চতুর্থ খলীফা সাইয়্যিদুনা হযরত কাররামাল্লাহু ওয়াজহাহূ আলাইহিস সালাম উনার বিশেষ খুছুছিয়াত তথা বৈশিষ্ট্য এবং গুণাবলী মুবারক


শেরে খোদা, ইমামুল আউওয়াল মিন আহলি বাইতি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম সাইয়্যিদুনা হযরত কাররামাল্লাহু ওয়াজহাহূ আলাইহিস সালাম উনার খুছুছিয়াত ও গুণাবলী মুবারক বহুবিধ। প্রথমত তিনি হচ্ছেন সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার ঘনিষ্ঠতম আত্মীয়, উনার জামাতা তথা উনার লখতে জিগার সাইয়্যিদাতু নিসায়িল আলামীন, উম্মু আবীহা, আন নূরুর রবি‘য়াহ সাইয়িদাতুনা হযরত যাহরা আলাইহাস সালাম উনার মহাসম্মানিত জাওযুজুম মুর্কারাম আলাইহিস সালাম এবং তিনি হচ্ছেন হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের মধ্যে অন্যতম একজন বিশেষ ব্যক্তিত্ব মুবারক ও ইমামুল আউওয়াল মিন আহলি বাইতি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম। সুবহানাল্লাহ!
উপরন্তু তিনি সম্মানিত বংশ মর্যাদায়ও পিতা উনার দিক থেকে ছিলেন আবূ ত্বালিব ইবনে আব্দুল মুত্তালিব আলাইহিস সালাম উনার পুত্র। অপর দিক থেকে উনার মাতা ছিলেন হযরত আসাদ ইবনে হিশাম আলাইহিস সালাম উনার কন্যা। সুবহানাল্লাহ!
সাইয়্যিদুনা হযরত কাররামাল্লাহু ওয়াজহাহূ আলাইহিস সালাম উনার মুহতারামা আম্মাজান উনার নাম মুবারক ছিলো সাইয়্যিদাতুনা হযরত ফাতিমা বিনতে আসাদ আলাইহাস সালাম। উনার মুবারক শানে নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি বলেন, আমার মহাসম্মানিতা আম্মাজান আলাইহাস সালাম উনার পর সাইয়্যিদাতুনা হযরত ফাতিমা বিনতে আসাদ আলাইহাস সালাম তিনিই ছিলেন আমার মা। সুবহানাল্লাহ! আবূ তালিব তিনি ব্যবসা করতেন। ফলে উনার এখানে দাওয়াতী মেহমান থাকতো। আমরা সবাই একসঙ্গে বসে খাওয়া-দাওয়া করতাম। উনার আহলিয়া হযরত ফাতিমা বিনতে আসাদ আলাইহাস সালাম উনার মুবারক আদত (অভ্যাস) ছিলো এই যে, মেহমানদের খানা থেকে কিছু খানা রেখে দিতেন যাতে আমি পরে খেতে পারি।” (মুস্তাদরাকে হাকিম, ইযালাতুল খফা)
সাইয়্যিদুনা শেরে খোদা ইমামুল আউওয়াল মিন আহলি বাইতি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার আরেকটি বিশেষ খুছূছিয়াত তথা বৈশিষ্ট্য মুবারক হচ্ছে এই যে, তিনি পবিত্র কা’বা শরীফ উনার ভিতরে পবিত্র বিলাদতী শান মুবারক প্রকাশ করেন। পবিত্র কাবা শরীফ উনার ভিতরে উনার পবিত্র বিলাদতী শান মুবারক প্রকাশ করার বিষয়ে কোনো বিতর্কের অবকাশ নেই। কারণ শেরে খোদা হযরত ইমামুল আউওয়াল মিন আহলি বাইতি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি পবিত্র কা’বা শরীফ উনার ভিতরে পবিত্র বিলাদতী শান মুবারক প্রকাশ করার বর্ণনাটি মুতাওয়াতির পর্যায়ে পৌঁছেছে। (ইযালাতুল খফা)
সাইয়্যিদুনা শেরে খোদা, ইমামুল আউওয়াল মিন আহলি বাইতি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার অন্যতম বৈশিষ্ট্য মুবারক হলো তিনি মহান আল্লাহ পাক উনার অনুগ্রহে অল্প বয়স মুবারক-এ তথা ১০ বৎসর বয়স মুবারক-এ সম্মানিত দ্বীন ইসলাম গ্রহণ করেন এবং স্বয়ং নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি উনার জিম্মাদারী নিয়ে নেন। সুবহানাল্লাহ! ফলে উনার সম্মানিত দ্বীন ইসলাম গ্রহণ এবং নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সাথে নামায আদায়ের ব্যাপারটি অল্প বয়স মুবারক-ই সম্পন্ন হয়েছে। সুবহানাল্লাহ! (ইযালাতুল খফা)

Views All Time
1
Views Today
2
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে