কুরবানী সংক্রান্ত মনগড়া আইন প্রণয়নের সাথে যারা জড়িত তাদের জন্য হুশিয়ারী


পবিত্র দ্বীন ইসলাম হচ্ছেন সম্মানিত ওহী মুবারক দ্বারা নাযিলকৃত যা অপরিবর্তনীয়। আর পবিত্র ওহী মুবারক উনার দরজা বন্ধ হয়ে গেছে। তাই সম্মানিত পবিত্র দ্বীন ইসলাম উনার উপর হস্তক্ষেপ করা কারো জন্য জায়িয নেই- সে যেই হোক অর্থাৎ রাজা হোক, বাদশাহ হোক, রাষ্ট্রপতি হোক, প্রধানমন্ত্রী অথবা মন্ত্রী, আমীর, ওমরাহ সে যেই হোক না কেন। তাহলে বাল্যবিবাহ বিরোধী আইন কিভাবে হতে পারে? এবং পবিত্র কুরবানী সংক্রান্ত মনগড়া আইন কিভাবে প্রণয়ন করতে পারে?

মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “মহান আল্লাহ পাক তিনি যা নাযিল করেছেন, সে অনুযায়ী যারা বিচার-ফায়ছালা করে না, তারা যালিম সম্প্রদায়ের অন্তর্ভুক্ত।”পবিত্র দ্বীন ইসলাম হচ্ছেন সম্মানিত ওহী মুবারক দ্বারা নাযিলকৃত যা অপরিবর্তনীয়। আর পবিত্র ওহী মুবারক উনার দরজা বন্ধ হয়ে গেছে। তাই সম্মানিত পবিত্র দ্বীন ইসলাম উনার উপর হস্তক্ষেপ করা কারো জন্য জায়িয নেই- সে যেই হোক অর্থাৎ রাজা হোক, বাদশাহ হোক, রাষ্ট্রপতি হোক, প্রধানমন্ত্রী অথবা মন্ত্রী, আমীর, ওমরাহ সে যেই হোক না কেন। তাহলে বাল্যবিবাহ বিরোধী আইন কিভাবে হতে পারে? এবং পবিত্র কুরবানী সংক্রান্ত মনগড়া আইন কিভাবে প্রণয়ন করতে পারে? কাজেই, বাংলাদেশ সরকারকে সম্মানিত পবিত্র দ্বীন ইসলাম উনার বিরোধী সমস্ত আইন প্রত্যাহার করতে হবে। আর যারা এই কুফরী আইনের সাথে জড়িত, তারা সরকারি হোক অথবা বেসরকারি হোক, তাদের সবাইকে মহান আল্লাহ পাক উনার নিকট খালিছ তওবা করতে হবে। এ বিষয়ে সবাইকে সর্তক করা হচ্ছে। অন্যথায় গযব নাযিল হলে- ইহকাল ও পরকাল উভয়কালই ধ্বংস হয়ে যাবে।

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে