কোন পথে আছেন?খেয়াল করেছেন কি?!?


নূ্রে মুজাসসাম,হাবীবুল্লাহ ,হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি হচ্ছেন সাখাওয়াতীর (দানশীলতার) শহর এবং আফদ্বালুন নাস বা’দাল আম্বিয়া হযরত ছিদ্দীকে আকবর আলাইহিস সালাম সেই শহরের দরজা। সুবহানাল্লাহ!!!
অর্থাৎ এতো বেমেছাল দান উনি করেছেন যা নজিরবিহীন।
আর সেই বিষয়টিই দিবালোকের ন্যায় প্রস্ফুটিত হয় তাবুকের জিহাদের সময়।
যে জিহাদে হযরত ছিদ্দীকে আকবর আলাইহিস সালাম উনি উনার সমস্ত কিছুই খিদমত মুবারকে হাদিয়া করেছিলেন কেবল আল্লাহ পাক এবং হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাদের সন্তুষ্টি মুবারক নিজ ঘরে রেখে এসেছিলেন…
আজকের দিনে কয়জন পারে উনার মতো দান করতে???আমাদের তো নিজেদের চিন্তা করতে করতেই দিন যায়!!!নিজেদের জন্য প্রয়োজনের অতিরিক্ত রেখে সাধ্যের চাইতে কম আমরা দান করি কখনো কখনো! আর হযরত ছাহাবায়ে কিরাম রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুম উনাদের জান তুচ্ছ মনে করতেন …
কতো ঊর্ধ্বে উনাদের শান-মান,মর্যাদা,ফযীলত।
অথচ দেখা যায়,আজকাল কিছু লোক হযরত ছাহাবায়ে কিরাম রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু উনাদের ভুল ধরে!নাঊযুবিল্লাহ!
উনারা আমাদের জন্য আদর্শ অথচ উনাদেরই বিরোধীতা করা হয়। নাঊযুবিল্লাহ!
যা কাট্টা কুফরী,জাহান্নামী হওয়ার কারণ।
হযরত ছাহাবায়ে কিরাম রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুম উনারা যেখানে আল্লাহ পাক এবং হাবীব পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাদের মতে মত ছিলেন,সেখানে এ উম্মত নিজেদের ভিন্ন মতের উপর দায়িম থেকে হক্ব দাবী করে…এখন অনেকেই মনে করে ১৪০০ বছর আগের সব না পালন করলেও চলবে! অথচ পাচ ওয়াক্ত নামাযে যে দৈনিক ৩২ বার সূরা ফাতিহা শরীফ পাঠ করে সিরাতুল মুস্তাক্বীম তথা সরল পথ চাই,সেই পথটা কোন পথ ?কাদের পথ? তা একবারও চিন্তা করি কি???
যারা গযবপ্রাপ্ত,পথভ্রষ্ট তাদের পথ থেকে পানাহ চাই,সেই পথেই আছি কি না তা ভেবেছি কি????!!!!!

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে