কোনো রোগই সংক্রামক বা ছোঁয়াচে নয়, তবে ইচ্ছা না হলে কোনো বিশেষ রোগে আক্রান্ত ব্যক্তির সাথে খাওয়া-দাওয়া ও এক সাথে অবস্থান নাও করতে পারে


কোনো রোগকে সংক্রামক বা ছোঁয়াচে মনে করা যাবে না। প্রথম ব্যক্তি যেভাবে আক্রান্ত হয় অপরাপর লোকেরাও সেভাবেই আক্রান্ত হয়ে থাকে। সম্মানিত দ্বীনি ইলম উনার অভাবে এবং বেদ্বীন-বদ্বীনদের সাথে মেলামেশার কারণে এই জল্পনা-কল্পনা ও বদ ধারণাগুলো সমাজে ছড়িয়ে পড়েছে। একই কারণে সম্মানিত দ্বীনি ইলমশূন্য ডাক্তাররা সাধারণ লোকদের ভুল বুঝাতে সক্ষম হয়। তারা রোগীদেরকে বলে যে, “অমুক অমুক রোগ সংক্রামক বা ছোঁয়াচে। কাজেই উক্ত রোগে আক্রান্ত ব্যক্তিদের কাছে যাবেন না। তাদের পরিধানের কাপড়-চোপড়, পরবেন না ইত্যাদি ইত্যাদি। কেননা এতে অনেক জীবাণু থাকে। যেগুলো রোগের বিস্তার ঘটায়।” নাউযুবিল্লাহ!
পরিষ্কার-পরিছন্নতা পবিত্র ঈমান উনার অঙ্গ। অপরিষ্কার, অপরিছন্নতাকে সম্মানিত শরীয়ত পছন্দ করেন না। সম্মানিত দ্বীন ইসলাম পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার শিক্ষা দান করে থাকেন। তাই বলে একজনের রোগের কারণে অন্যজন আক্রান্ত হবে- এমনটা নয়। আবার বিশেষ কোনো রোগে আক্রান্ত ব্যক্তির সাথে খাওয়া-দাওয়া করতেই হবে অথবা তার সাথে অবস্থান করতেই হবে এমনটাও নয়। ইচ্ছা হলে খাবে, পরবে, অবস্থান করবে। আর ইচ্ছা না হলে খাবে না, পরবে না, অবস্থান করবে না। তবে ইহা সংক্রামক বা ছোঁয়াচে- তা মনে করার সুযোগ নেই। এটাই নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি উম্মাহকে শিক্ষা দিয়েছেন।
পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে বর্ণিত আছে,
عن حضرة عمرو بن الشريد عن ابيه قال كان فى وفد ثقيف رجل مجذوم فارسل اليه النبى صلى الله عليه وسلم انا قد بايعناك فارجع
অর্থ: “হযরত আমর ইবনে শারীদ রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু তিনি উনার পিতা থেকে বর্ণনা করেন। তিনি বলেন, সাকিফ গোত্রের মধ্যে একজন কুষ্ঠরোগী ছিলেন। (তিনি বাইয়াত গ্রহণের উদ্দেশ্যে নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মুবারক খিদমতে আসতে চাইলেন) তখন তিনি উনার কাছে লোক পাঠিয়ে এই সংবাদ জানিয়ে দিলেন যে, আমি অবশ্যই আপনার বাইয়াত গ্রহণ করেছি। কাজেই, আপনি চলে যান। আমার কাছে এসে হাত মুবারকের উপর হাত রেখে বাইয়াতের প্রয়োজন নেই।” (মুসলিম শরীফ)
পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে বর্ণিত আছে,
عن حضرة جابر رضي الله تعالى عنه ان رسول الله صلى الله عليه وسلم اخد بيد مجذوم فوضعها معه فى القصعة وقال كل ثقة بالله وتوكلا عليه.
অর্থ: “বিশিষ্ট ছাহাবী হযরত জাবির ইবনে আব্দুল্লাহ রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু তিনি বলেন-
একদা নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি একজন কুষ্ঠ রোগীর হাত ধরলেন এবং নিজের মুবারক খাবারের পাত্রের মধ্যে শরীক করলেন। অতঃপর বললেন, আপনি মহান আল্লাহ পাক উনার উপর পূর্ণ আস্থা রেখে খাদ্য গ্রহণ করুন। আর উনার উপরই পরিপূর্ণ তাওয়াক্কুল রাখুন। (ইবনে মাজাহ শরীফ)

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে