গুটি কয়েক বিধর্মীর জন্য মুসলমানগণ গরুর গোশত খাওয়া থেকে বঞ্চিত হতে পারে না


রাজধানীর কিছু হোটেলসহ দেশের উত্তরবঙ্গের পঞ্চগড়, ঠাকুরগাঁও, নীলফামারী, লালমনিরহাট, নওগাঁ, রংপুর, কুড়িগ্রাম, চাঁপাইনবাবগঞ্জ, বগুড়া, জয়পুরহাটসহ সবকয়টি জেলায় করে দেখা গেছে- প্রত্যেকটি জেলা শহরের অধিকাংশ বড় বড় হোটেলগুলোতে গরুর গোশত নেই। নাউযুবিল্লাহ! অথচ গরুর গোশত ১০০% হালাল ও এটি একটি খাছ সুন্নতী খাবার।
পরিতাপের বিষয় যে- এদেশের জনসংখ্যার মাত্র (প্রায়) ১.৫০ ভাগ হিন্দু অধিবাসীর কারণে ৯৮ ভাগ মুসলমানদের সুস্বাদু খাবার আমিষের প্রধান উৎস গরুর গোশত খাওয়া থেকে বঞ্চিত করা হচ্ছে। নাউযুবিল্লাহ!
এটা মুসলমানদের একটা চরম অথর্বতা। কেননা যে সমস্ত হোটেলগুলোতে গরুর গোশত নেই, সেগুলো কোনো হিন্দুদের হোটেল নয়; বরং এর ৯৯ ভাগ হোটেলই মুসলমান মালিকের হোটেল।
কাজেই প্রত্যেক হোটেলওয়ালাদের জন্য ফরয-ওয়াজিব হলো- বিধর্মীদের মুহব্বত বাদ দিয়ে মহান আল্লাহ পাক উনার ও উনার রসূল, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাদের মুহব্বতে হোটেলে সুন্নতী খাবার গরুর গোশত রাখা।

Views All Time
1
Views Today
3
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে