্রয়োজনীয়, জটিল, অর্থহীন এসব শব্দ ব্যবহার করে। নাঊযুবিল্লাহ! অথচ মহান আল্লাহ পাক তিনি উনার নির্দেশের অনুসরণের জন্যই কেএমটির প্রচলন হওয়া দরকার। মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ করেন, “তোমরা আল্লাহ পাক উনাকে স্মরণ করো।” অথচ আমরা যখন জিএমটি অনুযায়ী সময় নির্ধারণ করি তখন ইচ্ছা অনিচ্ছায় আমরা কাফিরদের স্মরণ করি। (নাঊযুবিল্লাহ)। কারণ GMT নির্ধারিত হয়েছে কাফিরদের গ্রীনিচকে কেন্দ্র করে।

মুজাদ্দিদে আ’যম, ইমাম রাজারবাগ শরীফ-এর মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা আলাইহিস সালাম তিনি বলেন, প্রাইম মেরিডিয়ান সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছিলো ১৮৮৪ সালে। সেই সিদ্ধান্ত কোনোকালের জন্যই মুসলমানগণ মানতে বাধ্য নয়। মুসলমানগণের উচিত, এসব বিষয়ে শরঈ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা। কাবা শরীফ-এর উপর দিয়ে প্রাইম মেরিডিয়ান স্থির করে নিয়ে মক্কা শরীফ-এর সময় অনুযায়ী পৃথিবীর সকল সময় অঞ্চল নির্ধারণ করাটা মুসলমানগণের জন্য সর্বকালের জন্যই অপরিহার্য হয়ে পড়েছে। অবশ্যই এ ব্যাপারে সউদী সরকারকে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখতে হবে।

(প্রকৃতপক্ষে যিনি যামানার লক্ষ্যস্থল ওলীআল্লাহ, যামানার মুজাদ্দিদ, মুজাদ্দিদে আ’যম ঢাকা রাজারবাগ শরীফ-এর মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা আলাইহিস সালাম তিনিই পৃথিবীতে সর্বপ্রথম GMT -এর পরিবর্তে KMT -এর প্রচলনের কথা ব্যক্ত করেন এবং তা দৈনিক আল ইহসান শরীফ-এ ব্যানার হেডিংয়ের মাধ্যমে প্রকাশিত হয়। সেই ব্যানার হেডিং-এর অনুসরণ করে পরবর্তীতে কাতারে একদল বিজ্ঞানী KMT -এর প্রচলনের ব্যাপারে মতবিনিময় অনুষ্ঠান করে এবং সউদী কর্তৃপক্ষ অনুপ্রাণিত হয়ে মক্কা টাওয়ারে বিশেষ ঘড়িটি স্থাপন করে। কিন্তু GMT-এর পরিবর্তে KMT-এর প্রচলনের কথা দৈনিক আল ইহসান শরীফ-এ ক্রমাগত প্রকাশিত হয়ে চলছে। কিন্তু মুসলিম বিজ্ঞানীগণ এবং সউদী কর্তৃপক্ষ বর্তমানে নীরব। এর মূল কারণ KMT -এর প্রচলনের ব্যাপারে তাদের আবেগ থাকলেও পর্যাপ্ত জ্ঞানের অভাব রয়েছে।)

মুজাদ্দিদে আ’যম, ইমাম রাজারবাগ শরীফ-এর মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা আলাইহিস সালাম তিনি বলেন, KMT-এর প্রচলনের ব্যাপারে আগ্রহী সকল কর্তৃপক্ষকে দৈনিক আল ইহসান শরীফ কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগের জন্য বিশেষ গুরুত্বারোপ করেন। যেহেতু আল ইহসান শরীফ থেকেই প্রথম এই ধারণা পৃথিবীতে ছড়িয়ে দেয় হয়।

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে