“ছিদ্দীক্ব” (চরম সত্যবাদী) লক্বব মুবারক উনার অধিকারী হলেন- সাইয়্যিদুনা হযরত ছিদ্দীক্বে আকবর আলাইহিস সালাম


মহাসম্মানিত মহাপবিত্র মি’রাজ শরীফ উনার ঘটনাকে কাফিরের মুখে শুনে বিশ্বাস করার কারণে ‘ছিদ্দীক্ব’ (চরম সত্যবাদী) উপাধি বা লক্বব মুবারক উনার অধিকারী হয়েছেন- খলীফাতু রসূলিল্লাহ, আফদ্বালুন নাস বা’দাল আম্বিয়া হযরত ছিদ্দীক্বে আকবর আলাইহিস সালাম

 

মহান আল্লাহ তিনি ইরশাদ মুবারক করেন-

 

الَّذِينَ يُؤْمِنُونَ بِالْغَيْبِ

অর্থ: (মুত্তাক্বী উনারাই) যিনি বা যাঁরা গায়িব তথা অদৃশ্যে বিশ্বাস স্থাপন করেন। সুবহানাল্লাহ!!!

 

নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার আনুষ্ঠানিক নুবুওওয়াত মুবারক প্রকাশের এগারতম বৎসরে মহাসম্মানিত ২৭শে রজবুল হারাম শরীফ, ইয়াওমুল ইছনাইনিল আ’যীম শরীফ বা সোমবার রাত্রিতে মহাসম্মানিত মহাপবিত্র মি’রাজ শরীফ হওয়ার পর তিনি সকালবেলা মহাসম্মানিত মহাপবিত্র মি’রাজ শরীফ উনার ঘটনা বর্ণনা করছিলেন। যারা মুসলমান উনারা বিশ্বাস করলেন। যারা মুনাফিক তারা চু-চেরা শুরু করে দিলো। যারা কাফির তারা অস্বীকার করলো ও অসম্ভব মনে করলো। এ সংবাদ তখনো সাইয়্যিদুনা হযরত ছিদ্দীক্বে আকবর আলাইহিস সালাম উনার নিকট পৌঁছেনি। এক কাফির গিয়ে উনাকে বললো, হে সাইয়্যিদুনা হযরত ছিদ্দীক্বে আকবর আলাইহিস সালাম! আপনি এবং আপনারা যাকে নবী মনে করেন, রসূল মনে করেন, সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন মনে করেন, তিনি কি বলছেন জানেন? তিনি বলছেন তিনি নাকি এক রাতে পবিত্র মি’রাজ শরীফ করেছেন, মহান আল্লাহ পাক উনার সাক্ষাৎ মুবারক করেছেন, আরশ, কুরসী, লওহো, কলম, বেহেশত, দোযখ, বায়তুল মুক্বাদ্দাস শরীফ সব ঘুরে এসেছেন। আপনি কি এটা বিশ্বাস করেন? সাইয়্যিদুনা হযরত ছিদ্দীক্বে আকবর আলাইহিস সালাম তিনি বললেন, হে ব্যক্তি! তুমি কি তোমার নিজের কানে শুনেছো? সে ব্যক্তি বললো, হ্যাঁ; আমি আমার নিজের কানে শুনেছি। তখন সাইয়্যিদুনা হযরত ছিদ্দীক্বে আকবর আলাইহিস সালাম তিনি বললেন, যদি মহান আল্লাহ পাক উনার নবী ও রসূল, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি তা বলে থাকেন তাহলে অবশ্যই আমি বিশ্বাস করি। কারণ উনার যারা খাদিম, খিদমতগার হযরত জিবরীল আলাইহিস সালাম, হযরত মিকাইল আলাইহিস সালামসহ অন্যান্য হযরত ফেরেশতা আলাইহিমুস সালাম উনারা চোখের পলকে আসমানে যান এবং আসেন। এটা যদি উনাদের পক্ষে সম্ভব হতে পারে তাহলে যিনি হযরত ফেরেশতা আলাইহিমুস সালাম উনাদেরসহ সমস্ত জিন-ইনসান, সমস্ত সৃষ্টির নবী ও রসূল, সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার পক্ষে কেনো সবকিছু দেখে ঘুরে আসা সম্ভব হবে না? অবশ্যই সম্ভব হবে। আমি একবার নয়, দু’বার নয়, শত-সহস্রবার তা বিশ্বাস করি। এটা তিনি বলে রওয়ানা হয়ে গেলেন নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার দরবার শরীফ উনার দিকে।

এদিকে মহান আল্লাহ পাক তিনি হযরত জিবরীল আলাইহিস সালাম উনাকে পাঠালেন, আপনি এখনি আমার রসূল, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার কাছে গিয়ে বলুন যে, আমি স্বয়ং মহান আল্লাহ পাক আজ থেকে হযরত আবু বকর আলাইহিস সালাম উনাকে ‘ছিদ্দীক্ব’ (চরম সত্যবাদী) লক্বব মুবারক বা উপাধি মুবারক দিয়ে দিলাম। সুবহানাল্লাহ!

 

‘তাফসীরে জালালাইন শরীফ’ উনার মধ্যে উল্লেখ আছে,

سما الله ابابكر صديقا على لسان حضرت جبريل عليه السلام ورسولنا صلى الله عليه وسلم-

অর্থ: “মহান আল্লাহ পাক তিনি নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার ও হযরত জিবরীল আলাইহিস সালাম উনার মাধ্যমে সাইয়্যিদুনা হযরত আবূ বকর ছিদ্দীক্ব আলাইহিস সালাম উনাকে ‘ছিদ্দীক্ব’ লক্বব মুবারক হাদিয়া করেন।” সুবহানাল্লাহ!

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে