চাঞ্চল্যকর তথ্য উদ্ঘাটন : অবৈধ সম্পর্কের কারণেই সরওয়ার-রুনি হত্যাকাণ্ড


বাংলোদেশের সাংবাদিক দম্পতি সাগর সরওয়ার ও মেহেরুন রুনি হত্যাকাণ্ডের রহস্য উন্মোচিত হতে শুরু করেছে। হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত সন্দেহে দুই টিভি সাংবাদিককে আটক করেছে পুলিশ। গোয়েন্দা পুলিশ সূত্র বলছে, মেহেরুন রুনির সঙ্গে তার এক সহকর্মীর সম্পর্ক ছিল। তার স্বামী রাত দুইটায় বাসায় ফিরে রুনিকে ওই সাংবাদিকের সঙ্গে আপত্তিকর অবস্থায় দেখতে পায়। এরপর কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে রুনির সাংবাদিক বন্ধু রান্নাঘর থেকে বটি এনে সরওয়ারের ওপর আক্রমণ শুরু করে। এর ফলে সরওয়ার নিহত হয়। সরওয়ার নিহত হওয়ার পর ঘটনার স্বাক্ষী না রাখার কৌশল হিসেবেই রুনিকে হত্যা করা হয়।
তবে আজ (সোমবার) পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) হাসান মাহমুদ, হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত সন্দেহে কাউকে আটক করা হয়েছে কি না সে বিষয়ে স্পষ্ট করে কিছু বলেননি। তিনি এক সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন, তদন্তে অগ্রগতি হয়েছে, তবে কেউ গ্রেফতার হয়েছে কি না, তদন্তের স্বার্থে তা এখনই বলা যাবে না। মৃতদেহ উদ্ধারের পর থেকেই আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পাঁচটি টিম রহস্য উদঘাটনে একযোগে কাজ করছে। ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ, সিআইডি ও র‌্যাবের পক্ষ থেকে কাঙ্ক্ষিত অগ্রগতির কথা দাবি করা হলেও এ বিষয়ে সুস্পষ্টভাবে কিছু বলতে রাজি হননি কর্মকর্তারা। তদন্ত সংশ্লিষ্টরা বলেছেন, পরিচিতজনেরাই তাদের খুন করেছে। হত্যাকাণ্ডের পেছনে ব্যক্তিগত,পারিবারিক ও পেশাগত বিরোধ থাকতে পারে-‌এমন আশংকার ভিত্তিতেই আরো তদন্ত করা হচ্ছে বলে সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন। ঢাকা মহানগর পুলিশের মুখপাত্র ও গোয়েন্দা পুলিশের উপ কমিশনার মনিরুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেছেন,অত্যন্ত গুরুত্ব দিয়ে এ হত্যাকাণ্ডের তদন্ত করা হচ্ছে।

 

সূত্র: রেডিও তেহরান 13.02.2012

 

Views All Time
1
Views Today
2
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+