ছবির ফিৎনা থেকে বেচে থাকুন,ঈমান হেফাযত করুন


মুসলমানের ঘরেই মূর্তি!!!
সম্মানিত দ্বীন ইসলামে প্রতিকৃতি তৈরি করা হারাম। তা ছবি হোক,মূর্তি হোক, ভাস্কর্য হোক।
আর স্পষ্ট ভাবে তো বলে দেয়াই হয়েছে,প্রত্যেক ছবি তুলনেওয়ালা জাহান্নামী! নাঊযুবিল্লাহ!!!
তারপরো দেখা যায় মানুষ কারণে অকারণে ছবি তুলতেই থাকে! নাঊযুবিল্লাহ!
তারা মহান আল্লাহ পাক উনাকে ভয় করে না। অথচ মহান আল্লাহ পাক উনার আযাব অত্যন্ত কঠিন।
বরদাশত করা অসম্ভব!
যদি তাইই হয়ে তবে হারাম কাজ করা কেনো??!??
এ দুনিয়া তো ক্ষণস্থায়ী। মুখ বুজে একটু নফসের গোলামী করা থেকে বিরত থাকতে পারলে তো অনন্তকালের জন্য শান্তি।
আর বিপরীতে অনন্তকালের জন্য দুর্ভোগ পোহাতে হবে। নাঊযুবিল্লাহ! দিন তো তখন আর শেষ হবে না।
কাজেই পরকালে বিশ্বাসী যারা তাদের দায়িত্ব কর্তব্য হচ্ছে যতটুকু সম্ভব ছবির ফিৎনা থেকে বেচে থাকে,আর নফসানিয়তের কারণে যদি কখনো ছবি তোলা হয়েই যায় তবে তওবা ইস্তিগফার করতে থাকা। অবশ্যই ছবি তোলাকে সর্বাবস্থায়ই হারাম বিশ্বাস করতে হবে অন্যথায় কুফরী হবে। আর মুসলমান হিসেবে সে থাকবে না।
আর কেউ যদি একেবারেই ছবি তোলা, রাখা,আকা বাদ দিতে পরে তবে তো আলহামদুলিল্লাহ!
মহান আল্লাহ পাক যেন আমাদের সকলকেই ছবি এবং মূর্তির অপবিত্রতা ও ফিৎনা থেকে হেফাযত করেন।
আমীন।।

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে