ক্ষুদ্র জ্ঞান দিয়ে মহান আল্লাহ পাক উনার কুদরতের ব্যাখ্যা না খুঁজে মহান আল্লাহ পাক উনার নিকট আত্মসমর্পন করাই বুদ্ধির কাজ!!!


বিজ্ঞান জ্ঞানের বড়াই করে। জ্ঞানের কতটুকু বিজ্ঞানের কাছে আছে। বিজ্ঞান বাস্তবতার নিরিখ করে তাই ঘোষণা করে। একটি সরষে দানার মধ্যে কী করে একটি পুরা গাছের নিঁখুত বৃত্তান্ত রেকর্ড থাকে তা কী বিজ্ঞান বলবে? অলৌকিক ঘটনার ব্যাখ্যা বিজ্ঞানীদের অজানা। আসলে মহান আল্লাহ পাক তিনি উনার জ্ঞানের খুব কমই মানুষকে দান করেছেন। সেই সামান্য জ্ঞান দ্বারা মহা কুদরতের ধারণা করা যায় বুঝা যায় না। সুতরাং জ্ঞানের বড়াই না করে মহান আল্লাহ পাক উনার নিকট নিজের সত্ত্বাকে বিলীন করে দেয়াই বুদ্ধিমানের কাজ হবে।
একটি ছোট ঘটনাকে উদ্দেশ্য করেই এই মতামত প্রকাশ করা হলো। যেসব মহিলাদের বাচ্চা দুধ পায় না তারা ডাক্তারের শরণাপন্ন হয়ে তেমন কোনো ফায়দা লাভ করে না। আমার এক আত্মীয় আমাকে একটি ছোট গাছ চিনিয়ে বলেছিলেন যে, এই গাছের শেকড় গলায় ঝুলিয়ে রাখলে যেসব বাচ্চারা মায়ের দুধ পায় না তারা দুধ পাবে। একটি গাছের শেকড় শরীরে স্পর্শ করলে বাচ্চা দুধ পাবে এটা আমার বিজ্ঞান চেতনায় বাধা দিলো। এটা অসম্ভব বলে উড়িয়ে দিলাম। তিনি ব্যাপারটা পরখ করে দেখতে বললেন। ইচ্ছার বিরুদ্ধে আমি শেকড়টা একজনকে দিলাম। আশ্চর্য! দারুন ফল পেলেন তিনি আর আমি বোকা বনে গেলাম। এ ঘটনার কী কোনো বৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যা আছে? আলবৎ না। মহান আল্লাহ পাক উনার কুদরত মানুষ কতোটা বুঝবে। আমি অনেককে এই গাছের শেকড় দিচ্ছি এবং তারা ফল পাচ্ছে কিন্তু কোনো ব্যাখ্যা নেই। ক্ষুদ্র জ্ঞানে মহান আল্লাহ পাক উনার কুদরতের কী ব্যাখ্যা পাবে মানুষ? সুতরাং ব্যাখ্যা না খুঁজে বিজ্ঞানের মালিক মহান আল্লাহ পাক উনার নিকট আত্মসমর্পন কর, এটাই ইসলাম। মহান আল্লাহ পাক তিনি কোনো কিছুই অনর্থক সৃষ্টি করেননি।

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+