কেউ যদি কামিয়াবী হাছিল করতে চায়, তবে তাকে অবশ্যই…….


কেউ যদি কামিয়াবী হাছিল করতে চায়, তবে তাকে অবশ্যই সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুছ ছানী আলাইহিস সালাম উনার পবিত্র বিলাদতী শান মুবারক প্রকাশের দিবসকে যথার্থ তা’যীম-তাকরীম মুবারক করতে হবে।

মহাপবিত্র কুরআন শরীফ উনার মধ্যে মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন- “হে আমার হাবীব, সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম! আপনি বান্দাদেরকে জিন-ইনসানকে, সারা কায়িনাতকে জানিয়ে দিন যে, আমি তোমাদের নিকট কোনো বিনিময় চাচ্ছি না। আর চাওয়াটাও স্বাভাবিক নয়; তোমাদের পক্ষে দেয়াও কস্মিনকালে সম্ভাব নয়। তবে তোমরা যদি ইহকালে ও পরকালে হাক্বীক্বী কামিয়াবী হাছিল করতে চাও; তাহলে তোমাদের জন্য ফরয হচ্ছে- আমার হযরত আহলে বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদেরকে মুহব্বত করা, তা’যীম-তাকরীম মুবারক করা- উনাদের খিদমত মুবারক উনার আঞ্জাম দেয়া।” সুবহানাল্লাহ! (পবিত্র সূরা শুরা শরীফ : পবিত্র আয়াত শরীফ ২৩)
এবং মহাপবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “তোমরা মহান আল্লাহ পাক উনাকে মুহব্বত, করো। কেননা তিনি তোমাদেরকে নিয়ামত সামগ্রীর মাধ্যমে অনুগ্রহ মুবারক করে থাকেন। আর তোমরা মহান আল্লাহ পাক উনার মুহব্বত মা’রিফাত, সন্তুষ্টি-রেযামন্দি মুবারক পেতে হলে আমাকে মুহব্বত করো। আর তোমরা আমার মুহব্বত, মা’রিফাত, সন্তুষ্টি-রেযামন্দি মুবারক পেতে হলে আমার হযরত আহলে বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদেরকে মুহব্বত করো।” সুবহানাল্লাহ!
মহাপবিত্র আয়াত শরীফ ও মহাপবিত্র হাদীছ শরীফ উনাদের দ্বারা সুস্পষ্টভাবে বুঝা যায় যে, যে ব্যক্তি মহান আল্লাহ পাক উনার ও উনার প্রিয়তম রসূল, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাদের মুহব্বত, মা’রিফাত, সন্তুষ্টি-রেযামন্দি মুবারক পেতে চায়, তবে অবশ্যই তাকে সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুছ ছানী মিন আহলি বাইতি রসুলিল্লাহি ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার যথার্থ তা’যীম-তাকরীম মুবারক করতে হবে, ছানা-ছিফত মুবারক ও উনার খিদমত মুবারক উনার আঞ্জাম দিতে হবে। অন্যথায় কারো পক্ষে কস্মিনকালেও কামিয়াবী হাছিল করা সম্ভব নয়। কেননা তিনি হচ্ছেন হযরত আহলে বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের মধ্যে অন্যতম সুবহানাল্লাহ! সুতরাং উনার শান-মান, মর্যাদা-মর্তবা, বুযূর্গী-সম্মান বলার অপেক্ষাই রাখে না। সুবহানাল্লাহ!
তাই প্রত্যেক মুসলমান পুরুষ-মহিলা উনাদের জন্য ফরয হলো- মহাপবিত্র ১৫ই শা’বান শরীফ উনার যথার্থ তা’যীম-তাকরীম করা ও যথার্থ খিদমতের আঞ্জাম দেয়া। কারণ সুমহান পবিত্র ১৫ই শা’বান শরীফ ইমামুছ ছানী মিন আহলি বাইতি রসূলিল্লাহি ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার পবিত্র বিলাদতী শান মুবারক প্রকাশ উনার দিবস। সুবহানাল্লাহ!
মহান আল্লাহ পাক তিনি যামানার ইমাম ও উনার পবিত্র আহলে বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের মুবারক উসীলায় আমাদের সকলকেই ঐ সুমহান দিন উনার যথার্থ তা’যীম-তাকরীম করার তাওফীক দান করুন এবং আজীবন খিদমত মুবারক করারও তাওফীক দান করুন। আমীন!
Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে